২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এক ঘোষণায় পাল্টে গেল দৃশ্যপট ॥ ভ্যাট প্রত্যাহার

এক ঘোষণায় পাল্টে গেল দৃশ্যপট ॥ ভ্যাট প্রত্যাহার
  • প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তি জারি ;###;দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পেল নগরবাসী ;###;অবরোধ তুলে সরকারকে অভিনন্দন জানিয়ে ঘরে ফিরল শিক্ষার্থীরা;###;বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির অভিনন্দন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ টানা পাঁচ দিন ধরে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নগরজুড়ে নৈরাজ্যের পর বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিক্যাল ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ওপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের প্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী ভ্যাট প্রত্যাহারের জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে নির্দেশ দেন। এরপর ভ্যাট প্রত্যাহার নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করে অর্থ মন্ত্রণালয়। এদিকে এক ঘোষণাতেই পাল্টে গেল পরিস্থিতি। দুর্ভোগ থেকে মুক্তি মিলল নগরবাসীর। ভ্যাট প্রত্যাহারের খবর আসতেই অবরোধ তুলে আনন্দ মিছিলসহ প্রধানমন্ত্রী এবং সরকারকে অভিনন্দন জানিয়ে নিজ ক্যাম্পাস না হয় বাড়ি ফিরে গেছে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা। আজ আবার শিক্ষার্থীদের পদচারণায় সচল হয়ে উঠবে এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

এদিকে ভ্যাট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি। এক অভিনন্দন বার্তায় সমিতির নেতৃবৃন্দ ভ্যাট প্রত্যাহারের জন্য সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। এর আগে সকালে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই মন্ত্রিসভার বৈঠকের শুরুতে ভ্যাট প্রত্যাহারের জন্য অর্থমন্ত্রীকে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি নিয়ে মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত নেয়ার কিছু নেই। তবে প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে অর্থমন্ত্রীকে জানিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে ওই নির্দেশনার কথা যে কোন সময় সংবাদমাধ্যমকে জানানো হবে। তিনি আরও বলেন, এটা নিশ্চিত যে, বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা রয়েছে, যথা সময়ে তা জানিয়ে দেয়া হবে। কে জানাবেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, অর্থমন্ত্রী নিজেও জানাতে পারেন, আর যেহেতু বিষয়টি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের এখতিয়ার সেহেতু তাদের মাধ্যমেও আসতে পারে। তিনি বলেন, ভ্যাট প্রত্যাহার বিষয়টি কেবিনেটের বিষয় নয়। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গে কথা বলেছিলেন। এতে সিদ্ধান্ত কী হয়েছে সেটি অর্থমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বা অন্যভাবে অফিসিয়ালি জানানো হবে। তবে একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, রবিবার সন্ধ্যায় গণভবনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে নিয়ে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই বৈঠকেই ভ্যাট প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেন তিনি। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার সকালে ছাত্রলীগ নেতারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি জানান। বিকেলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকার কোনমতেই শিক্ষাঙ্গনে কোন প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে চায় না এবং জনজীবনে অসুবিধাও সৃষ্টি করতে চায় না। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে বিবেচনা করে সরকার ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিক্যাল কলেজ ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ওপর যে সাড়ে ৭ শতাংশ মূসক আরোপিত হয় সেটি প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোঃ নজিবুর রহমান বলেন, টিউশন ফির ওপর সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহার রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রায় বাধা হবে না। এনবিআর-এর প্রধান কার্যালয়ে জাতীয় আয়কর দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন। এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির অবস্থা এখন গতিশীল। বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ভ্যাট প্রত্যাহারের ক্ষেত্রে এনবিআরের রাজস্ব আদায়ের যে লক্ষ্যমাত্রা (১ কোটি ৭৬ লাখ ৩৭০ টাকা) তাতে বাধা সৃষ্টি করবে না। কারণ, আমাদের শিল্পপতি-ব্যবসায়ীরা এটা পূরণ করতে পারবেন। সরকারের সিদ্ধান্তের পর ভ্যাট সাড়ে ৭ শতাংশ থাকছে না জানিয়ে তিনি আরও বলেন, শিক্ষায় যেন সুন্দর পরিবেশ বজায় থাকে, সে বিষয়ে এনবিআর কাজ করছে। শিক্ষার পরিবেশ যেন নিশ্চিত থাকে, আমরা সে বিষয়ে আন্তরিক। সমাজের সামর্থ্যবান ব্যক্তিদের কাছ থেকে আমরা ভ্যাট নিয়ে তা সরকারের কোষাগারে জমা দিই। আয়করদাতারা আন্তরিক থাকলে লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছানো কোন বিষয় নয়।

আন্দোলন তুলে ফিরে গেল শিক্ষার্থীরা ॥ প্রত্যাহারের ঘোষণার পর বিজয় মিছিল করে সড়ক অবরোধ উঠিয়ে নিয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকের শুরুতেই ভ্যাট প্রত্যাহারের খবর গণমাধ্যমে প্রচার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই উল্লাসে মেতে ওঠে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তারা বলতে থাকে শিক্ষার্থীদের ‘ন্যায্য দাবি’ সরকার মেনে নিয়েছে। আমাদের অবরোধ তুলে নেয়া হলো। আগের চার দিনের মতো সোমবার সকালেও রামপুরা-বাড্ডা, গুলশান, উত্তরা ও কাকলী, ধানম-িসহ রাজধানীর প্রধান প্রধান সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেছিল শিক্ষার্থীরা। এতে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। শিক্ষার্থীরাও দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলনের পক্ষে অবস্থান নেয়। তবে ভ্যাট প্রত্যাহারের খবর শুনে অবরোধ তুলে নিয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে উৎসব শুরু করেন তারা। দুপুরেই মোবাইল ফোনে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিািটর ছাত্র সোহেল বলছিলেন, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও যে পারে, সেটা আমরা করে দেখালাম। শিক্ষায় ভ্যাট দিলে তা গ্রহণযোগ্য হয় না। তা এই আন্দোলনের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে। বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ্যাট প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে পরিশোধের ঘোষণার পর আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়ানো সংগঠন বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোঃ আসাদুজ্জমান রনো বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীকে সাধুবাদ জানাই। ভ্যাট নিয়ে শিক্ষার্থীরা বিভ্রান্তির মধ্যে পড়েছিল। তার অবসান হলো। উত্তরার বিইউএফটির শিক্ষার্থী নীরা বলছিলেন, ভ্যাট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের খবর শুনে আমরা অবরোধ তুলে নিয়েছি। ভবিষ্যতে আবার ভ্যাট আরোপ করা হলে আমরা আবার আন্দোলনে নামব। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মারুফ হোসেন বলেন, আমরা অবরোধ তুলে নিয়েছি। রাস্তা ছেড়ে ক্যাম্পাসে উৎসব করছি। দুপুর থেকেই ধানম-িতে বিজয় মিছিল করে অসংখ্য শিক্ষার্থী। শিক্ষার্থীদের একজন রাশেদুল হাসান বলছিলেন, ভ্যাট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের কথা আমরা জানতে পেরেছি। ভ্যাট প্রত্যাহারের জন্য আমরা সরকার ধন্যবাদ জানাই। একই সঙ্গে আমাদের আন্দোলনের ফলে তাদের ভোগান্তি হয়েছে সেজন্য নগরবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি। স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ (ইউডা), ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস ও স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, এশিয়া প্যাসিফিক, ইবাইস বিশ্ববিদ্যালয় ও ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা বিজয় মিছিল করেছে। খুশিতে মিষ্টি বিতরণ করতেও দেখা গেছে। সড়ক অবরোধ তুলে নেয়ার বেলা তিনটার দিকে নিউমার্কেট-মিরপুর সড়কে যান চলাচল শুরু হয় স্বাভাবিকভাবে।

ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজির (আইইউবিএটি) মেকানিক্যাল ডিপার্টমেন্টের তৃতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী রাকিব বলছিলেন, আমার বাবা কৃষক। ছোট বেলা থেকেই ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে পড়ার খুব শখ ছিল। কিন্তু চান্স পাইনি। পরবর্তীতে নিরূপায় হয়ে বাবা ২০ শতক আবাদী জমি বিক্রি করে আমাকে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করিয়েছে। আমার পড়াশোনার খরচ চালাতে আমাদের বাকি জমিগুলোও বাবাকে বিক্রি করতে হবে। সরকার যদি ভ্যাট প্রত্যাহার না করত তবে পড়াশোনার খরচ চালাতে ভিটে-মাটিও বিক্রি করতে হতো। দেশে উচ্চ শিক্ষার জন্য আমার মতো এরকম লাখ লাখ ছেলেমেয়ে রয়েছে।

দুপুরেই উত্তরা ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নেয়। এখানকার কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থী মৌটুসী বিশ্বাস জানান, ঢাকায় ভাইয়া-ভাবির বাসায় থেকে পড়াশোনা করি। ভাইয়া আমার পড়াশোনার সম্পূর্ণ খরচ চালায়। নিজের সংসারের খরচ ও আমার পড়াশোনার খরচ চালাতে ভাইয়া এমনিতেই হিমশিম খাচ্ছে। তার উপর সরকার টিউশন ফির উপর ভ্যাট আরোপের ঘোষণা যখন দিয়েছিল তখন থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত চরম দুশ্চিন্তায় ছিলাম। ভেবেছিলাম পড়াশোনা বোধহয় আমার বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু ভ্যাট প্রত্যাহার হওয়ায় এখন দুশ্চিন্তা মুক্ত হয়েছি। সকাল ১০টার দিকে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রামপুরা-মেরুল বাড্ডা এলাকায় সড়ক অবরোধ করে। ভ্যাট প্রত্যাহারের বিষয়ে সরকার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে এমন খবরে উল্লাস প্রকাশ করেছে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সেজন্য রাজপথে নিজেদের আন্দোলন প্রত্যাহার করে ক্লাসে ফিরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তারা। দুপুরে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সংলগ্ন একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা এই ঘোষণা দেয়।

সাড়ে ১০টার পর ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মহাখালীর ওয়্যারলেস গেটে তাদের ক্যাম্পাসের সামনের সড়কে অবস্থান নেয়। এদিকে ঢাকার কাকলী মোড়ে ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলনরত বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় তিতুমীর কলেজের একদল ছাত্র। বেলা সাড়ে ১১টার পর বনানীর কাকলী মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। বাসে ‘হামলা’ করায় আন্দোলনকারীদের ওপর ‘পাল্টা হামলা’ হয়েছে বলে তিতুমীরের ছাত্রদের দাবি।

বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির কৃতজ্ঞতা ॥ ভ্যাট প্রত্যাহারের খবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি। সংগঠনটির সভাপতি শেখ কবির হোসেন, সাধারন সম্পাদক মোঃ বেনজীর আহমেদ এক অভিনন্দন বার্তায় সিদ্ধান্তকে সময়োপযোগী ও মানানসই বলে অভিহিত করে সংগঠনটির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তারা বলেন, সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে উচ্চশিক্ষা প্রসারিত হবে বলে আমরা মনে করি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষা প্রসারে যে অনবদ্য ভূমিকা রেখেছেন তাঁর সঙ্গে সরকারের এই সিদ্ধান্ত খুবই মানানসই হয়েছে। এতে উচ্চশিক্ষার আরও বিকাশের পথ সুগম হলো।

ভ্যাটের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ ॥ এদিকে ভ্যাট প্রত্যাহারের আহ্বানে সোমবার বেলা ১১টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করে ছাত্রলীগ। এ সময় ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, আমরা বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর থেকে সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারে আহ্বান জানাই। শুরু থেকেই আমরা ভ্যাটবিরোধী ছিলাম। কারণ শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকার। তাই শিক্ষায় কোন ভ্যাট থাকতে পারে না। আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে আহ্বান জানাই, অবিলম্বে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর থেকে ভ্যাট প্রত্যাহার করে আন্দোলনকারীদের ক্লাসরুমে ফিরিয়ে নেয়ার ব্যবস্থা করুন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন, ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি আবিদ আল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স প্রমুখ।

এদিকে ভ্যাটবিরোধী আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের বিজয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছে ছাত্রদল। সোমবার সংগঠনটির দফতর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকরামুল হাসান এ অভিনন্দন জানান।

সফল ভ্যাটবিরোধী আন্দোলনের জন্য শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন। সোমবার দুপুরে সংগঠনের সভাপতি সৈকত মল্লিক ও সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম সোহেল এক বিবৃতিতে এ অভিনন্দন জানান। বিবৃতিতে তারা বলেন, রাষ্ট্রীয় গুলিকে চ্যালেঞ্জ করে বিজয় ছিনিয়ে আনায় আন্দোলনকারীদের অভিনন্দন জানাই। পাশাপাশি ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে ছাত্র ফেডারেশনের লাগাতার ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হলো। তারা বলেন, ছাত্রসমাজ রাষ্ট্রীয় গুলিকে চ্যালেঞ্জ করে রাস্তায় নেমে বিজয় ছিনিয়ে এনেছে। আমরা সরকারকে হুঁশিয়ারি করে বলতে চাই শিক্ষা ধ্বংসের যে কোন তৎপরতা ছাত্রসমাজ এভাবেই প্রতিহত করবে।

গণসংহতি আন্দোলনের সংবাদ সম্মেলন ॥ ভ্যাটবিরোধী আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে ভ্যাট প্রত্যাহারে বাধ্য করায় শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়েছে গণসংহতি আন্দোলন। সোমবার রাজধানীর হাতিরপুলে আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ অভিনন্দন জানান। এ সময় তিনি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর সরকারের নজরদারি বাড়ানোর প্রতি গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, ছাত্রলীগ সরকারের সিদ্ধান্ত জানার পরেই সংবাদ সম্মেলন করে ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে। তারা মূলত সরকারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে।

ঢাকার বাইরেও আন্দোলন প্রত্যাহার ॥ চট্টগ্রামে ভ্যাট প্রত্যাহারের ঘোষণায় অবরোধ তুলে নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। সরকারের এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে আনন্দ মিছিলও করেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর ওয়াসা মোড়ে মাইকে ভ্যাট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়া হলে উল্লাস প্রকাশ করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এ সময় ‘জিতছে কারা? শিক্ষার্থীরা’, ‘বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের টিউশন ফি’র লাগাম টেনে ধরুন’, ‘শিক্ষায় ভ্যাট নয়, ভর্তুকি চাই’ সেøাাগান দিতে থাকে শিক্ষার্থীরা।

এ ছাড়া শিক্ষা ও শিক্ষার্থীবান্ধব সিদ্ধান্তের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান তারা। সরকারের এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে আনন্দ মিছিলও করেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি ওয়াসার মোড় থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জিইসি মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর শিক্ষার্থী সুরিনা হক বলেন, ‘শিক্ষাবান্ধব সিদ্ধান্ত নিতে একটু বিলম্ব হলেও শিক্ষার্থীদের বেতনের ওপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহার করায় সরকারকে ধন্যবাদ। শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবির আন্দোলনের জয় হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে নগরীতে আনন্দ মিছিল করেছে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। মিছিলটি নগরীর মেহেদীবাগ সাউদার্ন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে শুরু হয়ে গোলপাহাড় প্রবর্তক মোড় প্রদক্ষিণ করে ২ নম্বর গেট মোড়ে এসে শেষ হয়। মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রনেতা আনসার উল্লাহ সৌরভের সভাপতিত্বে ও ছাত্রনেতা মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নূরুল আজিম রনি। বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর, বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রনেতা ইফতেখার উদ্দিন সজিব, মাহমুদুল হাসান, আসলাম পারভেজ, নিশান আলম, মিজু আহমেদ, দেলোয়ার হোসেন রাজু, মাহীরান দিপু, জুয়েল হাসান অনন্য, সমিক বড়ুয়া ইমন, আকমল হোসেন, এহসান শাহ, তানভীর আহমেদ, আরমান হোসেন।

ভ্যাট প্রত্যাহারের খবরে ঢাকার মতো সিলেটের বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন থেকে সরে গেছেন। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সুরমা পয়েন্টে সিলেট লিডিং ইউনিভার্সিটি ও শহীদ মিনারে মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেন। দুপুর একটার দিকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ভ্যাট প্রত্যাহার ও ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে রাস্তা অবরোধ করে থাকা শিক্ষার্থীদের সরে যাওয়ার খবরে সিলেটের শিক্ষার্থীরাও উল্লাসে মেতে ওঠেন। পরে ধীরে ধীরে তারা অবস্থান ছেড়ে যান।