২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেকসই উন্নয়নে সরকারকে ৭ সুপারিশ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে সরকারের প্রতি ৭টি সুপারিশ তুলে ধরেছেন সিভিল সোসাইটির প্রতিনিধিরা। এসডিজি’র ৫ নীতিতে ১৭ লক্ষ্য অর্জনে কাজ, অর্থের যোগান, জনসম্পৃক্ততা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সুপারিশ করেন তারা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির গোলটেবিল মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব সুপারিশ করা হয়।

‘অ্যাকশন ২০১৫ বাংলাদেশ কোয়ালিশন’ নামের ব্যানারে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য বাস্তবায়নে সিভিল সোসাইটির প্রত্যাশা ও সুপারিশ’ শীর্ষক এ সম্মেলনের আয়োজন করে ছয়টি সংস্থা। সংস্থাগুলো হলো, ব্রিট, হেল্পএজ ইন্টারন্যাশনাল, সেভ দ্য চিলড্রেন, সিরাক, স্টেপস টুওয়ার্ডস ডেভেলপমেন্ট ও ওয়ার্ল্ড ভিশন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়ন শুধু সরকার প্রধানদের পক্ষে সম্ভব হবে না, যদি জনমানুষের সম্পৃক্ততা না থাকে। এজন্য এসডিজি বাস্তবায়নে সরকারের প্রতি ৭টি সুপারিশ করেন তারা।

মানুষ, পৃথিবী, উন্নতি, শান্তি এবং অংশীদারিত্ব এই ৫ নীতি বাস্তবায়নে ১৭ লক্ষ্য গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, এসব লক্ষ্য নির্ধারণে এক ট্রিলিয়ন টাকা প্রয়োজন। এই অর্থের যোগানে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর সঙ্গে দর কষাকষি করতে হবে। শুধু ভিন্ন দেশ থেকে নয়, দেশের বিভিন্ন বেসরকারি খাত থেকেও অর্থের যোগানে চেষ্টা চালাতে সরকারের কাছে সুপারিশ করেন আয়োজকরা।

দারিদ্র্য-ক্ষুধাহীনতা, সুস্বাস্থ্য, মানসম্মত শিক্ষা, জেন্ডার সমতা, পরিষ্কার পানি ও পয়নিষ্কাশন, আধুনিক শক্তি, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, নতুনত্ব ও অবকাঠামো, অসমতা, টেকসই নগরায়ন এবং সমাজ, দায়িত্ব বণ্টন, গ্রহসুরক্ষা, পানির নিচের ও উপরের জীবন, শান্তি ও নিরাপত্তা, লক্ষ্যার্জনে অংশীদারিত্ব- মোট ১৭টি লক্ষ্য আবারও জানিয়ে দেন সিভিল সোসাইটির প্রতিনিধিরা। এক্ষেত্রে সরকারকে সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- স্টেপস টুওয়ার্ডসের নির্বাহী পরিচালক রঞ্জন কর্মকার, ওয়ার্ল্ডভিশন বাংলাদেশের অ্যাডভোকেসি ডিরেক্টর চন্দন জেড গোমেজ, সাবরিনা নুপুরসহ আয়োজক সংস্থাগুলোর প্রতিনিধিরা। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চন্দন জেড গোমেজ।