১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমি ক্ষমতায় থাকতে দেশে গণতন্ত্র ছিল, শান্তি ছিল ॥ এরশাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, এই অবস্থা দেশে কখনও ছিল না। প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, বিচার বিভাগ সবকিছুই সরকারের নিয়ন্ত্রণে। ভয়ে কেউ কথা বলতে পারে না। আমি ক্ষমতায় থাকতে দেশে গণতন্ত্র ছিল। মানুষ শান্তিতে ছিল। বলার অধিকার ছিল।

মঙ্গলবার দলের চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে সিলেট জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ। তিনি বলেন, দেশের মানুষ এখন শান্তিতে নেই। নানা সমস্যার মধ্য দিয়ে সবাইকে চলতে হচ্ছে। কিন্তু কেউ কিছু বলতে পারছে না। বলতে গেলেই সমস্যা। এটা ঠিক নয়। মানুষকে বলার ও সমালোচনা করার অধিকার দেয়া উচিত বলে মনে করেন সাবেক এই স্বৈরশাসক।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দলের মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। বক্তব্য রাখেন প্রেসিডিয়াম সদস্য তাজ রহমান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া। উপস্থিত ছিলেন- শিক্ষা বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক আ.ন.ম. শাহজাহান, যুগ্ম মহাসচিব নুরুল ইসলাম নুরু, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী, দফতর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ন খান, জাকির হোসেন মিলন, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক জসীম উদ্দীন ভূঁইয়া, জাতীয় ছাত্রসমাজের সভাপতি সৈয়দ ইফতেকার আহসান হাসান, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিরু, কেন্দ্রীয় নেতা এনাম জয়নাল আবেদিন, আব্দুস সাত্তার গালিব, নিজাম উদ্দিন সরকার, জাতীয় পার্টির সিলেট জেলার সদস্য সচিব ওসমান আলী, আহসান হাবিব মইন, আব্দুল মজিদ সরকার, নাজমুল ইসলাম, বশির উদ্দিন, আসাদুজ্জামান, আমির উদ্দিন রতন প্রমুখ।

সভায় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে এরশাদ আরও বলেন, দেশে গণতন্ত্র নেই। সংসদীয় গণতন্ত্র আগে ব্যর্থ ছিল। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে অংশ নিয়ে আমরা গণতন্ত্র রক্ষা করেছি। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করেছি। পাঁচ জানুয়ারিতে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয়েছে। যার ধারাবাহিকতা আজও চলমান। জাতীয় পার্টিই নির্বাচনে অংশ নিয়ে সেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে। এ বিষয়টি সবার মনে রাখা উচিত।