২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লক্ষ্মীপুরে যুবদল কর্মী হত্যা ॥ শিবির কর্মীসহ গ্রেপ্তার-৬

লক্ষ্মীপুরে যুবদল কর্মী হত্যা ॥ শিবির কর্মীসহ গ্রেপ্তার-৬

নিজস্ব সংবাদদাতা, লক্ষ্মীপুর॥ লক্ষ্মীপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো: সবুজ নামে এক যুবদল কর্মীকে গলা কেটে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়নের চিলাদি গ্রামে বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ দিকে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে একজন শিবির কর্মী ও একজন মহিলাসহ ৬ জনকে পুলিশ আটক করেছে। আটককৃতদের মধ্য থেকে বেলাল হোসেন নামের এক যুবক হত্যার দায় স্বীকার করে নিয়েছেন বলে পুলিশ ও এলাকাবাসী জানিয়েছে। বর্তমানে তাদের পুলিশ সুপার কার্যালয়ে রেখে জিঙ্গাসাবাদ চলছে। পুলিশের ভাষ্যমতে বেলাল শিবিরের একজন ক্যাডার। তার সঙ্গে জঙ্গি কানেকশান রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

অন্যদিকে নিহতের পরিবার এ হত্যা কান্ডের জন্য দৃষ্টান্তমূলক বিচার করে শাস্তির দাবী করেন। মো: সবুজ ছিলাদি গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে ও খামারী ব্যাবসায়ী। তিনি স্থানীয় ১নং ওয়ার্ড যুবদল সাধারণ সম্পাদক বলে জেলা যুবদল সভাপতি রেজাউল করিম লিটন দাবী করেন।

চার বছরের শিশু সন্তান লাবণী সুলতানা স্মৃতি আক্তারকে কোলে নিয়ে ৭ মাসের অন্তঃস্বত্তা সবুজের স্ত্রী খুকি আক্তার এখন দিশেহারা। একই সাথে চলছে পরিবার ও স্বজনদের আহাজারী।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানান, জায়গা জমির ঘটনাকে কেন্দ্র করে বেলালের বাবার সাথে অন্যান্যদের উপস্থিতিতে সবুজের কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জের ধরে সবুজ নামের এক লোককে তার খামারের পাশে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যাকান্ড পরিকল্পিত উল্লেখ করে তিনি আরো জানান, এতে স্থানীয় শিবির ক্যাডার বেলালসহ তার সাঙ্গোপাঙ্গোরা জড়িত রয়েছে জানতে পেরে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় ৬ জনকে আটক করা হয়। আটককৃত বেলাল সবুজকে হত্যার দায় স্বীকার করে নিয়েছেন। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তিনি আরো জানান, বেলালের বড় ভাইয়ের শ্যালক ওসমান নামে একজনকে ছুরি হাতে নিয়ে পালিয়ে যেতে দেখেছে বলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানিয়েছেন। এ ছাড়াও ওসমান নামে ঘটনার সাথে জড়িত আরো এক ব্যক্তি পলাতক রয়েছে। এ ব্যাপারে বেলালকে প্রধান করে ১০জনকে নাম উল্লেখ করে এবং আরো ৮/১০জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে চন্দ্রগঞ্জ থানায় হত্যার ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে রয়েছে, বেলাল, তার পিতা আবু জাহের, জাহেরের স্ত্রীসহ ৬জন।