১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্বেচ্ছা অবসরে গেলেন প্রাণ গোপাল দত্ত

স্বেচ্ছা অবসরে গেলেন প্রাণ গোপাল দত্ত

জনকণ্ঠ রিপোর্ট ॥ প্রায় ৪ বছর চাকরি বাকি থাকতেই স্বেচ্ছা অবসরে গেলেন অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত, প্রাক্তন উপাচার্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়। দুই মেয়াদে ৬ বছরের জন্য অত্যন্ত সাফল্যের সঙ্গে উপাচার্যের দায়িত্ব পালনের পর তিনি অবসরে গেলেন। ২৫ মার্চ ২০০৯ সালে দায়িত্ব নেয়ার পরই তিনি বলেছিলেন, তিন বছর মেয়াদ শেষে তিনি আর নিজ বিভাগে ফিরে যাবেন না। পরবর্তীতে সরকার তার তিন বছরের পারদর্শিতা ও দক্ষ পরিচালনা বিবেচনা করে আরও তিন বছরের জন্য (২০১২-২০১৫) উপাচার্য হিসেবে পুনঃনিয়োগ দেন। গত ২৪ মার্চ ২০১৫ তিনি দায়িত্বভার হস্তান্তর করে ছুটিতে গেলেন। ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ তিনি স্বেচ্ছায় অবসর নিলেন।

প্রাণ গোপাল দত্তের ৬ বছরের উপাচার্যকালে ১ মিনিটের জন্যও চতুর্থ শ্রেণী, তৃতীয় শ্রেণী, দ্বিতীয় শ্রেণী, নার্স, চিকিৎসক এবং অধ্যাপকদের ধর্মঘট বা কর্মবিরতি হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক মামলাতেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জয়ী হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়তন বৃদ্ধি পেয়েছে; শাহবাগের মতো এলাকায় ২৬ বিঘা জমি বেড়েছে। ‘এ’ ব্লকের নিচের দোকানগুলো যা বঙ্গবন্ধু শাহাদাত বরণের পর বেদখল হয়েছিল, তাও উনার সময়ে ৪ কোর্টে মামলায় জয়ী হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্পদ হিসেবে রূপান্তরিত হয়।

তিনি চাকরি জীবনে মেডিক্যাল অফিসার, সহকারী রেজিস্ট্রার, রেজিস্ট্রার, সহকারী অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক এবং অধ্যাপক হিসেবে বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজে চাকরি করেছেন। তিনি তদানীন্তন পি.জি হাসপাতালে এবং পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক, বিভাগীয় চেয়ারম্যান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার এবং সর্বশেষ উপাচার্য হিসেবে ৬ বছর কাজ করেছেন।