২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সহসা ফেরা হচ্ছে না বাট-আসিফের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কিছুদিন আগে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা (আইসিসি) নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। ১ সেপ্টেম্বর থেকেই ক্রিকেটে ফিরতে পারবেন স্পট ফিক্সিং কা-ে দ-প্রাপ্ত তিন পাক ক্রিকেটার সালমান বাট, মোহাম্মদ আসিফ ও মোহাম্মদ আমির। ওই ঘোষণার ফলে ২ সেপ্টেম্বর থেকেই সব ধরনের ক্রিকেটে ফেরার পথ উন্মুক্ত হয়ে গেছে এ তিন ক্রিকেটারের। আমিরের বিষয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) কোন আপত্তি না থাকলেও আসিফ ও বাটের ফেরার ওপর কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। বেশকিছু কার্যক্রমে অংশ নিয়ে পিসিবিকে সন্তুষ্ট করতে না পারলে সহসাই ঘরোয়া ক্রিকেটেও ফেরা হবে না এ দুই ক্রিকেটারের।

২০১০ সালে লর্ডস টেস্টে স্পট ফিক্সিং করার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ- ভোগ করেছেন বাট-আসিফ ও আমির। সব ধরনের ক্রিকেট থেকে ৫ বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞাও ছিল আইসিসি থেকে। তবে আমিরের বিষয়ে নমনীয় হয়েছে আগেই আইসিসি। কারণ বিচার চলার সময় দোষ স্বীকার করেছিলেন তিনি এবং বয়স কম ছিল। এছাড়া আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের বিভিন্ন কার্যক্রমে অংশ নিয়ে তরুণ ক্রিকেটারদের সতর্ক করার সঙ্গেও বেশ জোরেশোরেই যুক্ত ছিলেন আমির। তাই এ বছর জানুয়ারিতেই ঘরোয়া ক্রিকেটে ফেরার অনুমতি পেয়েছিলেন তিনি। তার জন্য পিসিবিও পদক্ষেপ নিয়েছে বিভিন্ন সময়ে দ্রুত ক্রিকেটে ফেরানোর জন্য। তবে আসিফ ও বাটের বিষয়টি ভিন্ন। তারা নিজেদের দোষ স্বীকার করেননি। আমিরের মতো সচেতনতামূলক কোন কার্যক্রমেও অংশ নেননি। এ কারণেই আইসিসি অনুমোদন দিলেও পিসিবি বেঁকে বসেছে। পিসিবির চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খান এ বিষয়ে বলেন, ‘এ দুই ক্রিকেটারকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে দুর্নীতিবিরোধী সেমিনারে অংশ নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। এ পদ্ধতিতে তাদের বিভিন্ন বক্তব্যে অংশ নিতে হবে। বিভিন্ন ফোরামে লেকচার শুনতে হবে এবং নিজেদের দোষ স্বীকার করে অনুশোচনা দেখাতে হবে এবং ভবিষ্যতের উদীয়মান ক্রিকেটারদের এ বিষয়ে সচেতন করে লেকচার দিতে হবে।’

পিসিবি এক চিঠিতে জানিয়েছে এ দুই ক্রিকেটার দেশের ন্যাশনাল ক্রিকেট একাডেমি (এনসিএ) ব্যবহার করতে পারবেন না অনুশীলনের জন্য। এমনকি জাতীয় দলে বিভিন্ন সময়ে অন্তর্ভুক্ত কোন ক্রিকেটারের সঙ্গেও অনুশীলন করতে পারবেন না কোথাও। শাহরিয়ার জানিয়েছেন আসিফ ও বাটকে পর্যবেক্ষণ করবে পিসিবি। নিচু সারির ক্রিকেট আসরে তাদের উন্নতিও দেখা হবে। একই প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে গেছেন আমির নিজেও। তাই সে সব আসিফ ও বাটকেও করতে হবে। ১ সেপ্টেম্বর থেকে ন্যাশনাল টি২০ আসর শুরু হবে। সেখানে বাট লাহোর এবং আসিফ সিয়ালকোটের হয়ে খেলার কথা ছিল।