২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গোপালগঞ্জে অজ্ঞাত রোগে ২০ শিক্ষার্থী ও পাঁচ শিক্ষক কর্মচারী আক্রান্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা, গোপালগঞ্জ, ২৭ আগস্ট ॥ মুকসুদপুর উপজেলার খান্দারপার ইউনিয়ন ইন্দুহাটি হলধর উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০ শিক্ষর্থী ও ৫ শিক্ষক-কর্মচারী গণ-হিস্টিরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক ওই বিদালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে এক অজানা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ফলে বিদ্যালয়ে ছুটি ঘোষণা করা হয়। যারা শিক্ষার্থী শিক্ষক ও কর্মচারীদের যারা অসুস্থ হয়ে পড়েন তাদের ৫ জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও আরও ১০ জনকে মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

একইভাবে অসুস্থ মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সে ভর্তি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাজী নজরুল ইসলাম মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন, সকালে ক্লাস শুরুর পর ৯ম শ্রেণীর কয়েক শিক্ষার্থী তীব্র মাথাব্যথা, বমি ভাব ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে চিৎকার শুরু করে। তাদের চিৎকারে অন্যান্য শিক্ষার্থী-শিক্ষক ও কর্মচারী তাদের সহযোগিতা করতে এলে একপর্যায়ে তিনি নিজেসহ অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। একে একে বিদ্যালয়ের ৮ম, ৯ম ও ১০ শ্রেণীর শিক্ষার্থী ও ৫ শিক্ষক-কর্মচারী একইভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন।

মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডাঃ মনিব উল হাবিব জানিয়েছেন, এটি গণ-মানসিক হিস্টিরিয়া রোগ। কোন ভাইরাস রোগ নয়, তবে মানসিকভাবে আক্রান্ত হওয়ায় এ রোগের সৃষ্টি হয়েছে। সচেতনতার পরামর্শ দেয়ার পর এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

রূপগঞ্জে সাত গার্মেন্টস শ্রমিক

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ থেকে জানান, রূপগঞ্জে একটি রফতানিমুখী পোশাক কারখানায় জিন আতঙ্কের গুজব ছড়িয়ে পড়েছে। এতে আতঙ্কিত হয়ে ৭ শ্রমিক গণহিস্ট্রোরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া কারখানা থেকে হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে আরও অন্তত ২০ শ্রমিক আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার বরপা এলাকার অন্তিম নিটিং ডায়িং এ্যান্ড ফিনিশিং নামে পোশাক কারখানায় ঘটে এ ঘটনা।

আক্রান্ত শ্রমিকরা হলেন, মরিয়ম আক্তার, আজিমা আক্তার, লিপি আক্তার, আছমা বেগম, জিয়াসমিন আক্তার, রুনা আক্তার, খুকি আক্তার। তাদের স্থানীয় হযরত শাহজালাল হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনার পর তাৎক্ষণিক ওই পোশাক কারখানা ছুটি ঘোষণা করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী শ্রমিকরা জানান, অন্তিম নিটিং ডায়িং এ্যান্ড ফিনিশিং নামে পোশাক কারখানায় প্রায় ৮ হাজার শ্রমিক কাজ করেন। দুপুর ১টার দিকে কারখানার ৭তলা ভবনের ৩য় তলার স্লোয়িং ফ্লোরের টয়লেটে গিয়ে একে একে ওই ৭ শ্রমিক জিন আতঙ্কের গুজবে গণহিস্ট্রোরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়েন।

লালমনিরহাটে আসামিরা বোরকা পরে আদালতে

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ২৭ আগস্ট ॥ লালমনিরহাটের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মহেন্দ্রনগরে শ্রমিকলীগ নেতা বুলেট হত্যা করার মামলায় অভিযুক্ত আসামি ইউপি সদস্য আমিনুলসহ ৯ জন বৃহস্পতিবার জামিন প্রার্থনা করে আদালতে হাজিরা দিয়েছে। অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান তাদের জামিন মঞ্জুর না করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছে। জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরের পর অভিযুক্ত আসামিরা বোরকা পরে আদালত চত্বরে হাজির হয়।

আসামিরা হলেন সদর উপজেলার হারাটি ইউনিয়নের কাজীর চওড়া গ্রামের হায়দার খানের ছেলে ইউপি সদস্য আমিনুল খান, একই গ্রামের ফজল খানের ছেলে বিপুল খান, সোবহান ওরফে ছোবা কসাইয়ের ছেলে মালেক কসাই (৪২), আহম্মদ আলীর ছেলে মিজান, মালেক সরকারের ছেলে সালাম, মজিবর রহমানের ছেলে মিঠু ওরফে কিলার মিঠু, আমিনুল খানের শ্যালক মিলন, গোক-া ইউনিয়নের ব্যডপাঙ্গা গ্রামের নাটুয়া মামুদের ছেলে আনিছ, আজিজার রহমানের ছেলে নেংরা জাহাঙ্গীর।