২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মুমিনুলদের ভাগ্যে কি ঘটবে?

মুমিনুলদের ভাগ্যে কি ঘটবে?
  • বাংলাদেশ-ভারত ‘এ’ দলের সিরিজের দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচ আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ‘এ’ দলের তিন ম্যাচের আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে সিরিজে টিকে থাকার তিনটি পথই খোলা আছে, সেটি হয় জয়, না হয় টাই, না হয় ম্যাচ পরিত্যক্ত হতে হবে। এ রেজাল্টগুলোর বিপরীত কোন কিছু ঘটলেই সিরিজ থেকে ছিটকে পড়বে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। প্রথম ম্যাচে ৯৬ রানে জেতায় তখন ভারত ‘এ’ দল এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতে নেবে। আজ ব্যাঙ্গালুরুতে বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৯টায় দ্বিতীয় ম্যাচটি শুরু হবে। ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য যেমন সিরিজে টিকে থাকার, ভারতের জন্য সিরিজ জিতে নেয়ার ম্যাচ হয়ে গেছে।

প্রথম ম্যাচে যে অবস্থা দেখা গেছে, তাতে বাংলাদেশ ‘এ’ দল যে অনেক পিছিয়ে রয়েছে তা বোঝাই গেছে। স্বাগতিকরা যেখানে ৩২২ রান করেছে, সেখানে বাংলাদেশ ‘এ’ দল ২২৬ রানেই গুটিয়ে গেছে। ৭৫ রান করা লিটন কুমার দাস ও ৫২ রান করা নাসির হোসেন ছাড়া আর কেউই ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি। অথচ ভারতের ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালের (৫৬) পর সঞ্জু স্যামসন (৭৩), গুরকিরাত সিং (৬৫) ও ঋষি ধাওয়ান (৫৬*) অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন।

বাংলাদেশ বোলাররা অবশ্য শুরুতে একটু চাপ প্রয়োগ করতে পেরেছেন। কিন্তু তা আর শেষপর্যন্ত ধরে রাখা যায়নি। সেই তুলনায় ডানহাতি স্পিনার গুরকিরাত সিং দুর্দান্ত বোলিং করে একাই ৫ উইকেট তুলে নেন।

এমন অবস্থায় বাংলাদেশ ‘এ’ দলের কোচ হয়ে ভারতে যাওয়া হিথ স্ট্রিক মনে করছেন, ভারত ‘এ’ দলকে কোন চাপ দেয়া যায়নি। শুরুতে ৭৬ রানে ৪ উইকেট নেয়া গেছে। কিন্তু শেষে গিয়ে ৭ উইকেটে ৩২২ রানের বিশাল স্কোর গড়ে ফেলে স্বাগতিকরা। ভারত ‘এ’ দল নিজেদের সামলে নিতে পেরেছে। কিন্তু আগে ব্যাট করে এত বেশি রান স্কোরবোর্ডে জমা করেছে যে বাংলাদেশ ‘এ’ দল ৮৭ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর লিটন-নাসির মিলে দলের হাল ধরলেও কাজ হয়নি।

মুমিনুল হক, সৌম্য সরকার, এনামুল হক বিজয়, সাব্বির রহমান রুম্মনদের বাজে ব্যাটিং দেখে খুবই হতাশ কোচ হিথ স্ট্রিক। শুরুতে ভিসা জটিলতায় পরে ঠিকই শেষপর্যন্ত ক্রিকেটাররা যেদিন ভারত গেছেন একইদিন ভারতে যাওয়া বাংলাদেশ ‘এ’ দলের কোচ স্ট্রিক সিরিজ শুরুর আগে বলেছিলেন, ‘ভারত সফর সব সময়ই চ্যালেঞ্জ। আমরা দেখেছি ভারতীয় উইকেট সব সময়ই নি®প্রাণ ব্যাটিংবান্ধব উইকেট। বিশেষ করে আমাদের বোলারদের জন্য এটি চ্যালেঞ্জিং সিরিজ হবে। আশা করি, এটা টি২০ বিশ্বকাপের জন্যও ভাল প্রস্তুতি হবে। দলে অনেক তরুণ আছে, যারা খুব বেশি ক্রিকেট খেলেনি, ওরা যত খেলবে ভবিষ্যতের জন্য তত ভাল হবে। আমরা খুবই ভারসাম্যপূর্ণ দল। রোমাঞ্চকর সব ক্রিকেটার আছে দলে। তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার ভাল সমন্বয় আছে। আমি খুবই রোমাঞ্চিত। তবে বেশ বিরতির পর খেলতে নামছে ওরা। মাঠে নামতে মুখিয়ে থাকবে।’

সঙ্গে যোগ করেছিলেন, ‘অনেকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে জায়গার জন্য নিজের দাবি তুলে ধরতে চায়। এটা তাই শুধু দল হিসেবে জয়ের চেষ্টাই নয়, জাতীয় দলে জায়গা পাওয়ার লড়াইও। জয়টাও আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আশা করি, জয়ের চেষ্টার পাশাপাশি ছেলেরা সেই আত্মবিশ্বাসটাও অস্ট্রেলিয়া সিরিজে বয়ে নিয়ে যাবে। তবে শুধু অনুশীলনের জন্য যাচ্ছি না আমরা। কঠিন, লড়াকু ক্রিকেট খেলব। আমরা সব ম্যাচ জিততে চাই। এটাই আমাদের লক্ষ্য। কোন দলই হারতে পছন্দ করে না। আমরা ব্যতিক্রম নই। জয়ের চেয়ে মধুর অনুভূতি আর নেই। বিশেষ করে, ভারতের মতো বড় দেশে, যেখানে অনেক ক্রিকেট খেলা হয়, সেখানে ওদের বিপক্ষে জিততে পারা হবে দারুণ অর্জন। সেই সুযোগটা আমরা নিতে চাই।’ কিন্তু বাংলাদেশ ‘এ’ দল প্রথম ম্যাচেই হেরে গেছে।

হতাশ কোচ স্ট্রিক বলেছেন, ‘আমার মনে হয় প্রথম পাঁচ ওভার খারাপ হওয়ার পর আমরা ভাল করেছি। কয়েকটি উইকেট নিয়েছি। কিন্তু শেষপর্যন্ত চাপে রাখতে পারিনি। লিটন-নাসির জুটিটি দুর্দান্ত হয়েছে। যদি উইকেটে টিকে থাকা যায় ভাল ব্যাটিংও করা যায়, তা বুঝিয়ে দিয়েছেন নাসির-লিটন।’

সেই শিক্ষা নিয়ে এখন আজ দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা ভাল কিছু দিতে পারলেই হয়। না হলেই বিপদ! সিরিজ জয়ের স্বপ্ন নিয়ে গিয়ে টানা দুই ম্যাচ হেরে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই একদিনের আনঅফিসিয়াল সিরিজ হার হয়ে যাবে।

নির্বাচিত সংবাদ