২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশে বিনিয়োগ করুন ॥ সিঙ্গাপুরে বাণিজ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিদেশী বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেছেন, বিদেশীদের বিনিয়োগের জন্য বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলসহ প্রয়োজনীয় সব ধরনের সুযোগ সুবিধা প্রদান করা হবে। বতর্মানে বাংলাদেশে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বিরাজ করছে, অনেক দেশের বিনিয়োগকারীরা এখন বিনিয়োগ করছেন।

বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুরের বাংলাদেশ হাইকমিশন ও মাইডাস টাচ এশিয়ার যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ট্রেড এ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিটে এ আহ্বান জানান তিনি। শুক্রবার ঢাকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে। বাংলাদেশে বৈদেশিক বিনিয়োগ বাড়ানোর লক্ষ্যে আয়োজিত এ সম্মেলনে অংশ নেনÑ সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, ভারত, চীন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়াসহ আরও বেশ কয়েকটি দেশের ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এ সম্মেলনে তার বক্তব্যে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে একসময় তলাবিহীন ঝুড়ি আখ্যা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু আজ বাংলাদেশ তলাবিহীন ঝুড়ি নয়। বাংলাদেশ এখন ৭২৯ ধরনের পণ্য পৃথিবীর ১৯২টি দেশে রফতানি করছে। রফতানি আয় এখন ৩১ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তোফায়েল আহমেদ জানান, বাংলাদেশ সরকার সারাবিশ্বে রফতানি বাজার সৃষ্টির জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তৈরি পোশাক, চামড়া, ওষুধ, আসবাবপত্র, কৃষিপণ্য, আইটি ও জাহাজ নির্মাণ শিল্পকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে সরকার। সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ হাইকমিশনের আয়োজনকে দৃষ্টান্ত হিসেবে নিয়ে দূতাবাসগুলোর মাধ্যমে অন্যান্য দেশেও এ ধরনের আয়োজন করবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী বাংলাদেশে বিদ্যমান কিছু সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন বিভিন্ন দেশ থেকে আগত ব্যবসায়ীদের সামনে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকার বিদেশীদের বিনিয়োগের জন্য সব ধরনের সুযোগ সুবিধা ও নিরাপত্তা দিচ্ছে। বাংলাদেশে এখন অনেক দক্ষ শ্রমিকও রয়েছে। প্রতিবছরই জিডিপি বাড়ছে, সুতরাং আপনারা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে অবশ্যই লাভবান হবেন।

পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক ব্যবসায়ীদের জানান, বাংলাদেশে বিনিয়োগ করে এখন পর্যন্ত কেউ পুঁজি হারায়নি, কারণ পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে স্বল্প খরচে পণ্য উৎপাদন করা যায়। তিনি আরও জানান, বাংলাদেশ থেকে উৎপাদিত পণ্য সহজেই অন্যান্য দেশে পাঠানো যায়।

এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদ বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ থেকে উন্নত দেশ হওয়ার পথে। আমাদের সম্ভাবনার কথা পৃথিবীর সব দেশে জানাতে হবে আর তাহলেই দেশে বিনিয়োগ বাড়বে।

সিঙ্গাপুরের বড় কোম্পানি স্যামর্কপ মেরিনের সহসভাপতি তান চ্যাং গুয়ান বলেন, আমরা ইতোমধ্যে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করেছি। রাজশাহীর মাতারবাড়ি ও সিরাজগঞ্জে দুটি বিদ্যুত প্রকল্পে আমরা বিনিয়োগ করেছি। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে বিদ্যুত ও জ্বালানি খাতে বিনিয়োগের প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে।