১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঈদ উপলক্ষে পশ্চিমাঞ্চল রেলের ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন

ঈদ উপলক্ষে পশ্চিমাঞ্চল রেলের ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন

স্টাফ রির্পোটার, ঈশ্বরদী ॥ ঈদকে সামনে রেখে পশ্চিমাঞ্চল রেলের পাকশী ও লালমনিরহাট বিভাগে নিরাপদ ও আরামদায়ক যাত্রী পরিবহনে রেল মন্ত্রনালয়ের পক্ষে জিএম খায়রুল আলমের নির্দেশনায় ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। ঈদ সেস্পাল ট্্েরন চালু, প্রায় সব কয়টি আন্তঃনগর ট্্েরনে অতিরিক্ত এসি চেয়ার কোচ সংযোজন, টিকিট কালো বাজারি প্রতিরোধে র‌্যাবসহ বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়ন ও অগ্রিম টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। পশ্চিমাঞ্চল রেলের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, পশ্চিমাঞ্চল রেলের পাকশী ও লালমনিরহাট বিভাগের বিভিন্ন রুটে বর্তমানে ৪২ টি আন্তঃনগর এক্্রপ্রেস, ৪২ টি মেইল ও ৪৯ টি লোকাল ট্্েরন চলাচল করছে। ঈদ উপলক্ষে যাত্রী সেবার মান বৃদ্ধি, নিরাপদ ও আরামদায়ক যাত্রী পরিবহনের জন্য রেল মন্ত্রনালয় ও মহাপরিচালক আমজাদ হোসেনের পক্ষে পশ্চিমাঞ্চল রেলের জিএম খায়রুল আলম ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করেছেন। তিনি পাকশী বিভাগের ব্যবস্থাপক আফজাল হোসেন ও লালমনিরহাট বিভাগের ব্যবস্থাপক নাজমুল ইসলামসহ দু’বিভাগের সকল বিভাগীয় প্রধানদের সমন্বয়ে নিরপাত্তা জোরদার, সুষ্ঠ ভাবে যাত্রী পরিবহন নিশ্চিত করনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন। ঈদের তিন দিন আগে ও ঈদের পরের সাত দিন পর্যন্ত রাজশাহী, ঈশ্বরদী, ঢাকার মধ্যে চলাচলকারী পদ্মা-সিল্ক সিটি ও ধুমকেতুসহ ৬টি আন্তঃনগর ট্্েরনে এবং রাজশাহী-ঈশ্বরদী-খুলনা এবং রাজশাহী-ঈশ্বরদী-রাজবাড়ির মধ্যে চলাচলকারী আন্তঃনগর কপোতাক্ষ-সাগরদাঁড়ি ও সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্্েরনে একটি করে অতিরিক্ত চেয়ার কোচ যোগ করা হবে। খুলনা-ঈশ্বরদী-ঢাকা ও পার্বতীপুর-ঈশ্বরদী-ঢাকা-পার্বতীপুরের মধ্যে ঈদ সেস্পাল ট্্েরন চালানো হবে। টিকিট কালো বাজারি প্রতিরোধ এবং ট্্েরনে ভ্রমনকারী যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও স্বাচ্ছন্দ্য পরিবেশ সৃষ্টিতে র‌্যাব, জিআরপি, বেঙ্গল পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সমন্বয়ে টিম গঠন করা হয়েছে। রাজশাহী-খুলনা স্টেশনে এ টিমের সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়াও ঈশ্বরদী, ঈশ্বরদী বাইপাস, বড়াল ব্রিজ, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব ও পশ্চিম, টাঙ্গাইল, জয়দেবপুর, ভেড়ামারা, পোড়াদহ, রাজবাড়ি, যশোর, খুলনা, আব্দুলপুর,রাজশাহী, নাটোর , শান্তাহার, পার্বতীপুর স্টেশন ও হলহলিয়া ব্রিজে নিরাপত্তা বাহিনী ও জিআরপি পুলিশের বিশেষ টিমের সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। ঈদ উপলক্ষে বিশেষ ব্যবস্থায় ঈশ্বরদী, রাজশাহী, খুলনা,পার্বতীপুর ও সৈয়দপুর স্টেশনে বিশেষ ব্যবস্থায় ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে এবং ২২ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকা মুখি ফিরতি ট্রেনের টিকেট বিক্রি করা হবে। এছাড়াও প্রায় সব স্টেশনেই টিকিট পাওয়া যাবে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক খায়রুল আলম জানান, নিরাপদ যাত্রী পরিবহনের জন্য সুষ্ঠ পরিবেশ সৃষ্টি, টিকিট কালো বাজারি প্রতিরোধে পশ্চিমাঞ্চল রেলের সকল বিভাগীয় প্রধানদের সাথে সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তা-কর্মচারিরা সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। ঈদের প্রস্তুতিতে ব্যাঘাত ঘটতে পারে কারো বিরুদ্ধে এমন দায়িত্বহীনতার প্রমাণ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে তাৎক্ষনিক ভাবে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।