২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লালমনিরহাটে হাতকড়াসহ আসামী ছিনিয়ে নিয়েছে দূর্বত্তরা

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট॥ জেলার আদিতমারী উপজেলার শঠিবাড়ি বাজারে বৃহস্পতিবার রাত ১০ টায় স্কুলের নির্মান কাজে চাঁদার দাবির অভিযোগে দায়ের করা মামলার আসামী আনিছুর রহমান (৪২) কে আটক করে পুলিশ। এই ঘটনা প্রচার হলে তাকে ছাড়িয়ে নিতে দূবৃর্ত্তরা পুলিশকে ঘেরাও করে রাখে। এক পর্যায়ে হাতকড়াসহ গ্রেফতারকৃত আসামী আনিছুর রহমান পালিয়ে যায়। রাতভোর অভিযান চালিয়ে ৫ জন দূবৃর্ত্তকে পুলিশ আটক করেছে। এরা হলেন, উত্তরা গোবধা শঠিবাড়ি গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের পৃুত্র সেকেন্দ্রার আলী(৪৫), একই গ্রামের বজলার রহমানের পুত্র ফেরদৌস আলী (৩০), উত্তরগোবধা খালকাটা গ্রামের সোলাইমান আলী ধোংদার তিন পুত্র মতিয়ার রহমান(৩০), আতিয়ার রহমান(২২) ও রেজাউল হক(১৮)।

প্রত্যক্ষদর্শী ও থানা পুলিশ সূত্রে জান যায়, জেলা শহরের পুলিশ লাইন হতে রির্জাভ পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘেরাও হয়ে থাকা পুলিশ কর্মকর্তাসহ পুলিশের দলটিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। এই সময় পুলিশের সাথে দূর্বৃত্তদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এক পর্যায়ে দূর্বৃত্তরা নিরীহ গ্রামবাসির সহায়তা পেতে দূবৃর্ত্তরা কৌশল অবলম্বন করে। গ্রামের নিরীহ মানুষকে মানব ঢাল হিসাবে ব্যবহার করতে মসজিদের মাইকে বাড়িতে ডাকাত পড়েছে বলে ঘোষনা দেয়। কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই শতশত মানুষ রাতে নিরবতা ভেঙ্গে পুলিশকে ঘিরে ফেলে। পুলিশে কৌশলগত অবস্থানে, ধয্যর্, সহিং¯্র ও রক্তক্ষয়ী ঘটনা রোধে ভূমিকা রাখে। পরে সাধারন গ্রামবাসি বিষয়টি বুঝতে পেরে আইনশৃঙখলাবাহিনীকে সহায়তা করে। পুলিশের অভিযোগ স্থানীয় সরকার দলীয় নেতা কর্মী ও স্থানীয় ইউপির জন প্রতিনিধিরা তাৎক্ষনিক সহায়তা করেনি।

শুক্রবার সকাল হতে পুলিশের উপর হামলা ও সরকারি কাজে বাঁধা দেয়ায় দূর্বৃত্তদের আটকে গ্রামটিতে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে।

এদিকে গ্রামের বাসিদের একটি সূত্র জানায়, স্কুল নির্মান কাজে ব্যবহ্নিত নির্মান সামগ্রী ও ইট অত্যন্ত নি¤œমানের ব্যবহার করা হচ্ছে। এই বিষয়টির প্রতিবাদ করায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও স্কুলের প্রধান শিক্ষক ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেছে।