২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খুলনায় বোনের প্রেমিকের ছুরিকাঘাতে শিশু খুন

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ খুলনার ডুমুরিয়ায় প্রেমিকের ছুরিকাঘাতে প্রেমিকার ভাই ফয়সাল মল্লিক (১৩) নামে নবম শ্রেণীর এক ছাত্র নিহত হয়েছে। এ সময় ফয়সালের বাবা আব্দুর রশিদ মল্লিকসহ আরও চারজন আহত হয়েছেন। এলাকাবাসী ঘাতক মিজানুর রহমান মিজানকে (২৪) গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে ডুমুরিয়া উপজেলার উলা গ্রামে আব্দুর রশিদ মল্লিকের বাড়িতে। নিহত ফয়সাল মল্লিক স্থানীয় উলা মৈখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে মিজান প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে তাদের বাড়িতে যায়। প্রেমিকা দরজা খুলে মিজানকে ঘরে ঢোকানোর সময় ফয়সাল টের পায়। ফয়সাল চোর ঢুকেছে মনে করে চোর চোর বলে মিজানকে জাপটে ধরে। ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে মিজান ধারালো ছুরি দিয়ে ফয়সালের বুকে আঘাত করে।

নাটোরে সৎ মায়ের

হাতে

সংবাদদাতা নাটোর থেকে জানান, নাটোরের বড়াইগ্রামে শ্বাসরোধ করে ইমন হোসেন (৯) নামে এক শিশুকে হত্যা করেছে সৎ মা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার কামারদহ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ইমন একই গ্রামের এমদাদুল হক মিলনের ছেলে। সে কামারদহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র ছিল। এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে ইমনের মা কুলসুম বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ইমন খেলার সময় ৩টি গ্যাস বেলুন নষ্ট করে ফেলে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ইমনের সৎ মা নাহিদা বেগম তাকে ঘরের মধ্যে নিয়ে গলাটিপে শ্বাসরোধে হত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এ সময় পুলিশ অভিযুক্ত সৎ মা নাহিদা বেগম ও পিতা এমদাদুল হক মিলনকে আটক করে। বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শিশুটির সৎ মা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে।