১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আনোয়ার হোসেনের দ্বিতীয় প্রয়াণ দিবস আজ

গৌতম পাণ্ডে ॥ দেশীয় চলচ্চিত্রের মুকুটহীন সম্রাটখ্যাত অভিনেতা আনোয়ার হোসেনের দ্বিতীয় প্রয়াণবার্ষিকী আজ রবিবার। ২০১৩ সালের এই দিনে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। প্রয়াত এই অভিনেতার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শুক্রবার এক মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। তাঁর স্ত্রী নাসিমা আনোয়ার বলেন, তাঁর জন্মস্থান জামালপুরের সুরুলিয়ায় শুক্রবার মিলাদ মাহফিল করিয়েছি। সবার কাছে দোয়া চাই আল্লাহ যেন তাকে বেহেস্ত নসীব করেন। আনোয়ার হোসেনের জন্ম ১৯৩১ সালের ৬ নবেম্বর জামালপুর জেলার সরুলিয়া গ্রামে। ঢাকার চলচ্চিত্রের এই প্রাণপুরুষ ৫২ বছরের অভিনয় জীবনে পাঁচ শতাধিক চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। স্কুল জীবনে ইবনে সাইকের ‘পদক্ষেপ’ নাটকে প্রথম অভিনয় করেন। স্কুলের নাটকে অভিনয় করতে গিয়েই এর প্রতি ভাললাগা থেকে ভালবাসার জন্ম নেয়। তখনকার রূপালী জগতের তারকা ছবি বিশ্বাস, কাননদেবী এদের বিভিন্ন চলচ্চিত্র দেখতে দেখতেই রূপালী জগতে আসার ইচ্ছাটি প্রবল হয়। পরিচালক মহিউদ্দিনের সান্নিধ্যে ১৯৫৮ সালে ‘তোমার আমার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় তাঁর। এতে বীরেন নামের খল নায়কের চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। অসুস্থ হওয়ার আগ পর্যন্ত ‘নবাব সিরাজদ্দৌলা’, ‘লাঠিয়াল’, ‘জীবন থেকে নেয়া’, ‘ভাত দে’সহ বেশকিছু জনপ্রিয় চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। ‘নবাব সিরাজদ্দৌলা’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে তিনি বাংলার মুকুটহীন সম্রাটে পরিণত হন। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বাচসাস, পাকিস্তানের নিগারসহ অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন গুণী এ অভিনয়শিল্পী। ‘লাঠিয়াল’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। পরে আরও দু’বার তিনি এ সম্মানে ভূষিত হন। এছাড়া ২০১১ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান আসর থেকে আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন। বাংলা চলচ্চিত্রে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ১৯৮৫ সালে একুশে পদকও পান। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ৮২ বছর বয়সে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।