১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কোটাবঞ্চিত আরও পাঁচ হাজার হজের অনুমতি পেলেন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ অবশেষে কোটা বঞ্চিত হজযাত্রীদের দাবিও পূরণ করা হয়েছে। নির্ধারিত কোটার বাইরে অতিরিক্ত আরও ৫ হাজার বাংলাদেশীকে এবার হজে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব সরকার। এতে এ পাঁচ হাজার যাত্রী এখন হজ করার ব্যাপারে নিশ্চিত।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর (হজ) আসাদুজ্জামান জনকণ্ঠকে বলেন, ‘সৌদি সরকার কোটা বৃদ্ধি করেছে। তবে এই সময়ের মধ্যে বাড়ি ভাড়া, বিমানের টিকেটসহ অন্যান্য প্রস্তুতি নিয়ে সৌদিতে আসতে পারলে তাহলে উনারা (সৌদি সরকার) ব্যবস্থা করবে। এ ব্যাপারে আমরা এখনও কোন চিঠিপত্র পাইনি, মৌখিকভাবে মোয়াসসাসার চেয়ারম্যান (সৌদি সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যক্তি) আমাদের জানিয়েছেন। এদিকে এ ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই কয়েকটি হ্জ এজেন্সি নতুন করে অতিরিক্ত টাকা হাতিয়ে নেয়ার প্রতারণায় মেতে উঠেছে।

এর আগে গত সোমবার বিকেলে ঢাকায় সৌদি দূতাবাসে চিঠি দিয়ে ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বাংলাদেশ থেকে নির্ধারিত কোটার বাইরে আরও তিন হাজার হজযাত্রী নেয়ার জন্য ডিও লেটার দেন। তাতে উল্লেখ করা হয়, নির্ধারিত কোটার বাইরে ৩ হাজার কোটা না দিলে হজ ব্যবস্থা নিয়ে সৃষ্ট সমস্যা জটিল রূপ নিতে পারে। অবশ্য ইতোপূর্বে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত ২৫ হাজারের কোটার জন্য সৌদি সরকারের কাছে অনুরোধ করে চিঠি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তাতে সাড়া পাওয়া যায়নি। কোটা অনুযায়ী এ বছর বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জন পবিত্র হজ পালনে সৌদি আরব যাচ্ছেন। তবে নিবন্ধন করেও ২৫ হাজারের বেশি হজযাত্রীর কোটা না থাকায় সৌদি আরব যাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। নিবন্ধনে ভুয়া নামও তালিকাভুক্ত হয় বলে অভিযোগ করা হয় কোটাবঞ্চিত হজ এজেন্সির মালিকদের পক্ষ থেকে। এরপর তারা তাদের নিবন্ধিত হজযাত্রীদের সৌদিতে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে আন্দোলনে নামে। এদিকে এ খবর ছড়িয়ে পড়ার স্েঙ্গ সঙ্গে কয়েকটি এজেন্সি ফের নতুন প্রতারণায় মেতে ওঠে। তারা উদ্বিগ্ন হ্জযাত্রীদের কাছ থেকে শেষ মুহূর্তে আবারও অতিরিক্ত টাকা হাতিয়ে নিতে তৎপর । একটি এজেন্সি সরাসরি নাম ভাঙ্গিয়ে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের মতো প্রতারণা উইলস নামের একটি এজেন্সির মালিকের পক্ষ থেকে তার কয়েক যাত্রীকে বলা হয়- সৌদি সরকার এ ঘোষণা দেয়ার আগেই বিশেষ ব্যবস্থায় ৬৬ জনের কোটা নিশ্চিত করা হয়েছে। এদের জন্য অতিরিক্ত খরচ লাগবে।

আশকোনা হজ অফিসের সামনে দাঁড়িয়ে কোটা বঞ্চিত হজ যাত্রীদের স্বজন এনামুল জনকণ্ঠকে বলেন, সৌদি সরকার সবার জন্যই অনুমোদন দিয়েছে। অথচ বিষয়টি ব্যাপক প্রচার না হওয়ায় প্রতারণায় মেতে ওঠে কয়েকটি হ্জ এজেন্সি। এরা এখন অতিরিক্ত টাকা দাবি করছে।

নির্বাচিত সংবাদ