১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিলয় হত্যায় গ্রেফতার কাউছার ও কামাল ৫ দিনের রিমান্ডে

নিলয় হত্যায় গ্রেফতার কাউছার ও কামাল ৫ দিনের রিমান্ডে
  • ব্লগার অনন্ত হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ব্লগার নীলাদ্রি চ্যাটার্জী নিলয় হত্যায় গ্রেফতারকৃত ২ জনকে ৫ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। আসামিদের পক্ষে কোন আইনজীবী ছিলেন না। এ নিয়ে নিলয় হত্যায় ৪ জন গ্রেফতার হলো। নিলয়ের স্ত্রী ও শ্যালিকা হত্যাকারীদের সম্পর্কে বর্ণনা দিয়েছে। সেই বর্ণনার সঙ্গে বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেফতার হওয়া ২ জনের মিল রয়েছে।

গত ৭ আগস্ট দুপুর দেড়টার দিকে রাজাধানীর খিলগাঁও থানাধীন পূর্ব গোড়ানের ৮ নম্বর সড়কের ১৬৭ নম্বরের পাঁচতলা বাড়ির পঞ্চমতলার পূর্বদিকের নিজ বাসায় কুপিয়ে হত্যা করা হয় ব্লগার নীলাদ্রী চ্যাটার্জী নিলয়কে। বাড়ি ভাড়া নেয়ার কথা বলে প্রথমে একজন পরে আরও তিন জন ঘরে ঢুকে। এরপর প্রথমে নিলয়ের স্ত্রী আশা মনির মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে তাকে বারান্দায় জিম্মি করে রাখে একজন। আর শ্যালিকা তন্বীকে রান্নাঘরে রেখে বাইর থেকে দরজার ছিটকিনি লাগিয়ে দেয়। এরপর নিলয়কে তিনজনে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা করে।

গত বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বর থেকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ কাউছার হোসাইন খান (২৯) ও শ্যামপুর থানাধীন দলিপাড়া থেকে কামাল হোসেন সর্দারকে (২৯) গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা ২০১৩ সালের ১৪ জানুয়ারি রাজধানীর উত্তরায় ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিনকে হত্যাচেষ্টা মামলায় গ্রেফতার হয়ে জামিনে ছিল। তারা আসিফ মহিউদ্দিন হত্যাচেষ্টা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামি।

শুক্রবার গ্রেফতারকৃতদের ব্লগার নিলয় হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ঢাকার সিএমএম আদালতে সোপর্দ করে ডিবি পুলিশ। বিচারক এমদাদুল হক আসামিদের ৫ দিনের রিমান্ডে পাঠান। এর আগে নিলয় হত্যা মামলায় গত ১৩ আগস্ট সাদ আল নাহিন ও মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। তাদের ৮ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। নাহিন নিজেকে নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য পরিচয়ে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে।

নিলয় হত্যা মামলার তদন্তকারী সংস্থা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সাদ আল নাহিন ও মাসুদ রানার রিমান্ডে দেয়া তথ্য মোতাবেক কাউসার ও কামালকে গ্রেফতার করা হয়। এদিকে নিলয় হত্যার পর তার স্ত্রী আশা মনি ও শ্যালিকা তন্বীর একাধিকবার জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়েছে। জবানবন্দীতে তাঁরা হত্যাকা-ের সময় যা ঘটেছে তা বর্ণনা করেছেন। এমনকি হত্যাকা-ে যে চারজন অংশ নেয়, তাদের চেহারা ও আকার আকৃতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানায়। নিলয়ের স্ত্রী ও শ্যালিকার খুনীদের সম্পর্কে দেয়া বর্ণনার সঙ্গে প্রথমে গ্রেফতারকৃত নাহিন ও মাসুদ রানার তেমন মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি।

ডিবির পূর্ব বিভাগের উপকমিশনার মাহবুবুর রহমান জনকণ্ঠকে জানান, নিলয়ের স্ত্রী ও শ্যালিকা খুনীদের সম্পর্কে যে বর্ণনা দিয়েছেন, সেই বর্ণনার সঙ্গে গত বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেফতারকৃত কাউসার ও কামালের অনেকটা মিল রয়েছে।