১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মক্কায় নিহত ৮৭ ॥ মসজিদুল হারামে ঝড়ে ক্রেন দুর্ঘটনা ॥ চল্লিশ বাংলাদেশীসহ আহত ১৮৪

নাজিম মাহমুদ ॥ মক্কার পবিত্রতম মসজিদুল হারামে শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রচ- ঝড়ে ক্রেন ভেঙ্গে পড়ে ৮৭ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় ৪০ বাংলাদেশীসহ অন্তত ১৮৪ জন আহত হয়েছে। তবে আহতের সংখ্যা ২শ’ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে একটি বেসরকারী টিভি চ্যানেলের মক্কা প্রতিনিধি জানিয়েছেন। নিহতরা বেশিরভাগই হজযাত্রী। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতদের মধ্যে কোন বাংলাদেশী নেই বলে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহর বরাতে বিডিনিউজ জানায়। তবে নিহত এবং আহত অন্যরা কোন্ দেশের নাগরিক তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। নিহতদের মধ্যে ২৫ জন ঘটনাস্থলে এবং বাকিরা হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যায়। খবর বিবিসি, আলজাজিরা, সৌদি গেজেট, এএফপি ও দ্যা খালিজ টাইমসের।

শুক্রবার মাগরিবের নামাজের কিছুক্ষণ আগে প্রচ- ঝড়-বৃষ্টির কারণে মসজিদুল হারামের পূর্ব পাশে লাল রঙের একটি ক্রেন ছিঁড়ে পড়ে। এ সময় মসজিদটিতে কানায় কানায় মুসল্লি ভর্তি ছিল। মসজিদুল হারামের সম্প্রসারণ কাজে এ রকম বহু ক্রেন ব্যবহৃত হচ্ছে। ক্রেনটি তিন তলার সিলিংয়ের ওপর ভেঙ্গে পড়ে।

রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ জানান, নিহতদের মধ্যে কোন বাংলাদেশী থাকার খবর তাদের কাছে নেই। তবে এ ঘটনায় ৪০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজনকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। এই তিনজনের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। দুর্ঘটনার খবর সৌদি আরবের সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষ স্বীকার করেছে। তবে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে ক্রেনটি ভেঙ্গে পড়তে পারে বলে খবরে বলা হয়েছে।

ঘটনার পর বহু এ্যাম্বুলেন্স মসজিদুল হারাম অভিমুখে ছুটে যায় এবং আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যায়। ঘটনা তদন্তে মক্কার গবর্নর প্রিন্স খালিদ আল ফয়সাল তাৎক্ষণিক নির্দেশ দিয়েছেন। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ সাইটে এ ঘটনার ছবি প্রকাশিত হয়েছে। এতে বহু মানুষের মৃতদেহ ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

প্রতি বছর ৩০ থেকে ৪০ লাখ মুসলমান হজ পালন করতে বিশ্বের সর্ববৃহৎ এই মসজিদে সমবেত হন। এবার প্রায় এক লাখ বাংলাদেশীর হজে অংশ নেয়ার কথা।

আল এ্যারাবিয়া টেলিভিশনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রবল ঝড়ের কারণে ক্রেন উল্টে পড়লে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে। গত কয়েক দিন ধরে সৌদি আরবের পশ্চিমাঞ্চল দিয়ে প্রচ- বালু ঝড় বয়ে যাচ্ছে।

টুইটারে প্রকাশিত কয়েকটি ছবিতে দেখা যায়, হজের ইহরাম পরিহিত রক্তাক্ত বহু মানুষের দেহ কংক্রিটের স্তূপের মধ্যে পড়ে আছে। এতে লাল রঙের একটি বিশাল ক্রেনের অংশবিশেষও দেখা যাচ্ছে। স্থান সঙ্কুলান না হওয়ায় কিছুদিন ধরেই এ মসজিদ সম্প্রসারণের কাজ চলছিল। এই নির্মাণ কাজের জন্য বিরাট আকৃতির কয়েকটি ক্রেনও সেখানে রাখা আছে।