২৭ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অবসরের তথ্য গোপন করে ভ্যাট আদায় ॥ সাবেক কর্মকর্তা শ্রীঘরে

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ অবসরে এসেও চাকরির সময়ের ঘুষখোর কর্মকর্তা লোভ সামলাতে না পারায় অবশেষে শ্রীঘরে যেতে হয়েছে। ঘটনাটি জেলার হিজলা উপজেলা সদরের। শনিবার দুপুরে ওই কর্মকর্তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। জানা গেছে, মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) আদায়ের নামে ইটভাঁটির ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার ঘটনায় বরিশাল কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট সার্কেল-৩ এর অবসরপ্রাপ্ত উপ-পরিদর্শক নুরুল আমিন মোল্লাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করেন ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীরা। এ ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে থানায় মামলা দায়েরের পর শনিবার দুপুরে আটককৃতকে বরিশাল সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। আদালতের বিচারক এনায়েতুল্লাহ অবসরের তথ্যগোপন রেখে অর্থ আত্মসাতের মামলায় সাবেক ওই কর্মকর্তাকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন। হিজলার ইআরভি ইটভাঁটির মালিক শহীদ মোল্লা জানান, বরিশাল কাস্টমস অফিসের সাবেক উপ-পরিদর্শক নুরুল আমিন মোল্লা অবসরের তথ্য গোপন রেখে ভ্যাটের কিস্তি বাবদ বৃহস্পতিবার তার কাছ থেকে ৬৭ হাজার ৫শ’ টাকা নিয়েছেন।

সোনালী ব্যাংকে ওই পরিমাণ টাকা জমা দেয়ার রসিদ কিছুক্ষণ পর ফেরত দিয়ে যান তিনি। কিন্তু রসিদে ঘষামাজা দেখে তার সন্দেহ হলে তিনি হিজলা সোনালী ব্যাংক কার্যালয়ে গিয়ে খোঁজ নেন। ব্যাংকের ব্যবস্থাপক সাইদুর রহমান তাকে জানান, ইআরভি ইটভাঁটির ভ্যাট বাবদ সাড়ে ৭ হাজার টাকা জমা দিয়েছেন কাস্টমস কর্মকর্তা নুরুল আমিন। খবর পেয়ে অন্যান্য ইটভাঁটির মালিকরা ব্যাংকে এসে জমা খাতায় দেখতে পান তারা প্রত্যেকে ৫০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা করে দিলেও তাদের নামে ব্যাংকে জমা হয়েছে পাঁচ থেকে সাত হাজার টাকা করে।