২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

১ টাকার জন্যে অতিরিক্ত খরচ ৬৮.৬০ টাকা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বস্ত্রখাতের কোম্পানি মডার্ন ডায়িং এ্যান্ড স্ক্রিন প্রিন্টিং লিমিটেড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর পুরোটাই নগদ লভ্যাংশ। অথচ এই ১ টাকার বিপরীতে বৃহস্পতিবারে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দর বেড়েছে ৬৮ দশমিক ৬০ টাকা। অর্থাৎ কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দর বাড়ল ৭৫ দশমিক ০৫ শতাংশ। যা কোনভাবেই বর্তমান বাজারের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। কারণ গত কিছুদিন ধরেই বাজারে মন্দাবস্থা চলছে। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মাঝে শেয়ারটির অস্বাভাবিক দরবৃদ্ধি কৌতূহল সৃষ্টি করেছে। তারা বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার হস্তক্ষেপও আশা করেছেন।

এর আগে বুধবার অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে লভ্যাংশের এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কোম্পানিটি গত ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য এ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৬ পয়সা। একই সময়ে শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১১ টাকা ৪৯ পয়সা।

কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ১৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর। বৃহস্পতিবারে কোম্পানির লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ প্রকাশের পর থেকেই দর বাড়তে থাকে। গত বছরে নো ডিভিডেন্ডের কারণে কোম্পানিটি এখন জেড ক্যাটাগরিতে লেনদেন চলছে। এই বছরের ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের হাতে পৌঁছানোর পরই শুধুমাত্র ক্যাটাগরি পরিবর্তন হয়ে ‘এ’ আসবে। এখনই তো ক্যাটাগরি পরিবর্তন হবে না। কিন্তু বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোন বাছ-বিচার না করেই কোম্পানিটির শেয়ার কিনেছে।

ডিএসইর ওয়েবসাইট সূত্রে জানা গেছে, কোম্পানিটি ২০১০ সালের পর থেকে উৎপাদনে নেই। শুধুমাত্র অফিস ও কারখানা ভাড়া দিয়ে মুনাফা করে থাকে। সেখান থেকেই বার বার মুনাফা দিয়ে আসছিল। কিন্তু গতবছরে কোন লভ্যাংশই ঘোষণা করতে পারেনি। ফলে জেড ক্যাটাগরিতে রয়েছে। বৃহস্পতিবারে কোম্পানিটির ২৮ হাজার ৩৩৩টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে। মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৩৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা। মোট ২৮৯টি হাওলায় এই লেনদেন সম্পন্ন হয়েছে। ডিএসইর ওয়েবসাইট সূত্রে জানা গেছে, কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।