২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নির্ধারিত সময়ে টাকা বুঝে পায়নি সিলেট মেট্রো সিটির গ্রাহকরা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ নির্ধারিত সময়ে নিজেদের টাকা বুঝে পায়নি সিলেট মেট্রো সিটি সিকিউরিটিজ হাউসের গ্রাহকরা। আর এই কারণেই হাউসটির পরিচালকদের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের শেয়ার ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে জানা গেছে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ২৫নং স্টেকহোল্ডার এই হাউসটির বিভিন্ন ব্রাঞ্চের ম্যানেজাররা অর্র্থ ফেরত দিতে ইচ্ছুক। কিন্তু পরিচালকদের কেউ কেউ দেশের বাইরে থাকার কারণে অর্থ ফেরত দিতে কিছুটা দেরি হচ্ছে। গ্রাহকদের অভিযোগ, টাকা না দিতেই ইচ্ছাকৃত এই হয়রানি করা হচ্ছে।

এদিকে, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) অর্থ ফেরত দেয়ার সময় পুনরায় বাড়িয়েছে। আগামী ৯ অক্টোবরের মধ্যে গ্রাহকদের পাওনা পরিশোধ করে বিএসইসিকে অবহিত করতে হাউসটিকে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। এই সংক্রান্ত একটি চিঠি সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠানোও হয়েছে।

এর আগে গত ২৫ মার্চ কমিশনের ৫৪০তম সভায় সিলেট মেট্রো সিকিউরিটিজ লিমিটেডের গ্রাহকগণের সিকিউরিটিজ ও অর্থের দাবি নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়া হয়। সে নির্দেশনায় বলা হয়েছিল, গ্রাহকদের শেয়ার ও অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) দেয়া প্রতিবেদন অনুযায়ী সিলেট মেট্রো তার গ্রাহকদের শেয়ার ও অর্থ ফেরত দিতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই সার্বিক দিক বিবেচনা করে গ্রাহকদের দাবিসমূহ ৩০ জুন ২০১৫ তারিখের মধ্যে নিষ্পত্তির জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আর এ বিষয়টি তদারকি করার জন্য সিএসই ও সেন্ট্রাল ডিপজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডকে (সিডিবিএল) নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। কিন্তু ৩০ জুনের মধ্যে গ্রাহকদের পাওনা পরিশোধ না করায় পুনরায় সময় বাড়িয়েছে বিএসইসি। এক্ষেত্রে আগামী ৯ অক্টোবর পর্যন্ত সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, এর আগে সিলেট মেট্রো সিটি কর্তৃক তার গ্রাহকদের প্রাপ্যতা অনুযায়ী অনতিবিলম্বে নিশ্চিত করার জন্য সিএসইকে গত বছরের ২ নবেম্বর নির্দেশ প্রদান করে বিএসইসি। আর ৩০ নবেম্বর ২০১৪ ও ২৭ জানুয়ারি ২০১৫-তে সিএসইর দাখিল করা প্রতিবেদনে দেখা যায়, গ্রাহকদের শেয়ার ও অর্থ কমিশনের নির্দেশ মোতাবেক ফেরত দিতে ব্যর্থ হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

নির্বাচিত সংবাদ