১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কে সবার নজর কাড়লেন ফিওইয়া

বুধবার সিএনএনের প্রাইম টাইম রিপাবলিকান প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কে ধনকুবের ব্যবসায়ীর অপটু আচরণে কার্লি ফিওইয়া ও জেব বুশ বিতর্কানুষ্ঠানের সূচনায় দর্শকদের মনোযোগ কেড়ে নিতে সক্ষম হন। তাদের সক্ষমতায় ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সন্ধ্যাজুড়ে আত্মরক্ষামূলক অস্বাভাবিক অবস্থানে দেখা যায়। খবর সিএনএন ও ওয়াশিংটন পোস্টের।

বিতর্কের মঞ্চে ফিওইয়ার উপস্থিতি ছিল নজরকাড়া। তিনি গম্ভীর চাহনি দিয়ে নিজের উপস্থিতির জানান দেন। ট্রাম্পের সম্পর্কে ফিওইয়া গত মাসের একটি বিতর্কানুষ্ঠানে অংশগ্রহণের পর বুধবারের বিতর্কে উপস্থিত হয়ে সরাসরি অর্থশালী আবাসন ব্যবসায়ীর মুখোমুখি হন। সম্প্রতি তার চেহারা সম্পর্কে ট্রাম্পের মন্তব্যের ওপর তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি গম্ভীর হয়ে যান। ট্রাম্প সে সময় মন্তব্য করেছিলেন ‘ওই চেহারার দিকে তাকিয়ে দেখুন কেউ কি তাকে ভোট দেবে?’

ফিওইয়া বিতর্ক চলাকালে পাল্টা বাক্যবাণ ছোড়েন- ‘আমার মনে হয় এ দেশের সকল নারী ট্রাম্প যা বলেছেন তা পরিষ্কারভাবে শুনেছেন। নিজের অদ্ভুত আচরণে বিব্রত ট্রাম্প এবার তার প্রশংসা করে বলেন, ‘আমি মনে করি তিনি সুন্দর মুখাবয়বের অধিকারী, আমি মনে করি তিনি একজন সুন্দরী মহিলা।’ ফিওইয়া ট্রাম্পের মন্তব্যে কান না দিয়ে গম্ভীর ভাব করে সামনে তাকিয়ে থাকেন। বিতর্কের বাক্য বিনিময় ২০০৭-এর ডেমোক্র্যাটিক বিতর্কের কথা স্মরণ করিয়ে দেয় যখন বারাক ওবামা হিলারি ক্লিনটন সম্পর্কে বলেছিলেন- তিনি ‘বেশ পছন্দসই’। প্রচারাভিযানের ওই মুহূর্তে ট্রাম্পকে দৃশ্যত অপ্রতিভ দেখাচ্ছিল। এ অবস্থা রিপাবলিকান প্রতিদ্বন্দ্বিতার গতিশীলতার মাত্রাকেই তুলে ধরে, যা সাবেক সিলিকন ভ্যালির প্রধান নির্বাহী ফিওইয়ার রূপান্তর ঘটিয়েছে।

ঘড়ি বানিয়ে গ্রেফতার কিশোরকে ওবামার আমন্ত্রণ

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে ১৪ বছর বয়সী এক মুসলিম কিশোরকে স্কুলে বোমা আনার ভুল অভিযোগে পুলিশ গ্রেফতার করার পর তাকে হোয়াইট হাউসে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

আহমেদ মোহাম্মদ নামের ওই কিশোর একটি ঘড়ি তৈরি করে স্কুলে আনলে শিক্ষকরা সেটি দেখে বোমা বলে সন্দেহ করেন।

এক টুইটার বার্তায় ওবামা বলেন, আহমেদ, তুমি কি তোমার ঘড়িটি হোয়াইট হাউসে আনতে চাও? আমাদের উচিত আহমেদের মতো আরও বেশি শিশু-কিশোরদের বিজ্ঞানের প্রতি আগ্রহী করে গড়ে তোলা। আর এভাবেই আমাদের দেশ এগিয়ে যাবে। টেক্সাস সময় সোমবার সকালে নিজের বানানো একটি ডিজিটাল ঘড়ি নিয়ে স্কুলে উপস্থিত হয় আহমেদ। তবে তার শিক্ষকরা ওই যন্ত্রটি দেখার পর উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে এবং সেটিকে একটি বোমা মনে করে পুলিশে খবর দেয়। এর কিছুক্ষণ পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাতে হাতকড়া পরিয়ে পুলিশ তাকে স্কুল থেকে নিয়ে যায়। যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম অধিকার নিয়ে কাজ করে এমন একটি সংগঠন বলছে, আহমেদ মুসলিম হবার কারণেই তার সঙ্গে এমন আচরণ করা হয়েছে। -বিবিসি