১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কে নতুন আস্থার সৃষ্টি হয়েছে ॥ পঙ্কজ শরণ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সীমান্ত সমস্যা সমাধান ও জলসীমা চিহ্নিতকরণ বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কে নতুন আস্থার সৃষ্টি করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ। বিদ্যমান পানি সমস্যা সমাধানে দুই দেশকে একসঙ্গে কাজ করার ওপরও জোর দেন তিনি। সোমবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল এ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের (বিআইআইএসএস) নিজস্ব অডিটোরিয়ামে আয়োজিত বাংলাদেশ-ভারত সাম্প্রতিক সম্পর্কের অগ্রগতি ও প্রত্যাশা শীর্ষক বক্তৃতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ কথা বলেন ভারতীয় হাইকমিশনার।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ড. আইনুন নিশাত, মেজর জেনারেল মোহাম্মদ ফেরদৌস মিয়া, পিএসসি (অব), মেজর জেনারেল জীবন কানাই দাস (অব), রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্দার এ নিকোলেভ, রাষ্ট্রদূত হুমাযুন কামাল, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব তৌহিদ হোসেন এবং সাবেক আইজিপি নুরুল হুদা উপস্থিত ছিলেন। কান্ট্রি লেকচার সিরিজের অংশ হিসেবে অনুষ্ঠানে উন্মুক্ত আলোচনা পর্বে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তারাসহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, উর্ধতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক বিষয়ের ওপর মতামত দেন। বিআইআইএসএসের চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত মুন্সী ফয়েজ আহমদ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পঙ্কজ শরণ বাংলাদেশ-ভারতের সাম্প্রতিক সম্পর্কের অগ্রগতিকে মাইল ফলক হিসেবে চিহ্নিত করে এ সম্পর্ককে আরও গতিশীল করতে ভারতের সদিচ্ছার কথা জানান। তিনি বলেন, সীমান্ত সমস্যা সমাধান ও জলসীমা চিহ্নিত করণ দুই দেশের মধ্যে নতুন আস্থার সৃষ্টি করেছে। যা দুই দেশের মধ্যে নিরাপত্তা সহযোগিতা, উন্নয়ন সহযোগিতা, এনার্জি সহযোগিতা ও কানেকটিভিটিতে অগ্রগতি সাধন করছে। তিনি দুই দেশের মধ্যে ভৌগোলিক নৈকট্যের কারণে অর্থনৈতিক সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সে সময় তিনি বিবিআইএন কানেকটিভিটির কথা উল্লেখ করে বলেন, এ প্রক্রিয়ায় নতুন সহযোগিতার দ্বার উন্মুক্ত হয়েছে। হাইকমিশনার ব্লু-ইকোনমি, সায়েন্স এ্যান্ড টেকনোলজি ও শিক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধির কথা বলেন। এছাড়া তিনি পানি সমস্যা সমাধানে দুই দেশকে একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন।

সূচনা বক্তব্যে বিআইআইএসএসের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল এ কে এম আব্দুর রহমান বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক খুবই সহযোগিতাপূর্ণ অবস্থায় পৌঁছেছে। বিগত এক দশকে সম্পাদিত চুক্তিগুলো দুই দেশের মধ্যে নতুন সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করেছে। ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সহযোগিতা দুই দেশকে উন্নয়নের একই ধারায় নিয়ে এসেছে।

বিআইআইএসএসের চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত মুন্সী ফয়েজ আহমদ বলেন, দুই দেশের স্বার্থের অমীমাংসিত বিষয়গুলো সমাধান হওয়া প্রয়োজন। ইতোমধ্যে দুই দেশের মধ্যে সম্পাদিত চুক্তিগুলো তাদের সম্পর্ককে একটি অগ্রগতির ধারায় নিয়ে গেছে। যা ভবিষ্যতে অব্যাহত থাকবে।

নির্বাচিত সংবাদ