১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তারুণ্যের নান্দনিক টি-শার্ট

  • এইচএসএম তারিফ

প্রকৃতিতে এখন রোদ-বৃষ্টির খেলা চলছে। বছরের এ সময়ে হঠাৎ মুষলধারে বৃষ্টি ঝরতে থাকে, আবার কিছুক্ষণ পরই মাথার ওপর বেজায় রোদের উত্তাপ ছড়ায়। বৃষ্টির চেয়ে রোদের সময় বেশি থাকে। এতে ঘরের বাইরে চলাফেরা করা বেশ কষ্টসাধ্য। আর এ সময় যদি আরামদায়ক পোশাক দেহে জড়ানো না থাকে, তাহলে তো যন্ত্রণার পরিমাণ বৃদ্ধি পাবেই। তাই সময় উপযোগী পোশাক পরিধানই এ সমস্যা থেকে পরিত্রাণের একমাত্র উপায়। টি-শার্টই হতে পারে এ সময়ের সবচেয়ে আরামদায়ক পোশাক। এজন্য দেশের অধিকাংশ মানুষই ঘরে কিংবা বাইরে অধিকাংশ সময় টি-শার্ট পরিধান করছে। ফলে দেশের ফ্যাশন হাউজগুলো ক্রেতাদের রুচি ও চাহিদার কথা মাথায় রেখে শো-রুমে টি-শার্ট স্থান দিয়েছে। দিনে দিনে টি-শার্ট অধিক জনপ্রিয় হওয়ায় ডিজাইনাররা স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক, বাটিকসহ, বিভিন্ন ধরনের নক্সা ব্যবহার করেন। তারা মনের মাধুরী মিশিয়ে আকর্ষণীয় রুচিশীল বিভিন্ন ডিজাইন ফুটিয়ে তোলেন। আর এসব ডিজাইন যেন তারুণ্যর কথা বলে, সময়ের গান গায়, প্রতিবাদী কথা কয়, ইতিহাস তুলে ধরে। বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত সব কবিতা, গান, বিভিন্ন শিল্পকর্ম, আমাদের সংস্কৃতির নানা বিষয় বুকে ধারণ করার জন্য তরুণপ্রজন্ম পণ করেছে। বাংলাদেশসহ পুরো বিশ্বেই তরুণদের জনপ্রিয় পোশাকে পরিণত হয়েছে টি-শার্ট। সহনীয় দাম, আরামদায়ক পোশাক হওয়ার ফলে বর্তমান ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে। দেশীয় ফ্যাশন হাউজগুলো টি-শার্টের বর্তমান জনপ্রিয়তার জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। তাদের এ পোশাকটি নিয়ে ব্যতিক্রম ভাবনা, সৃষ্টি ও উপস্থাপনার কারণে আজ বিশাল স্থানে অবস্থান করছে। যার স্বরূপ তারা টি-শার্টকে ক্যানভাস করে তুলেছে। এ ক্যানভাসকে নিত্যরূপে উপস্থাপন করায় তা সময়ের কথা বলে। ফলে দিবস, উৎসব, সময়, চেতনাভিত্তিক ফ্যাশন আজ আমাদের নিকট নিত্য ঘটনা হয়ে উঠেছে। বর্তমান তরুণদের বুকে বাংলাদেশের পতাকা, চে-গুয়েভারা, বিখ্যাত মনীষী ও তাদের বাণী, প্রতিবাদী কথা, বিভিন্ন স্থানের ছবি, বিখ্যাত ব্যান্ড দলের ডিজাইনের টি-শার্ট পরিধান করতে ব্যাপক লক্ষ করা যায়।

বিখ্যাত ব্যক্তির ছবি : চে-গুয়েভারা, আইনস্টাইন, ফিদেল ক্যাস্ট্রো, হিটলার, শেখ মুজিবুর রহমানসহ অনেক বিখ্যাত ব্যক্তির ছবির প্রিন্ট টি-শার্টে শোভা পায়। বিশেষ করে চে-গুয়েভারার ছবির ডিজাইন তরুণদের নিকট বেশ জনপ্রিয়। তাই প্রতিমাসে ফ্যাশন হাউসগুলোতে ভিড় জমান নতুন ডিজাইনের পোশাক ক্রয় করতে। বিখ্যাত ব্যক্তির আদেশ অনুসরণ করে তাদের ছবি বুকে ধারণ করা যেন তরুণদের নিত্যদিনের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।

বরেণ্য কবি ও সাহিত্যিক : বিখ্যাত সব কবি, সাহিত্যিক, ঔপন্যাসিক, নাট্যকারগণের প্রতিকৃতি প্রিন্টসহ পোশাক পাওয়া যায়। তাদের মধ্যে রবীবন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, শেক্সপিয়র, সত্যজিৎ রায় অন্যতম। কে কোন কবির ভক্ত তা পরিধানের পোশাকটি দেখলেই বোঝা যায়। নজরুলের ছবি সংবলিত টি-শার্ট পরিহিত তরুণ অবশ্যই তার ভক্ত হিসেবেই গণ্য হবে।

ঋতুভিত্তিক টি-শার্ট : বাংলাদেশ ছয় ঋতুর দেশ। যা আমাদের জীবনযাত্রার সঙ্গে পোশাকেও বেশ প্রভাব ফেলেছে। ঋতুভিত্তিক ডিজাইন টি-শার্ট বেশ ফুটে উঠেছে। বর্ষার জন্য কদম ফুল, বৃষ্টির দৃশ্য, ছাতা ইত্যাদি বেশি প্রিন্ট হয়ে থাকে। শরতের জন্য বিভিন্ন রঙের ফুল, পাখি ইত্যাদির চিত্র দিয়ে ডিজাইন হয়। ফ্যাশন হাউসগুলো বর্ষার টি-শার্টে ‘কদম ফুল’, ‘ছাতার নৌকা’, ‘দ্য প্লেজার, ‘অন রেইন’, ‘কচুপাতার পানি’ নামক ডিজাইন নিয়ে এসেছে। এছাড়াও বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে ঋতুভিত্তিক ডিজাইনের এ পোশাক শোভা পায়।

বিখ্যাত ব্যান্ডদল ও গায়ক : বর্তমান প্রজন্মের তরুণরা বিখ্যাত সব ব্যান্ড দলের ভক্ত হয়ে থাকে। যা তাদের পোশাকেই শোভা পায়। কেউ কেউ বিখ্যাত গায়কদের ছবি সংবলিত টি-শার্ট গায়ে জড়িয়ে নেন। বিটলস, লিংকিন পার্ক, ওয়ার ফেজ, এলআরবি ব্যান্ডসহ বিখ্যাত গায়ক জিম মরিসন, জর্জ হ্যারিসন, রবি শংকর, বব মারলে, মাইকেল জ্যাকসনসহ অনেকে।

বাণী ও কথা : টি-শার্ট ক্যানভাসে বিভিন্ন বিখ্যাত ব্যক্তির বাণী, কবি-সাহিত্যিকদের কবিতা, প্রতিবাদী কথা, সচেতনতামূলক কথা খুব সযতেœ ফুটিয়ে তোলে ডিজাইনাররা। এসব পোশাক পরিধান করে সবার নিকট বাণী ও কথাগুলো পৌঁছে দেয়ার দায়িত্ব সাদরে গ্রহণ করেছে বর্তমান প্রজন্ম। বিভিন্ন সচেতনতামূলক কথা দিয়ে টি-শার্ট নিয়ে এসেছে ফ্যাশন হাউসগুলো। যার মধ্যে ‘গুম-হত্যা’, ‘মাদককে না বলুন’, ‘আইনের হাতে তোমাকে ধরা পড়তেই হবে’, ‘সভ্যতার সমস্ত কিছুই একদিন চলে যাবে মহাকালের দখলে’, ‘নো জাসটিস নো পিস’, ‘বি পজেটিভ’ নামক ডিজাইন অন্যতম।

সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য : ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি যেন মানুষ ও দেশের কথা বলে। এ দেশের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি বেশ সমৃদ্ধ। এদেশের অধিকাংশ ফ্যাশন হাউস টি-শার্ট ক্যানভাসে তা বেশ সুন্দরভাবে তুলে ধরে। ফলে আমরা নিজেরা আমাদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের সঙ্গে মিশে যাই, তেমনি বিদেশীদের নিকট তা সহজেই উপস্থাপন করে থাকি। পোশাকগুলোতে টেরাকোটা, লালবাগের কেল্লা, কার্জন হল, আহসান মঞ্জিল, বাংলাদেশের প্রাকৃতিক দৃশ্য, নৌকা, রিকশা, শৈশবের দৃশ্য প্রিন্ট করে বেশ আকর্ষণীয় করে তোলা হয়, যা দেশের সকল ফ্যাশন হাউসে শোভা পায়।

বাহারি ডিজাইনের এসকল টি-শার্ট রাজধানী ঢাকার শাহবাগে অবস্থিত আজিজ সুপার মার্কেটে পাওয়া যাবে। এ মার্কেটে রয়েছে অসংখ্য জনপ্রিয় ফ্যাশন হাউস। যার মধ্যে আরশি, ইজি, সুঁইসুতা, ঐতিহ্য, তারা মার্কা, নক্ষত্র, নববী ইত্যাদি অন্যতম। টি-শার্ট বর্তমান প্রজন্মের তরুণদের ফ্যাশন ট্রেন্ড। ডিজাইনার এ পোশাকটিকে ক্যানভাস হিসেবে ব্যবহার করে বিভিন্ন ডিজাইন বেশ সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলে। নব তরুণরা তা বক্ষে ধারণ করে সর্বক্ষণ ঘরে-বাইরে, ক্যাম্পাসে, অফিসে সব স্থানে চষে বেড়ায়।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া