২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইউএস ওপেনের নতুন রানী ইতালির পেনেত্তা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইউএস ওপেনের শুরু থেকেই নানা ধরণের চমক আর অঘটন দেখেছিল টেনিস বিশ্ব। কিন্তু বড় চমকটা দেখা যায় টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে। মৌসুমের শেষ গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের শেষ চারে ফেবারিট সেরেনা উইলিয়ামসকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো মেজর কোন আসরের ফাইনালে উঠার রেকর্ড গড়েন রবার্টা ভিঞ্চি। তবে সেরেনা-বধের পর বেশিদূর এগুতে পারলেন না ৩২ বছর বয়সী এই ইতালিয়ান টেনিস তারকা। ফাইনালেই হেরে গেলেন তিনি। আর তাকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ইউএস ওপেনের শিরোপা জিতলেন তারই স্বদেশী ফ্লাভিয়া পেনেত্তা।

শনিবার বছরের শেষ গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালে ফ্লাভিয়া পেনেত্তা ৭-৬ এবং ৬-২ গেমে হারান রবার্তা ভিঞ্চিকে। সেইসঙ্গে নতুন এক মাইলফলকও স্পর্শ করেন ৩৩ বছর বয়সী পেনেত্তা। টেনিসের আধুনিক যুগে সবচেয়ে বেশি বয়সী প্রমীলা খেলোয়াড় হিসেবে প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম জয়ের স্বাদ পেলেন তিনি। পেনেত্তার আগে ইতালির হয়ে গ্র্যান্ডস্লাম জিতেছিলেন ফ্রান্সেসকা শিয়াভোনি। ২০১০ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেনের শিরোপা জিতেছিলেন তিনি। এরপর পেনেত্তাই টেনিসের মেজর শিরোপা উপহার দিলেন ইতালিকে। অসাধারণ এই কীর্তির পর রোমাঞ্চিত পেনেত্তা। ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি সত্যিই খুব খুশি। আসলে আমি কখনোই ভাবতে পারিনি যে এতোদূর যাবো। কখনোই ভাবিনি ইউ্এস ওপেনের চ্যাম্পিয়ন হবো। এটা আমার ফেবারিট টুর্নামেন্ট। এখানে খেলতে সবসময়ই পছন্দ আমার।’ এবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আগেও এই ফ্লাশিং মিডোতেই সবচেয়ে ভালো ফলাফল ছিল তার। যে কারণে এটাই পেনেত্তার প্রিয় টুর্নামেন্ট। সবচেয়ে ভালোভাবে ধারাবাহিক পারফরমেন্সের রেকর্ডও তার এখানে।

টেনিসের সর্বোচ্চ টুর্নামেন্ট গ্র্যান্ডস্লাম । আর ক্যারিয়ারের শেষ মুহুর্তে সর্বোচ্চ এই অর্জনটাই নিজের করে নিতে সক্ষম হলেন তিনি। এ যেন স্বপ্ন বাস্তবে রুপান্তরিত হল তার। তাও আবার বান্ধবীর বিপক্ষে রোমাঞ্চকর জয়। ম্যাচ শেষে অবিভূত এই ইতালিয়ান তারকা বলেন, ‘এটা স্বপ্ন বাস্তবে রুপান্তরিত হওয়ার মতোই। তাছাড়া নিজের বান্ধবীর বিপক্ষে জেতাটাও অন্যরকম আনন্দের। আর আমার বয়স যখন ৯ তখন থেকেই একে অন্যকে চিনি আমরা। আমরা একত্রে অনেক সময় কাটিয়েছি।’