১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মহানবীকে নিয়ে কটূক্তি করায় ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশ হাইকোর্টের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতি মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা হাইকোর্টের জারি করা রুলের ওপর আদেশ বৃহস্পতিবার। অন্যদিকে মহানবী হযরত মুহম্মদ (সা.)কে নিয়ে কটূক্তি করে ফেসবুকে আসা ধর্মকারী নামের ওয়েবসাইট লিঙ্ক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চগুলো এ আদেশ প্রদান করেছেন।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতি মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা হাইকোর্টের জারি করা রুলের ওপর আদেশ বৃহস্পতিবার। বিচারপতি মোঃ নুরুজ্জামান ও বিচারপতি আব্দুর রবের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এই মামলাটির রায়ের জন্য ১৭ তারিখের কার্যতালিকায় রয়েছে। সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান দুদকের পক্ষে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। তার আগে গত ৩০ আগস্ট মামলার শুনানি শেষে যে কোন দিন রায়ের জন্য রেখেছিল সংশ্লিষ্ট আদালত।

তিনি বলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতিসংক্রান্ত মামলা বিষয়ে বেগম খালেদা জিয়ার আবেদনের প্রেক্ষিতে জারি করা রুলের ওপর উভয়পক্ষের শুনানি শেষে বিষয়টি সিএভি ছিল। এই আবেদনের ওপর রায়ের জন্য ১৭ সেপ্টেম্বরের তালিকায় রয়েছে। গত ৩০ আগস্ট আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী এজে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন, ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী ও এহসানুর রহমান প্রমুখ। অপরদিকে ছিলেন দুদকের পক্ষে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

তার আগে খালেদা জিয়া মামলাটি বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন ২০০৮ সালে। দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি উত্তোলন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম এবং রাষ্ট্রের ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা ক্ষতি ও আত্মসাত করার অভিযোগে ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। ওই বছর ৫ অক্টোবর ১৬ জনের বিরুদ্ধেই অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদক। এক আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০০৮ সালের ১৬ অক্টোবর খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এ মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন হাইকোর্ট। মামলাটি কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চেয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতি রুলও জারি করা হয়। বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতিসংক্রান্ত মামলায় চারদলীয় জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ওই সরকারের ১০ মন্ত্রীসহ ১৬ জনকে আসামি করা হয়।

ফেসবুক ও লিঙ্ক বন্ধের নির্দেশ ॥

মহানবী হযরত মুহম্মদ (সা.)কে নিয়ে কটূক্তি করে ফেসবুকে আসা ধর্মকারী নামের ওয়েবসাইট লিঙ্ক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী ৩০ দিনের মধ্যে বিটিআরসিসহ সংশ্লিষ্টদের এই নির্দেশ বাস্তবায়ন করার জন্য বলা হয়েছে। একই সঙ্গে রুল জারি করেছেন আদালত। রুলে হযরত মুহম্মদ(সা.)কে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ কনটেন্ট থাকা ইন্টারনেটের দুটি পেজ কেন বন্ধের নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার প্রাথমিক শুনানি করে হাইকোর্টের বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলামের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

রিট আবেদনে স্বরাষ্ট্র সচিব, তথ্য সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, র‌্যাবের মহাপরিচালক, বিটিআরসির চেয়ারম্যান, ঢাকা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার, ঢাকা মেট্র্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ও শাহজাহানপুর থানার ওসিকে বিবাদী করা হয়। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন বঙ্গবন্ধু মহিলা আইনজীবী পরিষদের সুপ্রীমকোর্ট শাখার সম্পাদক এ্যাডভোকেট সৈয়দা সাবিনা আহমেদ মলি। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেসুর রহমান।