১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সালমারা পাকিস্তান গেলে আফ্রিদিরা বিপিএল খেলবেন

  • পাকিদের শর্ত

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন খুব আশা নিয়ে বলেছিলেন, বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেটারদের পাকিস্তানে খেলতে যাওয়া, না যাওয়া নিয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল-টি২০) পাকিস্তান ক্রিকেটারদের আশা না আশায় কোন সমস্যা হবে না। কিন্তু সেই সমস্যাই সামনে চলে আসছে। পিটিআইয়ের দেয়া খবর অনুযায়ী, সালমা খাতুনরা পাকিস্তানে খেলতে গেলেই শহীদ আফ্রিদিরা বিপিএলে খেলতে আসবেন। নয় তো আসবেন না।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) না কি বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেটারদের পাকিস্তান সফর নিয়ে পর্যালোচনা করছে। বিসিবি কি জানায় তার অপেক্ষায় আছে। যদি চলতি মাস কিংবা অক্টোবরের মধ্যে পাকিস্তানে খেলতে না যায় সালমারা, তাহলে বিপিএলে পাকিস্তান ক্রিকেটারদের খেলার অনুমতি দেবে না পিসিবি। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে পিটিআই জানায়, কয়েকদিন আগে বাংলাদেশ থেকে পর্যবেক্ষক দল করাচী ও লাহোর পরিদর্শন করে গেছে। এখন বোর্ড পরিস্থিতি ভালভাবে পর্যালোচনা করছে। বিপিএল শুরু হবে ২৫ নবেম্বর। শেষ হবে ২৫ ডিসেম্বর। এ সময়ের আগে বিশেষ করে সেপ্টেম্বর অথবা অক্টোবরের মধ্যে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেটারদের পাকিস্তানে খেলতে যাওয়ার কথা। যদি তা না হয়, তাহলে বিপিএলে খেলার জন্য পাকিস্তান ক্রিকেটারদের বোর্ড থেকে ছাড়পত্র নাও দেয়া হতে পারে।

শনিবার এক অনুষ্ঠানে পাকিস্তান ক্রিকেটারদের বিপিএলে খেলা নিয়ে বিসিবি সভাপতির কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দেয়া হয়েছিল। বিসিবি প্রধান বলেছিলেন, ‘এখন তাদের (পিসিবি) সঙ্গে সম্পর্ক যেটা আছে, এটা কে আগে খারাপ করবে সেটাই দেখার বিষয়। আমরাও চাই না, ওরাও চায় না। আমার মনে হয় না এ ধরনের কিছু হবে। এখন তো ওদের দল এসে খেলে গেল। আমার ধারণা বিপিএলে পাকিস্তান খেলোয়াড় আসা নিয়ে কোন সমস্যা হবে না।’ অনেকে মনে করছেন বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল সেদেশে সফর না করলে বিপিএলের জন্য ক্রিকেটার ছাড়বে না পাকিস্তান। এমন সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছিলেন পাপন, ‘এই সফরের ওপর বিপিএলে পাকিস্তানী ক্রিকেটারদের খেলা বা না খেলার বিষয়টি নির্ভর করছে না।’ কিন্তু সেই সম্ভাবনাই বোধ হয় এবার এসে জুটছে।

বিপিএলের সর্বশেষ আসরে পাকিস্তানী ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণ নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি। ২০১২ সালে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের পাকিস্তানে খেলতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শেষপর্যন্ত মামলার জন্য যাওয়া হয়নি। বিষয়টি ভালভাবে নেয়নি পাকিস্তান। এ জন্য আফ্রিদিরা বিপিএলে খেলতে পিসিবির ছাড়পত্র পাননি। দুই বছর বন্ধ থাকার পর আসছে নবেম্বরে আবারও শুরু হতে চলেছে বিপিএল। পিসিবির সঙ্গে এখন বিসিবির সম্পর্ক ভাল। কিন্তু আবারও একটি সফর নিয়ে বিপিএলে পাকিস্তান ক্রিকেটারদের খেলা না খেলার বিষয়টি সামনে চলে আসছে। ২০১৩ সালে দ্বিতীয় বিপিএলের আসর শুরুর একদিন আগে পিসিবি থেকে জানানো হয় পাকিস্তান ক্রিকেটারদের ছাড়পত্র দেয়া হবে না। তখন বিসিবি সভাপতি ছিলেন পাপনই। তিনি বলেছিলেন, ‘আমাদের ওপর একটা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়া হয়েছে। সেটা আমরা গ্রহণ করেছি। পাকিস্তানের ক্রিকেটার ছাড়াই বিপিএল চলবে।’ এবারও একই রকম পরিস্থিতি ঘটতে পারে। এমন আভাসই মিলছে।