১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কক্সবাজারে নাম বিভ্রাটে বৃদ্ধ হাজতে

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার ॥ মিয়ানমারের এক নাগরিকের নাম আবদুর রশিদ মাঝি। বসবাস করে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ দক্ষিণপাড়ায়। পেশা সাগর পথে মালয়েশিয়ায় মানবপাচার। সাগরে মালয়েশিয়াগামী যাত্রী বোঝাই নৌকাডুবির ঘটনার পর থেকে পুলিশী গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপনে চলে গেছে ২৫ বছর বয়সের এ রোহিঙ্গা দালাল। রোহিঙ্গা আবদুর রশিদ মাঝির নামের সঙ্গে মিল থাকায় ৬১ বছর বয়সের বৃদ্ধ শাহপরীর দ্বীপের স্থায়ী বাসিন্দা রশিদ আহমদকে গ্রেফতার করে পুলিশ জেলে পাঠিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ২০১২সালের ৮ নবেম্বর কোস্টগার্ডের দায়েরকৃত মানবপাচার মামলায় গত বৃহস্পতিবার টেকনাফ থানা পুলিশ ষাটোর্ধ রশিদ আহমদকে আব্দুর রশিদ মাঝি দাবি করে গ্রেফতার করে। অথচ মৃত সিরাজুল ইসলাম ওরফে মৌলভী সিরাজ মেম্বারের পুত্র রশিদ আহমদ টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপ দক্ষিণ পাড়ার স্থানীয় বাসিন্দা। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মুরব্বিগণ জানান, বর্তমানে কক্সবাজার জেলা কারাগারে বিনা দোষে দিনযাপনকারী রশিদ আহমদ জীবনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছেন তাবলীগ জামাতে। তার পুত্র মৌলানা জামাল উদ্দিন শাহপরীর দ্বীপ দারুল ঈমান মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও স্থানীয় জামে মসজিদের খতিব।

জানা যায়, গত ২০১২ সালের ৮ নবেম্বর কোস্টগার্ড টেকনাফ থানায় মানবপাচারবিরোধী আইনে মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় আসামি করা হয় আব্দুর রশিদ মাঝিসহ ২৮ জনকে। এজাহারে আব্দুর রশিদ মাঝির বয়স উল্লেখ করা হয়েছে ২৫ বছর এবং তার পিতার নাম লেখা রয়েছে মৃত মৌলভী সিরাজুল ইসলাম ওরফে জালাল। ওই মামলায় তাকে ট্রলারের মালিক হিসেবেও উল্লেখ করেছে কোস্টগার্ড। পরবর্তীতে পুলিশী তদন্তে খামখেয়ালির কারণে রোহিঙ্গা দালাল রশিদ মাঝির স্থলে আদালতে দাখিলকৃত অভিযোগপত্রে বৃদ্ধ রশিদ আহমদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ২০১৩ সালের ২৫ অক্টোবর টেকনাফ থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রাজিব কুমার সাহা ও এসআই ইয়াছিন তদন্ত শেষে আব্দুর রশিদ মাঝি পিতা মৃত মৌলভী সিরাজুল ইসলাম ওরফে জালাল নামে চার্জশীট দাখিল করেন।

বিনা দোষে হাজতবাসকারী রশিদ আহমদের পরিবারের সদস্যদের দাবি টেকনাফ থানা পুলিশ মামলার প্রকৃত আসামি আব্দুর রশিদ মাঝিকে খুঁজে না পেয়ে ওই মামলার আসামি হিসেবে বিনা দোষে বৃদ্ধ রশিদ আহমদকে কারাগারে পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান খোন্দকার জানান, ওই এলাকায় আব্দুর রশিদ মাঝি নামে আর কোন ব্যক্তি না থাকায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।