১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি ফেরি অচল॥ রাজস্ব ক্ষতি আড়াই কোটি টাকা

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ নবম দিনেও স্বাভাবিক হয়নি শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি ফেরি চলাচল। পরাপারের অপেক্ষায় এখনও উভয় ঘাটে আড়াই শ’ ট্রাক। মাত্র দুটি ফেরিই কোন মতে চলাচল করছে।

বিআইডব্লিউটিসির মাওয়াস্থ এজিএম এসএম আশিকুজ্জামান জানান, শনিবারও শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়নি। নাব্যতা সংকট আর প্রচন্ড ¯্রােতে এ নৌরুটে ফেরি চলাচলে অচলবস্থার উন্নতি হয়নি। ফেরি ‘ক্যামেলিয়া’ ও ‘কুসুমকলি’ কোন মতে চলাচল করছে। ঘাটে এখনও পারাপরের অপেক্ষায় ট্রাকের সিরিয়াল লেগে আছে। লৌহজং টানিং পয়েন্টে ডুবো চরের সৃষ্টি হওয়ায় ফেরি পারাপারে এ অচলবস্থার সৃষ্টি হয়। তবে বর্তমানে পদ্মায় পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এ পানির গভীরতা ফেরি চলাচলের উপযোগি হলেও প্রচন্ড ¯্রােতের কারণে ফেরিগুলো ¯্রােতের প্রতিকূলে প্রতিযোগিতায় টিকতে পারছেনা। ক্যামেলিয়া ও কুসুম কলি ফেরি দুটি নতুন ও বেশী শক্তিশালী ইঞ্জিনের কারণে ৭ নটিক্যাল মাইল ¯্রােতের প্রতিকুলেও চলাচল করতে পারছে। তাই এ দুটি ফেরিই এখন টিকিয়ে রেখেছে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি ফেরি সেক্টরকে।

গত তিন সপ্তাহের বেশী সময় ধরে নাব্যতা সংকটের কারণে বড় রো রো ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এর পর আস্তে আস্তে সকল ফেরি চলাচলই বন্ধ হয়ে যায়।

এদিকে ফেরি বন্ধ থাকার কারণে প্রতিদিন সরকার প্রায় ২০ লাখ টাকার রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ের এই ফেরি বন্ধের ঘটনায় সরকার প্রায় আড়াই কোটি টাকার উপরে রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হয়েছে। আর পন্যবাহী ট্রাক আটকা, উৎপাদিত পন্য বাজারজাতব্যহতসহ আর এই অঞ্চলের অর্থনীতিতে বেসরকারী ক্ষতির পরিমান শ’ কোটি ছাড়িয়ে যাবে।