১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নওগাঁর পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে

নওগাঁর পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ ॥ পবিত্র ঈদ উল আয্হার এখনও প্রায় ১১দিন বাঁকি। এবার ঈদে পার্শ্ববর্তী ভারত থেকে সীমান্ত পেরিয়ে কড়িডোরের মাধ্যমে গরু আসা বন্ধ থাকলেও নওগাঁর সীমান্তবর্তী সাপাহার উপজেলার বিভিন্ন পশুর হাটগুলো এখন জমে উঠেছে। ছোট-বড় নানা আকৃতির ষাঁড় ও বকনা গরুর সমারোহে হাট যেন টইটুম্বুর। গত বছর ঈদের পর থেকে শুরু করে এবারের আসন্ন কোরবানীকে সামনে রেখে উপজেলার ছোট বড় বিভিন্ন গরুর খামারীসহ বিভিন্ন লোকজন বেশী লাভের আশায় নিজ নিজ বাড়িতে তাদের পছন্দমত ষাঁড়, বকনা পালন করেছেন। সে হিসেবে এবারের ঈদে ভারত থেকে প্রকাশ্যে গরু না আসলেও কিছু গরু আসছে চোরাই পথে। ফলে এবার কোরবানীর ঈদে গরুর সংকট হবেনা বলে বিভিন্ন গরুর মালিক ও ক্রেতারা জানিয়েছেন।

শনিবার সাপাহার সদর হাটে উপজেলা সদরের জনৈক রেজাউল মাষ্টারের পোষা একটি ষাঁড়ের সর্বোচ্চ মূল্য হাঁকা হয় ২লাখ ২৫হাজার টাকা। কিন্তু ক্রেতা সাধারণকে সর্বোচ্চ ১লাখ ৫০হাজার টাকা দাম করতে দেখা গেছে। বাজার গুলোতে বড় পশুর দাম অনুযায়ী ছোট পশুর দাম একটু বেশী হলেও সাধারণ ক্রেতাকে ছোট গরুই বেশী কিনতে দেখা গেছে। ভারত থেকে পর্যাপ্ত গরু না আসায় দেশের পশুপালনকারী খামারীরা কিছুটা হলেও লাভের মুখ দেখবে বলে অনেক খামারীরা জানিয়েছেন। বর্তমানে বাজারে গরুর কমতি না থাকলেও ভারতীয় গরুর অভাবে মূল্যবৃদ্ধিতে কিছুটা হলেও প্রভাব পড়বে বলে ধারনা করা হচ্ছে।