১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বৃষ্টি শুরু হলেই ছুটির ঘণ্টা

নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী (বরগুনা), ১৫ সেপ্টেম্বর ॥ বৃষ্টি শুরু হলেই ছুটির ঘণ্টা বাজে আমতলী উপজেলার আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ভায়লাবুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এতে ব্যাহত হচ্ছে পাঠদান। দীর্ঘ ৫ বছর ধরে এ অবস্থায় চললেও কেউ এর খবর রাখেনি।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলার আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ভায়লাবুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এ বিদ্যালয়ে ১৫৩ জন ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে ভালভাবেই চলছিল। ২০০৭ সালের ঘূর্ণিঝড় সিডরে বিদ্যালয়ের ভবন ক্ষতিগস্ত হয়। ২০১৩ সালে ঘূর্ণিঝড় মহাসেনে বিদ্যালয়টির ভবন বিধ্বস্ত হয়েছে। ওই সময় বিদ্যালয়ের মূল ভবনে ছাদের চালা উড়ে যায়। এক দিকে হেলে পড়ে। ভবনের প্রাচীরে ফাটল ধরে একাংশ ভেঙ্গে যায়। ভবনের এ বেহাল দশার কারণে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শ্রেণীকক্ষে পাঠদানে ব্যাহত হচ্ছে। অতি বৃষ্টিতে পাঠদান বন্ধ করে বিদ্যালয় ছুটি দিতে হয়। আবার রোধে রাস্তার পাশে গাছের ছায়ায় পাঠদান করাতে হয়। এভাবেই চলতে থাকে দীর্ঘ পাঁচটি বছর। গত বছর স্থানীয় লোকের সহযোগিতায় চাঁদা তুলে বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ ভবনের একটি অংশ সংস্কার করে দুটি কক্ষে পাঠদান করাচ্ছে।

কিন্তু তাতে শিক্ষার্থীদের সংকুলান হচ্ছে না। বিদ্যালয়ের জীর্ণ দশা জানিয়ে প্রধান শিক্ষক আবদুল মন্নান ইতোমধ্যে বহুবার উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে মৌখিক ও লিখিতভাবে জানিয়েছে কিন্তু কোন প্রতিকার হয়নি।

বর্তমানে বিদ্যালয়ের অবস্থা অনেকটা নাজুক। বৃষ্টি শুরু হলেই ছুটির ঘণ্টা বেজে যায়। বৃষ্টির পানিতে শিক্ষার্থীদের বইখাতা ভিজে যায়। বাধ্য হয়ে শিক্ষকরা স্কুল ছুটি দেয়।

বরিশালে স্ত্রী হত্যা মামলায় ঘাতক স্বামীর ফাঁসি

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ জেলার মুলাদী উপজেলার বহুল আলোচিত মিলি বেগম হত্যা মামলায় স্বামী সোহরাব আকনের (৪০) ফাঁসি এবং পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানার রায় ঘোষণা করেছেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করেন বিচারক মোঃ আদীব আলী।

মৃত্যুদ-প্রাপ্ত সোহরাব আকন মুলাদী উপজেলার তায়কা গ্রামের লাল মিয়া আকনের পুত্র। রায় ঘোষণাকালে দ-িত সোহবার আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর খান ওয়াহিদ উদ্দিন আহম্মেদ মামলার নথির বরাত দিয়ে জানান, একই গ্রামের মিলি বেগমকে ভালবেসে বিয়ে করেন সোহরাব আকন।

২০০৭ সালের ২০ অক্টোবর চিকিৎসা করানোর কথা বলে মিলিকে ঢাকায় নেয়া হয়। পরে ঢাকা থেকে বরিশালে আসার পথে ২২ অক্টোবর লঞ্চ থেকে মেঘনা নদীতে ফেলে মিলিকে হত্যা করে তার পাষ- স্বামী সোহরাব।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি ॥ প্রতিবাদ করায় মারপিট

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ যশোরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে কটূক্তির প্রতিবাদ করায় এক আওয়ামী লীগ নেতার ভাইকে মারপিট করেছে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় সোমবার রাতে কোতোয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। আসামি করা হয়েছে একই পরিবারের ৬ জনকে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাতে যশোর সদর উপজেলার ইছালি ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামে। পুলিশ মাসুদ রানা নামে যুবককে আটক করেছে। সে কামারগন্না গ্রামের আনসার আলীর ছেলে।

আসামিরা হলো, কামারগন্না গ্রামের আনসার আলী ও তার চার ছেলে হারুন-আর-রশিদ, মাসুম, আব্দুল্লাহ, জাভেদ আলী ও মৃত সাবেদ আলীর ছেলে মনিরুল ইসলাম। মামলাটি করেছেন ইছালি ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কামাল হোসেন। এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, আসামিরা সন্ত্রাসী প্রকৃতির। তারা বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তারা বিভিন্ন সময় চায়ের দোকান এবং বিভিন্ন স্থানে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে নানা কটূক্তি করে বেড়ায়। তাদের নিষেধ করেন বাদী কামালের ভাই জাফর। কিন্তু তারা না শুনে উল্টো তাকে মারার পরিকল্পনা করে।

নির্বাচিত সংবাদ