১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্বপ্নের ঢোলভাঙ্গা সাকোয়া সেতু আগামীকাল উদ্বোধন

স্বপ্নের ঢোলভাঙ্গা সাকোয়া সেতু আগামীকাল উদ্বোধন

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা॥ গাইবান্ধা জেলা শহরের একমাত্র গেটওয়ে হচ্ছে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ি সড়ক। আর এই সড়কের যোগাযোগের প্রধান মাধ্যমটিই ছিল ঢোলভাঙ্গার সাকোয়া খালের উপর দীর্ঘকালের ইস্পাতের তৈরী ঝুলন্ত বেইলী ব্রীজ। যা ছিল জেলাবাসির অন্যতম দুঃখ। যা অতিকষ্টে অতিক্রম করেই চরম দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে গাইবান্ধা শহরে যাতায়াত করতে হতো যানবাহন ও পথচারীদের।

তদুপরি একপথে যাতায়াতের ফলে এখানে যানবাহনের গতি কমিয়ে আনতে এবং অনেক সময় থামতেও হতো। ফলে সন্ধ্যার পর বিশেষ করে নৈশকোচগুলোতে এখানে ডাকাতির ঘটনা ঘটত প্রতিনিয়ত। কিন্তু সে অবস্থা এখন আর নেই। ২০১৪ সালে শুরু হওয়া এ সেতুটির কাজ মাত্র এক বছরেই সম্পন্ন হয়। আগামীকাল রোববার বিকেলে জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি আনুষ্ঠানিকভাবে এই সেতুটির উদ্বোধন করবেন। এই সেতুটি চালুর ফলে এলাকার মানুষ গর্বিত এবং আনন্দিত। এলাকাবাসির প্রত্যাশা যানজট নিরসনসহ এখানে ডাকাতির ঘটনা আর ঘটবেনা।

জেলার কয়েকটি গুরুত্বপূর্ন স্থানে সেতু না থাকায় বিশাল জনগোষ্ঠী নৌকা পারাপার নিয়ে নানা গাইবান্ধা নাকাইহাট সড়কে করতোয়া নদীর উপর নির্মিত বড়দহ সেতুর কাজ শুরু হবার পর গাইবান্ধাবাসিকে ১৮ বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে। নদীর গতি পরিবর্তন ও সরকার পরিবর্তনসহ নানা জটিলতায় দীর্ঘ এ সময় ঝুলে থাকে সেতুর কাজ। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বড়দহ সেতুর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এতদিন এ পথে যাতায়াতকারি প্রায় ৩০ হাজার মানুষ নৌকা পারাপারে চরম ভোগান্তি পোহাতেন।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর গাইবান্ধার নির্বাহী প্রকৌশলী মাহাবুবুল আলম খান জানান, গাইবান্ধার সাথে বিভিন্ন অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিতে স্বল্প সময়ের মাঝে আরও তিনটি সেতু নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে।