২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হোল্ডিং নং লাগানোর নামে কয়েক লাখ টাকা আত্মসাত

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ ইউনিয়ন পরিষদ থেকে এক বছর আগে লাগানো হোল্ডিং নম্বরের সঙ্গে কোন মিল না রেখে পুনরায় একটি এনজিও ঘরে ঘরে হোল্ডিং নম্বর লাগানোর নামে কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি গৌরনদী উপজেলার চাঁদশী ইউনিয়নের।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার পাগলা বাজার এলাকার ‘প্রত্যাশা উন্নয়ন ধারা সোসাইটি’ নামের একটি এনজিও সরকারের অনুমোদন ছাড়াই ইউপি চেয়ারম্যানকে ম্যানেজ করে সাধারণ জনগণকে ভুল বুঝিয়ে ভুলে ভরা হোল্ডিং নম্বর লাগিয়ে কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। চাঁদশী এলাকার বাসিন্দা কাজী রফিকুল ইসলাম রতন, শিক্ষক কাজী মেজবাহ উদ্দিন, মোঃ হানিফ সিকদারসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, গত এক বছর আগে ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে হোল্ডিং নম্বর লাগান হয়েছে। ওই সময় হোল্ডিং নম্বর লাগানো বাবদ প্রতিটি ঘর থেকে পঞ্চাশ থেকে একশ’ টাকা করে নেয়া হয়েছিল।

তারা আরও জানান, গত এক সপ্তাহ থেকে ওই এনজিও ইউপি চেয়ারম্যানকে ম্যানেজ করে পুনরায় হোল্ডিং নম্বর লাগানোর নামে প্রতিটি ঘর থেকে ৬০ টাকা থেকে ১২০ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছে। গত বছরের হোল্ডিং নম্বরের সঙ্গে এবারের হোল্ডিং নম্বরের কোন মিল নেই বলেও তারা উল্লেখ করেন। বুধবার সরেজমিনে দেখা গেছে, ইউনিয়ন পরিষদের একটি রুমে নতুন হোল্ডিং নম্বর লাগানোর জন্য আট জনের একটি দল বিভিন্ন কাজ করছেন। এ ব্যাপারে এনজিও কর্মকর্তা মাহাবুব আলমের কাছে জানতে চাইলে, তিনি এনজিওর কোন কাগজপত্র কিংবা নতুন হোল্ডিং নম্বর লাগানোর জন্য সরকারের কোন অনুমোদনের কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। তিনি বলেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের অনুমোদন নিয়ে তারা নতুন হোল্ডিং নম্বর লাগাচ্ছেন। এ ব্যাপারে চাঁদশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কৃষ্ণ কান্ত দে বলেন, একবছর পূর্বের লাগানো হোল্ডিং নম্বরটি ভুয়া। তাই এবার সংশোধন করে প্রত্যাশা উন্নয়ন ধারা সোসাইটি নামের এনজিওর মাধ্যমে নতুন হোল্ডিং নম্বর লাগানো হচ্ছে।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, ওই চক্রটি উপজেলার বাটাজোড় ও বার্থী ইউনিয়নসহ জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে হোল্ডিং নম্বর লাগানোর নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।