২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আয়রনম্যান সুমিত পালের সাফল্য

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্লাসের সেরা ছাত্র। চুলে তেল দিয়ে পরিপাটি করে আঁচড়ে ক্লাসে চুপচাপ থাকাটাই ছিল তার চরিত্রের বৈশিষ্ট্য। তবে সময়ের পরিক্রমায় বদলে গেলেন সেই সুমিত পাল। বর্তমানে পরীক্ষার খাতার পাশাপাশি মাঠেও দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন দেশ-বিদেশে। নিজের মেধা-দক্ষতা আর কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সম্প্রতি হল্যান্ডের মাস্ট্রিস্ট লিম্বুর্গে অনুষ্ঠিত আয়রনম্যান ডিস্টেন্স ট্রিয়াথলেট সম্পন্নকারী সফল বাংলাদেশী হিসেবে নিজের নাম লিখিয়েছেন বাংলাদেশের সুমিত পাল।

কথায় বলে, যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে। এক দিনের খেলাধুলার ইভেন্টের মধ্যে এই আয়রনম্যান ট্রিয়াথলেট বিশ্বের সবচেয়ে কঠিনতম চ্যালেঞ্জ বলে সুপরিচিত। আর তাই এ ইভেন্ট সফলভাবে সম্পন্নকারীদের আয়রনম্যান খেতাব দেয়া হয়। ওয়ার্ল্ড ট্রিয়াথলেট কর্পোরেশন এ ইভেন্টের আয়োজন করে। কোন বিরতি ছাড়া টানা ২.৪ মাইল দৌড়, ১১২ মাইল সাইকেল চালানো এবং ২৬.২ মাইল ম্যারাথন দৌড়ের মতো চ্যালেঞ্জ সম্পন্ন করতে হয় বলে এদের আয়রনম্যান বলা হয়। বাংলাদেশের সুমিত পাল ৩.৮৬ কিমি সাঁতার, ১৮২ কিমি সাইক্লিং সম্পন্ন করেছেন টানা ১৪ ঘণ্টা ৫১ মিনিটে। সেজন্য তাকে অফিসের পাশাপাশি প্রতি সপ্তাহে ১৫ থেকে ২০ ঘণ্টা কঠোর অনুশীলন করতে হয়েছে। বাংলাদেশী হিসেবে তিনি প্রথম এই কঠিনতম চ্যালেঞ্জ সফলভাবে সমাপ্ত করার গৌরব অর্জন করেন।

তার শৈশব কেটেছে সিলেটের ছাতক। তিনি বাংলাদেশের নটর ডেম কলেজ থেকে এইচএসসি শেষ করে মেধাবীদের তীর্থস্থান বুয়েট থেকে তড়িৎ প্রকৌশলে ব্যাচেলর সম্পন্ন করেন। এরপর তিনি সফলতার সঙ্গে জার্মানিতে মাস্টার্স ও পিএইচডি শেষ করেন ২০১৪ সালে। বর্তমানে তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বিলাসবহুল গাড়ির ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি বিএমডব্লিউতে প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত আছেন।

ডাবল স্বর্ণ জয়ের প্রত্যাশা দিবাবার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইথিওপিয়ার ফেবারিট দূরপাল্লার প্রমীলা দৌড়বিদ গেনজেবে দিবাবা। চীনের বেজিংয়ে চলমান বিশ্ব এ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপে মহিলাদের ১৫০০ মিটার দৌড়ে স্বর্ণপদক জিতে ইতোমধ্যেই নিজের জাত চিনিয়েছেন তিনি। তার লক্ষ্য এখন ৫,০০০ মিটারেও স্বর্ণ জেতা। এ জন্য বেজিংয়ে ১৫০০ মিটারে শিরোপা জেতাটাকেই অনুপ্রেরণা হিসেবে নিচ্ছেন তিনি। এ বিষয়ে ২৪ বছর বয়সী এই এ্যাথলেট বলেন, ‘১৫,০০০ মিটারে স্বর্ণ জেতাটা আমাকে দারুণ উৎসাহ যোগাচ্ছে। কিন্তু আপনারা হয়তো জেনে থাকবেন ৫,০০০ মিটারের ফাইনালটা কিন্তু কঠিন।’ তবে কঠিন সেই কাজটাই করতে চান ইথিওপিয়ার প্রতিভাবান এই এ্যাথলেট। মঙ্গলবার বেজিংয়ে অনুষ্ঠিত ১৫,০০০ মিটারের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান লাভ করেন দিবাবা। বিশ্ব রেকর্ডধারী এই এ্যাথলেট প্রথম লেপে কিছুটা পিছিয়ে পড়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেনিয়ার ফাইথ কিপিয়েগন ও স্বদেশী দাউত সিয়াউমকে পাশকাটিয়ে প্রথমস্থান দখল করেন তিনি। সেই ইভেন্টে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনে তিনি সময় নেন ৪ মিনিট ০৮.০৯ সেকেন্ড। প্রতিযোগিতায় ৪ মিনিট ০৯.৯৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে কিপিয়েগন রৌপ্য এবং ইথিওপিয়ায় জন্ম নেয়া ডাচ্ মহিলা দৌড়বিদ সিফান হাসান ৪ মিনিট ০৯.৩৪ সেকেন্ড সময় নিয়ে তৃতীয় স্থান লাভ করেন। বিতর্কিত কোচ মা জুনরেনের তত্ত্বাবধানে থেকে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া দিবাবা গত মাসেই ১৫০০ মিটার ইভেন্টে ৩ মিনিট ৫০.০৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়েছিলেন।