১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অস্কারের সঙ্গে যুক্ত হতে চাই-শুভ্র

সাজু আহমেদ ॥ মানহীন ও বৈচিত্র্যের অভাবের কারণে দেশীয় চ্যানেল থেকে বিদেশী চ্যানেলের অনুষ্ঠানের প্রতি দর্শকদের আগ্রহ বাড়ছে বই কমছে না। তা সত্ত্বেও আমাদের দেশীয় টিভি চ্যানেলগুলোতে কতিপয় তরুণ ও মেধাবী নির্মাতা বৈচিত্র্যময় এবং ব্যতিক্রমী কনসেপ্ট নির্ভর অনুষ্ঠান নির্মাণ করে আসছেন। তরুণ মেধাবী এসব অনুষ্ঠান নির্মাতাদের মধ্যে অন্যতম ওয়াহিদুল ইসলাম শুভ্র। সবচেয়ে ইউনিক প্রোগ্রাম আর ডাকসাইটে ইভেন্ট মানেই শুভ্র। প্রায় এক দশক ধরে নির্মাতা হিসেবে কাজ করছেন এনটিভিতে। তার নির্মিত কয়েকটি অনুষ্ঠান দর্শকদের হৃদয় স্পর্শ করেছে। এছাড়া বেশ কিছু মিউজিক ভিডিও বানিয়েছেন তিনি। এখন স্বপ্ন দেখছেন চলচ্চিত্র নির্মাণের। পাশাপাশি বিশ্বের সব চেয়ে বড় চলচ্চিত্র বিষয়ক পুরস্কারের অনুষ্ঠান অস্কারে কাজ করার ইচ্ছে পোষণ করেন তিনি। সেই লক্ষ্যেই প্রস্ততি নিচ্ছেন, নিজেকে তৈরি করছেন। আন্তর্জাতিক কনসেপ্টকে সামনে রেখে তার নির্দেশনায় ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় রান্নার রিয়েলিটি শো-সুপার শেফ। এছাড়া ব্যান্ড সঙ্গীতের অসাধারণ কয়েকটি দলকে নিয়ে তিনি তৈরি করেন অনুষ্ঠান ‘ওল্ড স্কুল বিটস’। এনটিভির অনুষ্ঠানটিও জনপ্রিয়তা পায়। এখন এই চ্যানেলে শুভ্রর প্রযোজনায় নিয়মিতভাবে প্রচার হচ্ছে বিশ্বমানের মিউজিক্যাল শো ‘মিউজিক জ্যাম’, ফ্যাশন, মেকওভার ও চলতি সময়ে তরুণদের ভাবনা নিয়ে ‘স্টাইল এ্যান্ড ট্রেন্ড’। টিভি অনুষ্ঠান ছাড়াও শুভ্র ৫ বছর ধরে পাবনাতে পহেলা বৈশাখের সবচেয়ে বড় ইভেন্ট আয়োজন করছেন। এনটিভির থার্টি ফার্স্ট নাইট কনসার্ট, দুবাই ও লন্ডনের কনসার্টের নির্দেশকও তিনি। মার্কস অলরাউন্ডারের গ্র্যান্ড ফিনালে পরিচালনা করে প্রশংসিত হোন এই গুণী নির্মাতা। বেশ কয়েকটি মানসম্মত কথা ও সুরের গানের মিউজিক ভিডিও তৈরি করেছেন শুভ্র। ব্যতিক্রমী কনসেপ্টের কারণে দর্শকরা ইতোমধ্যে ভিডিওগুলো গ্রহণ করেছেন। ২০১৭ সালের শেষ দিকে চলচ্চিত্র নির্মাণের ইচ্ছে আছে শুভ্রর। তবে এই কাজের আগে তিনি হলিউড বা বলিউড থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিতে চান। কাহিনী নির্ভর হৃদয় ছোঁয়া চলচ্চিত্র নির্মাণ করে পৃথিবীর সামনে বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে তুলে ধরাই তার অন্যতম লক্ষ। এ প্রসঙ্গে ওয়াহিদুল ইসলাম শুভ্র বলেন, ভাল বাজেট পেলে বাংলাদেশেও বিশ্বমানের চলচ্চিত্র তৈরি হতে পারে। তিনি জানান ইতোমধ্যে বিদেশের ইভেন্ট ফার্মে কাজ করার অফার পেয়েছেন শুভ্র। এ বিষয়ে তিনি বলেন, বিদেশে এখন আমরা শুধু বাঙালী কমিউনিটিতে কাজ করছি, এটার পাশাপাশি আন্তর্জাতিকভাবে কাজ করতে পারলেই কেবল আমাদের গান, নাটক ও চলচ্চিত্রকে বিশ্বের বাজারে ছড়িয়ে দেয়া সম্ভব। শুভ্র স্বপ্ন দেখেন অস্কারের মতো বড় ইভেন্টে সম্পৃক্ত হওয়ার। সেই স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে তিনি নিজেকে তৈরি করছেন। সেলুলয়েডের ফিতাতেই বন্দী থেকে আকাশ সমান স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে যেতে চান এই নির্মাণের বায়োস্কোপওয়ালা। ছেলেবেলায় গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়ানো বায়োস্কোপওয়ালার বায়োস্কোপ তাকে খুব টানতো। তখন থেকেই মনের ভেতর স্বপ্নের উঁকি ঝুঁকি। ইস যদি টিভিতে কাজ করতে পারতাম । তারুণ্যে এসে ঠিকই সেই অধরা স্বপ্ন হাতের মুঠোয় ধরা দেয়। ওয়াহিদুল ইসলাম শুভ্রের কণ্ঠে তাই একটাই উচ্চারণ দু’চোখে আকাশ বুকে আগুন, আরও আরও কত উড়া বাকি...।