১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঈদের আগে ও পরে তিনদিন মহাসড়কে ভারি যান চলাচল বন্ধ থাকবে ॥ ও. কাদের

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা/ দাউদকান্দি, ১২ সেপ্টেম্বর ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সকল মহাসড়ক যানজটমুক্ত রাখতে ঈদের আগের ও পরের তিনদিন ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে পচনশীল পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল করতে পারবে। সেতুমন্ত্রী শনিবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দিতে ফোর লেনের শহীদনগর ও জিংলাতলী সেতু দুটির উদ্বোধনকালে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

ফোর লেন প্রকল্প বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, দ্রুতগতিতে এ প্রকল্পের কাজ চলছে, কাজ পুরোপুরি শেষ হলে এ মহাসড়কে দুর্ঘটনা আরও কমে আসবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, মহাসড়কে যাত্রীর চাপ কমাতে গার্মেন্টসগুলো একসঙ্গে ছুটি না দিয়ে পর্যায়ক্রমে ছুটি দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। এছাড়া যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য মহাসড়ক থেকে সকল বিলবোর্ড সরিয়ে নেয়ার জন্য এরই মধ্যে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ সময় ফোর লেন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান, অতিরিক্ত প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান, কুমিল্লার সহকারী পুলিস সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) মোঃ ইকবাল হোসেন হাজারীসহ সড়ক ও জনপথের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ঈদের আগে ও পরের ১০ দিন ছোট নৌযান চলাচল বন্ধ ॥ স্টাফ রিপোর্টার বরিশাল থেকে জানান, যাত্রীবাহী লঞ্চ, স্টিমার ও অত্যাধুনিক ওয়াটার ওয়েজ চলাচলের সুবিধার্থে এবারের ঈদ-উল আযহার আগের ও পরের ১০ দিন ঢাকা-বরিশাল নৌরুটে ট্রলার, বাল্কহেডসহ সবধরনের ছোট নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ।

সূত্র মতে, আগামী ২১ সেপ্টেম্বর থেকে ঈদের স্পেশাল সার্ভিস চালু হবে। স্পেশাল সার্ভিস চলাকালে এবারই প্রথম নৌপথে দুর্ঘটনা ঘটলে যাত্রীদের তাৎক্ষণিকভাবে উদ্ধারের জন্য ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের একটি ডুবুরি দল এবং অসুস্থ যাত্রীদের দ্রুত চিকিৎসার জন্য একটি মেডিক্যাল টিম নৌবন্দরে উপস্থিত থাকবে।

বরিশাল বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের উপ-পরিচালক আবুল বাশার মজুমদার জানান, ঈদের সময় অন্যান্য রুটের তিনটি লঞ্চ প্রতিবছরই স্পেশাল সার্ভিসে যুক্ত হয়ে থাকে। এছাড়া এবার গ্রিন লাইনের দুটি ডে সার্ভিস লঞ্চ থাকছে। সবমিলিয়ে এবছর আগের চেয়ে বেশি লঞ্চ যাত্রী পরিবহনে নিয়োজিত থাকবে। যাত্রীদের জন্য টার্মিনাল ছাড়াও বন্দর ভবনের সামনে প্যান্ডেলের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া