২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট, গরু ব্যবসায়ী ও যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট, গরু ব্যবসায়ী ও যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, মির্জাপুর, টাঙ্গাইল ॥ ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে দুইটি স্থানে সড়ক দুর্ঘটনার কারণে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। মঙ্গলবার রাত তিনটার দিকে মহাসড়কের টাঙ্গাইলের রাবনা বাইপাস এলাকায় বাস ও লরি এবং মির্জাপুর উপজেলার জামুর্কী নামক স্থানে মাল ভর্তি দুটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষের পর যান চলাচল বন্ধ হয়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।‍

এই যানজট এক পর্যায় বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু পূর্বপার থেকে গাজিপুরের কালিয়াকৈর চন্দ্রা পর্যন্ত প্রায় ৬০ কিলোমিটার এলাকায় বিস্তৃতি ঘটে। যানজট বুধবার বেলা বারটা পর্যন্ত প্রায় ৯ ঘন্টা স্থায়ী হয়। এতে উত্তরবঙ্গ থেকে আসা শত শত ট্রাক ভর্তি গরু ব্যবসায়ী এবং সাধারণ যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।

রাত চারটার দিকে দুর্ঘটনা কবলিত বাস, লরি ও ট্রাক মহাসড়ক থেকে পুলিশ সরিয়ে নেয়ার পর থেমে থেমে যান চলাচল শুরু হয়। সকাল বারটা পর্যন্ত এই যানজট স্থায়ী থাকে। বারটার পর থেকে মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

টাঙ্গাইলগামী আরাফাত এন্টারপ্রাইজের ট্রাক চালক (বগুড়া-ট- ০২-০২৩২) মুস্তাকিন ও (ঢাকা-মেট্রো-১৪-৬৩৭৪) চালক লিপু মিয়া বলেন, রাত তিনটার দিকে মহাসড়কের চন্দ্রা এলাকায় যানজটে পড়েন। ছয় ঘন্টা পর সকাল নয়টার দিকে মির্জাপুর বাইপাস পোস্টকামুরী চড়পাড়া এলাকা পর্যন্ত আসতে পেরেছেন বলে জানান।

মির্জাপুর বাইপাস বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কর্তব্যরত ট্রাফিক সার্জেন্ট মো. জামাল, গোড়াই হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মোজাম্মেল হোসেন ও মির্জাপুর থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) বিশ্বজিৎ বলেন, মঙ্গলবার রাত তিনটার দিকে মহাসড়কের রাবনা বাইপাস এলাকায় যাত্রীবাহী বাস ও একটি লরি এবং জামুর্কী এলাকায় দুটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। রাতেই দুর্ঘটনা কবলিত বাস, লরি ও ট্রাক দুটি সরিয়ে নেয়া হলেও যানবাহনের চালকরা গাড়ির মধ্যে ঘুমিয়ে পড়ায় যানজট তীব্র আকার ধারন করে। বেলা বারটার পর থেকে মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।