১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দলের সুনাম নষ্ট হয় এমন কাজ করলে কাউকে ছাড় নয় ॥ নাসিম

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ বন্যাদুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জন্য সম্ভব সবকিছুই করবেন। বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কৃষিসহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি পরিবারের জন্য পুনর্বাসন কাজ শুরু করা হবে। তিনি রবিবার তার নির্বাচনী এলাকা কাজীপুরের দুর্গম চরাঞ্চল তেকানী, মনসুরনগর ও নাটুয়ারপাড়া ইউনিয়নের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে তাদের মধ্যে নগদ অর্থ ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।

সকালে কাজীপুরের তার বাসা থেকে বের হয়ে স্পিডবোটে প্রমত্তা যমুনার উত্তাল ঢেউ পেরিয়ে প্রথমে পৌঁছান তেকানী ইউনিয়নে। সেখানে দলীয় নেতাকর্মীরা তাকে উষ্ণ অভিনন্দন জানান। পরে মোহাম্মদ নাসিম বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ছাবেদ আলী, হারান সেখসহ অনেকের সঙ্গে কথা বলে তাদের ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার আশ্বাস দেন। সেখানে তাৎক্ষণিক এক পথসভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন তিনি। এতে সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হারুনার রশীদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেনÑ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক সরকার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাফিউল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমানসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। এরপর মন্ত্রী নৌকাযোগে যান মনসুরনগর ইউনিয়ন এবং নাটুয়ারপাড়া ইউনিয়নে। এসব স্থানে তিনি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন।

সন্ধ্যায় তিনি কাজীপুরের দলীয় কার্যালয়ে দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের সাংগঠনিক কাজের প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন, আমি এলাকার উন্নয়নের দায়িত্বে থাকব। আপনারা থাকবেন দলের সাংগঠনিক উন্নয়ন কাজে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এবং দলের সুনাম নষ্ট হয় এমন কাজ কেউ করলে তাকে ছাড় দেয়া হবে না। রাতে তিনি সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার রতনকান্দি ইউনিয়নের কুড়ালিয়ায় প্রায় দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত সাড়ে ৬ কিমি বিদ্যুত সঞ্চালন লাইন এবং ৫শ’ পরিবারের মধ্যে বিদ্যুত সংযোগের উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকা-ের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা দিয়ে বলেন, বিদ্যুত, সার, কৃষি, স্বাস্থ্য শিক্ষাসহ গ্রামের মানুষ এখন আধুনিক সভ্যতার সকল সুবিধা ভোগ করছেন।