১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শাহপরীর দ্বীপে ক্রস ড্যাম নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

শাহপরীর দ্বীপে ক্রস ড্যাম নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ শাহপরীর দ্বীপে নাফনদীর বেড়িবাঁধে সংস্কারে ক্রস ড্যাম নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এমনিতেই বেড়িবাঁধের ভাঙ্গন এবং প্রতিনিয়ত বঙ্গোপসাগরের জোয়ার-ভাটার শাহপরীর দ্বীপের ৪০ হাজার মানুষ দীর্ঘদিন ধরে পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে, তদুপুরি বেড়িবাঁধ সংস্কারে ক্রস ড্যাম নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি দ্বীপবাসীর জন্য মরার উপর খাড়ার “ঘা” হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

জানা যায়, জুলাই মাসের শেষ দিকে নোয়াপাড়া বিজিবি ক্যাম্প থেকে শাহপরীর দ্বীপ জালিয়াপাড়া পর্যন্ত নাফ নদীর বেড়িবাঁধের কিছু অংশে ভাঙ্গন দেখা দিলে পানি উন্নয়ন বোর্ড জরুরী ভিত্তিতে বাঁধ সংস্কারের জন্য একটি বাঁধ মাটি দিয়ে ও অন্যটি বালির বস্তা দিয়ে ক্রস ড্যাম নির্মাণের লক্ষ্যে দুইটি প্রকল্প বরাদ্দ দেয়। বাঁধের মূল ভাঙন অংশটি এখনও ভাঙ্গাই রয়ে গেছে, অথচ ঠিকাদার দাবি করছেন কাজ সমাপ্ত হয়েছে। বেড়িবাঁধের ভাঙা অংশটি এভাবে রয়ে গেলে বঙ্গোপসাগর ও নাফ নদীর জোয়ারে ভাঙ্গন আরও বিশালাকার ধারণ করে এ জনপদের বাসিন্দাদের ভোগান্তি বৃদ্ধি পাবে বলে জানিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।

উল্লেখ্য, ২০১২ সাল থেকে বঙ্গোপসাগরের পশ্চিম অংশের বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করে প্রধান সড়কটি বিলীন হয়ে গেলে টেকনাফের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে শাহপরীর দ্বীপের। এরপর থেকে মানুষের যোগাযোগ হয়ে ওঠে নৌযানে জোয়ার-ভাটা নির্ভর। বর্ষা মৌসুম ছাড়া বাকী শুষ্ক মৌসুমে জনসাধারণ যাতায়াতে পূর্ব দিকের বেড়িবাঁধ দিয়ে টেকনাফ আসা-যাওয়া করে থাকে। কিন্তু বর্তমানে বর্ষা মৌসুম প্রায় শেষ হলেও ঠিকাদারের গাফেলতি ও অনিয়মের কারণে এ পথ দিয়ে যাতায়াতেও অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দাদের।