১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিয়মিত কর পরিশোধ করলে ’৪১ সালের আগেই উন্নত দেশ

  • আয়কর মেলার উদ্বোধনীতে শিল্পমন্ত্রী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, নাগরিকরা নিয়মিত কর পরিশোধ করলে ২০২১ সালের আগেই মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালের আগেই উন্নত ও সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে পরিণত হবে বাংলাদেশ। এজন্য নাগরিকদের স্বপ্রণোদিত হয়ে কর দিতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। বুধবার রাজধানীর বেইলী রোডের অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আয়োজিত সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আয়কর মেলা ২০১৫’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় রাজস্ব বোডের সদস্য (কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা) মোঃ আব্দুর রাজ্জাক। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন এনবিআরের চেয়ারম্যান মোঃ নজিবুর রহমান।

অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী বলেন, প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় জনসংখ্যার অনুপাতে করদাতার সংখ্যা অনেক কম। কর প্রদানে জটিলতাই এর কারণ। করদাতারা আয়কর রিটার্ন পূরণ ও দাখিল করাকে ঝামেলাপূর্ণ মনে করেন। তারপরও ইতোমধ্যে বাংলাদেশ নিম্নমধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। তিনি বলেন, করযোগ্য অনেকেই কর দিচ্ছেন না। এখন কর দিতে আগ্রহী হলেও বিগত দিনের কর ফাঁকি উদঘাটনের ভয়ে তারা পিছিয়ে যাচ্ছেন। এই ভয়ভীতি দূর করতে পারলে দেশের করদাতার সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যাবে।

আমির হোসেন আমু বলেন, নাগরিকরা তাদের আয়কর পরিশোধ করলে সরকারের রাজস্ব আয় বাড়বে। সরকারের রাজস্ব আয় বাড়লে দেশে অবকাঠামোসহ বিভিন্ন খাতে অধিক পরিমাণে উন্নয়ন কর্মসূচী বাস্তবায়ন সম্ভব হবে। এতে রাষ্ট্রের নাগরিকরাই উন্নত ও সমৃদ্ধ জীবন যাপনের সুযোগ পাবে। বিদেশী ঋণের পরিবর্তে নিজস্ব অর্থায়নে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করলে সরকারের বিপুল পরিমাণ অর্থ সাশ্রয় হয় বলে তিনি মন্তব্য করেন।

করদাতার মধ্যে নেতিবাচক বিষয় দূর করার জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে উল্লেখ করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এনবিআরের পদক্ষেপের মধ্যে আয়কর মেলা অন্যতম। এই মেলা করবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। এতে করদাতারা কর পরিশোধসহ আইন ও বিধি সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা পাবেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের সাহসী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পাশাপাশি পায়রা সমুদ্রবন্দর নির্মাণ কাজও এগিয়ে চলছে। এসব প্রকল্প সম্পন্ন হলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের আদলে বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে অনেকদূর এগিয়ে যাবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এনবিআরের চেয়ারম্যান মোঃ নজিবুর রহমান বলেন, ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে সেরা করদাতাদের সিআইপি মর্যাদা দেয়ার দাবি উঠেছে। এ বিষয়ে শিগগিরই নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

মেলায় আগত হোসনে আরা বেগম জানালেন, সচিবালয় থেকে অফিসের ফাঁকে এসে রিটার্ন দাখিল করে যাচ্ছেন। রিটার্ন ফরম আগেই পূরণ করা ছিল। লাইনেও তেমন ভিড় ছিল না। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান চালাকালে রিটার্ন জমা না নেয়ায় প্রায় ঘণ্টারও বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে। তবে, জমা নেয়া শুরু করার মাত্র ৫-৬ মিনিটে তার কাজ শেষ হয়েছে। তিনি জানালেন, উপহার হিসেবে সুন্দর একটি চটের ব্যাগ আর আয়কর রিটার্ন দাখিলের নির্দেশিকা দেয়া হয়েছে।

ধানম-ি থেকে আসা রবিউল ইসলাম জানালেন, বড় ভাই ব্যবসা করেন। তার রিটার্ন দাখিল করতে এসেছেন। ব্যাংক বুথ খুঁজে পেতে স্বেচ্ছাসেবকদের সহযোগিতা পেয়েছেন। সবাই বেশ আন্তরিকতার সঙ্গে সেবা দিচ্ছে বলেও জানান তিনি।