১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পরাজয়ে বিবর্ণ দুই ম্যানচেস্টার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে শুরুটা জঘন্য হয়েছে দুই ইংলিশ পরাশক্তি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও ম্যানচেস্টার সিটির। মঙ্গলবার ২০১৫-১৬ মৌসুমের উদ্বোধনী রাতে দুই ম্যানচেস্টারই হারের তেতো স্বাদ পেয়েছে। দু’দলই হেরেছে ২-১ গোলের ব্যবধানে। এর ফলে এক মৌসুম পর ম্যানইউর ফেরা যেমন সুখকর হলো না, তেমনি ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে ভাল করার স্বপ্নটা ফিকে হলো ম্যানসিটির।

চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ‘ডি’ গ্রুপের ম্যাচে নিজেদের মাঠ ম্যানচেস্টারের ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের মুখোমুখি হয় স্বাগতিক ম্যানসিটি। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর জিওর্জিও চিয়েল্লিনির আত্মঘাতী গোলে এগিয়েও গিয়েছিল ইংলিশ ক্লাবটি। কিন্তু পরবর্তীতে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় আসরের বর্তমান রানার্সআপরা। মারিও মানদুকিচ ও আলভারো মোরাটার লক্ষ্যভেদে ২-১ গোলের অসাধারণ জয় নিয়ে দেশে ফিরেছে জুভেন্টাস। গ্রুপের আরেক ম্যাচে স্প্যানিশ ক্লাব সেভিয়া ৩-০ গোলে পরাজিত করে জার্মান ক্লাব বরুসিয়া মনশেনগ্লাডব্যাচকে। ‘বি’ গ্রুপে ডাচ্ ক্লাব পিএসভি আইন্দহোভেনের বিপক্ষে এগিয়ে যেয়েও ২-১ গোলে হারতে হয়েছে সফরকারী ম্যানইউকে। মেম্পিপ ডিপাইয়ের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল রেড ডেভিলসরা। কিন্তু হেক্টর মোরেনো ও লুসিয়ানোর গোলে দারুণ জয় দিয়ে মিশন শুরু করে পিএসভি। গ্রুপের আরেক ম্যাচে জার্মান ক্লাব উলফলসবার্গ ১-০ গোলে পরাজিত করে রাশিয়ার সিএসকেএ মস্কোকে। ইতালিয়ান সিরি এ লীগে জঘন্য শুরু হয়েছে টানা চারবারের চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের। তবে ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে ঠিকই নিজেদের জাত চিনিয়েছে ম্যাসিমিলিয়ানো এ্যালেগ্রির দল। বল দখলের লড়াইয়ে পিছিয়ে থাকলেও কৌশলী ফুটবল খেলে জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন বুফন, পোগবা, এভরারা। ইতিহাদে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত স্বাগতিক সিটি। ইয়াইয়া তোরের বাড়ানো বল ধরে বাঁ দিক দিয়ে ঢুকে শটও নিয়েছিলেন রাহিম স্টার্লিং। কিন্তু তার দুর্বল শট রুখে দেন জুভেন্টাস গোলরক্ষক ও অধিনায়ক জিয়ানলুইজ বুফন। প্রথমার্ধে তুলনামূলক প্রাধান্য বিস্তার করে খেলে আরও কয়েকটি সুযোগ সৃষ্টি করে ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির দল। কিন্তু কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন তোরে, সিলভারা। বিরতির পর প্রতিপক্ষের ভুল আর সৌভাগ্যের ছোঁয়ায় এগিয়ে যায় সিটি। ৫৭ মিনিটে বাঁ দিক থেকে ডেভিড সিলভার কর্নার বিপদমুক্ত করতে গিয়ে হেড করে নিজেদের জালেই বল জড়ান জুভেন্টাসের জিওর্জিও চিয়েচিল্লি। এরপর কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করার পর ৭০ মিনিটে মানদুকিচের গোলে সমতা ফেরায় জুভেন্টাস। গোগবার উঁচু করে বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আলতো টোকায় গোল করেন ক্রোয়েশিয়ান তারকা। সমতায় ফেরার পর অনেকটাই গুছিয়ে ওঠা জুভেন্টাস অষ্টম মিনিটে এগিয়ে যায়। ডি বক্সের বাইরে থেকে স্প্যানিশ স্ট্রাইকার মোরাটার বাঁকানো শটে বল পোস্টের ভেতরের কানায় লেগে জালে জড়ায়। এই গোলেই দারুণ জয় নিয়ে দেশে ফেরে জুভেন্টাস। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এক মৌসুম পর চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ফেরার শুরুটা মোটেও সুখকর হয়নি। এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত হার দিয়ে ইউরোপ সেরার এবারের আসর শুরু করেছে তিনবারের চ্যাম্পিয়নরা। আইন্দহোভেনের মাঠ ফিলিপস এস্টাডিওনে পুরো ম্যাচেই স্বাগতিকদের উপর চড়াও হয়ে খেলে ম্যানইউ। কিন্তু ভাগ্যের ফেরে হারতে হয়েছে তাদের। ম্যাচে অধিনায়ক ওয়েন রুনির অনুপস্থিতি হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে লুইস ভ্যান গালের দল। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের ম্যাচ প্রথমার্ধের শেষদিকে জমে উঠে। অনেক আক্রমণ থেকে ব্যর্থ হওয়ার পর ৪১ মিনিটে আর হতাশ হতে হয়নি ইংল্যান্ডের সফলতম দলটিকে। ডালে ব্লিন্ডের লম্বা পাস থেকে পাওয়া বল প্রতিপক্ষের এক ডিফেন্ডারকে ছিটকে দিয়ে বাঁ পায়ের শটে জালে জড়িয়ে দলকে আনন্দে ভাসান ডিপাই। সমতা ফেরাতে বেশি সময় নেয়নি আইন্দহোভেন। প্রথমার্ধের ইনজুরি সময়ে কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে হেডে গোল করেন হেক্টর। বিরতি পর শুরুতেই এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ৫৭ মিনিটে ম্যাক্সি লেসটেইনের ক্রসে নিখুঁত হেডে ডেভিড ডি গিয়াকে পরাস্ত করে পিএসভিকে এগিয়ে নেন লুসিয়ানো নারসিং। বাকি সময়ে গোলের দেখা পায়নি সফরকারীরা।