২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চীনা নাগরিকের খোঁজে মাঠে নেমেছে র‌্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থা

  • ব্যাঙ্ককে বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী আইজান বাংলাদেশে!

স্টাফ রিপোর্টার ॥ থাইল্যান্ডের পুলিশ বলছে ব্যাঙ্ককের মন্দিরে বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী চীনের নাগরিক আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজান বাংলাদেশে! বাংলাদেশের কাছে ইন্টারপোলের মাধ্যমে তাকে ধরিয়ে দেয়ার জন্য সাহায্য চেয়েছে থাই পুলিশ। ব্যাঙ্কক বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী বাংলাদেশের কোথাও অবস্থান করছে কিনা তার সন্ধান করছে বাংলাদেশের এসবি সিআইডি, ডিবি, র‌্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থা। চীনা নাগরিকরাসহ বিদেশীরা যেসব স্থানে অবস্থান করছেন সেসব অবস্থানে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। ব্যাঙ্কক বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজান চীনের পাসপোর্টধারী নাগরিক হলেও সে মধ্যপ্রাচ্যের কোন দেশের নাগরিক কিনা সেই বিষয়টি নিয়েও প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। ব্যাঙ্কক বোমা হামলার আগে এই নামটি তার ছদ্ম নাম কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

সূত্র জানায়, থাই পুলিশ ইন্টারপোলের রেড এ্যালার্ট নোটিসে দাবি করেছে, চীনের পাসপোর্ট ব্যবহার করে আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজান বাংলাদেশে এসেছে। তবে বাংলাদেশের পুলিশের কাছে ব্যাঙ্কক হামলার মূল পরিকল্পনাকারীর বাংলাদেশে আসার বিষয়ে এখনও কোন সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই। তবে বাংলাদেশের কোথাও এই ধরনের আসামির অবস্থান থাকলে পালিয়ে বেড়ানো বা আত্মগোপন করে থাকা সম্ভবপর নয় এবং ধরা পড়বে বলে জানিয়েছেন এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

ইন্টারপোলের উদ্ধৃতি দিয়ে পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ব্যাঙ্ককে ভয়াবহ গত ১৭ আগস্ট বোমা হামলার পর দু’জনকে গ্রেফতার করে থাই পুলিশ। এর মধ্যে একজন থাইল্যান্ডের এবং অপর জন এক বিদেশী নাগরিক। এই দু’জনকে জিজ্ঞাসাবাদ, সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে চীনের পাসপোর্টধারী ব্যাংক বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজানের নাম পাওয়া যায়। গ্রেফতারকৃত দু’জন জিজ্ঞাসাবাদে ব্যাংক বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারীর নাম ও বাংলাদেশে অবস্থান করার কথা জানিয়েছে।

ব্যাঙ্ককে বোমা হামলার পর সিসি টিভি ফুটেজে দেখা বোমা হামলার ঘটনায় প্রধান সন্দেহভাজন একজনকে গ্রেফতার করে থাই পুলিশ। গত ১৭ আগস্ট বোমা বিস্ফোরণের কিছুক্ষণ আগে ওই ব্যক্তি তার পিঠের ব্যাগ বিস্ফোরণস্থলের কাছে ফেলে যান বলে সিসি টিভি ফুটেজে ধরা পড়ে। ব্যাঙ্ককের উত্তরাঞ্চলের একটি এ্যাপার্টমেন্টে অভিযান চালায় পুলিশ। সেখানে প্রবেশ করে বোমার তৈরির সম্ভাব্য বিভিন্ন সরঞ্জামের সন্ধান পাওয়া যায়। এরপর ব্যাঙ্কক বোমা হামলার ঘটনায় আটক করা হয় আরও এক বিদেশী নাগরিককে।

সাকায়ে প্রদেশের কম্বোডিয়া সীমান্ত থেকে ওই বিদেশী নাগরিককে আটক করা হয়। কম্বোডিয়া সীমান্ত থেকে বিদেশীকে আটক করার পর রাজধানী ব্যাঙ্ককে নিয়ে যাওয়া হয়। এর কয়েকদিন আগে এক ব্যক্তিকে একটি এ্যাপার্টমেন্ট থেকে গ্রেফতারের পর এই বিদেশী নাগরিককে গ্রেফতার করার পর ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে চীনের নাগরিক ও পাসপোর্টধারী আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজানের নাম পাওয়া যায় এবং সে বাংলাদেশে অবস্থান করছে বলে ইন্টারপোলকে জানায় থাই পুলিশ। থাই পুলিশ ইন্টারপোলের মাধ্যমে ব্যাংক হামলার মূল পরিকল্পনাকারী বাংলাদেশের কাছে সাহায্য চায়।

গোয়েন্দা সংস্থার এক কর্মকর্তা বলেন, থাই পুলিশ ইন্টারপোলের কাছে যে তথ্য দিয়েছে তাতে ব্যাঙ্কক বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে চায়নার নাগরিক আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজানের নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং তার অবস্থান বাংলাদেশে বলে জানানো হয়েছে। বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ইউনিট এসবি, সিআইডি, ডিবি, র‌্যাবসহ গোয়েন্দা সংস্থাকে ব্যাংক বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী চায়নার নাগরিক আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজানের অবস্থান নির্ণয় ও তার নাম উল্লেখ করে গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজান এই ধরনের নাম চীনের নাগরিকদের হয় না। সাধারণত মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশগুলোতে এই ধরনের নাম দেখা যায়। সেক্ষেত্রে ব্যাঙ্কক বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী আবু দোস্তার আবদুল রহমান ওরফে আইজান কোন ছদ্ম নাম ব্যবহার করছে কিনা সেই বিষয়টি মনে রেখেই তার হদিস করা হচ্ছে বলে জানান গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

নির্বাচিত সংবাদ