২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পবিপ্রবিতে দুই গ্রুপের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষে আহত ১০

পবিপ্রবিতে দুই গ্রুপের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষে আহত ১০

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটুয়াখালী ॥ পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) আধিপত্য বিস্তার ও আঞ্চলিকতার দ্বন্ধের জের ধরে দুই গ্রুপের শিক্ষার্থীদের মধ্যে দফায় দফায় হামলা-সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কম করে হলেও ১০ জন আহত হয়েছে। রবিবার গভীর রাতে ক্যাম্পাসের এম কেরামত আলী হল ও শেরেবাংলা আবাসিক ছাত্র হলে মারামারি, হামলা-সংঘর্ষ ও রুম ভাংচুরের ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, রবিবার রাত ৯ টায় বরিশাল থেকে ছেড়ে আসা ক্যাম্পাসগামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসের সিটে বসাকে কেন্দ্র করে বরিশাল-পটুয়াখালী এলাকার ছাত্রদের মধ্যে বিরোধের জের ধরে ঘটনার সূত্রপাত ঘটে। দুই গ্রুপের মুখোমুখি সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ চতুর্থ সেমিস্টারের সাধারণ ছাত্র তানিম (২১) গুরুতর হয়। তানিমকে গুরুতর আহতাবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও অন্তত: ১০জন আহত হয়েছে। রাতেই দায়িত্বপ্রাপ্ত ভাইস-চ্যান্সেলর, প্রক্টরিয়াল বডি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনার পরপরই দুমকি থানা অফিসার ইনচার্জ আযম খান ফারুকীর নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে উপস্থিত দুমকি থানা পুলিশের কয়েক ঘন্টার চেষ্টায়ও পরিস্থিতি সামাল দিতে না পারায় এএসপি সার্কেলের নেতৃত্বে পটুয়াখালী থেকে দাঙ্গা পুলিশ রাত সোয়া ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

এদিকে আজ সোমবার সকাল ১০টা নাগাদ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ফের দুই গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার পর উভয় গ্রুপ প্রধান ফটকের সামনে ভেতের ও বাইরে জড়ো হয়ে অবস্থান নেয়। গেট দুটি বন্ধ থাকায় পথচারী ও যান চলাচলে বিঘœ ঘটে। পরে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ রবিউল হকের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের একটি টিম সেখানে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ আনিসুজ্জামান আনিস ও সাধারণ সম্পাদক রায়হান আহম্মেদ রিমন বলেন, আঞ্চলিক দ্বন্ধের জের ধরে দুই গ্রুপের সাধারণ ছাত্রদের মধ্যে সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় ও পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় বর্তমানে পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক রয়েছে।