২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শুরুতেই বেহাল ইংলিশরা!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বফুটবলে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ অন্যতম। কিন্তু দুর্ভাগ্য তাদের। ইউরোপিয়ান ফুটবলের সেরা আসর উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগে একেবারেই নিষ্প্রভ তারা। এ জন্য একটি তথ্যই বড় প্রমাণ। গত এক দশকে মাত্র দুইবার চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছে তারা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের দলগুলোর মধ্যে সর্বশেষ এই আসরের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে চেলসি। ২০১১-১২ মৌসুমে ইউরোপ সেরার মুকুট পরেছিল তারা। সেবার জার্মান জায়ান্ট বেয়ার্ন মিউনিখকে পরাজিত করে অসামান্য এই কীর্তি গড়েছিল। এর আগে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স লীগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সেবার ব্লুজদের হারিয়েই শিরোপা-উল্লাস করেছিল রেড ডেভিলরা।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের সবচেয়ে সফল ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। অথচ সেই দলটিই ইউরোপ সেরার মুকুট পরেছিল প্রায় এক দশক আগে। ক্লাবটির কিংবদন্তি কোচ স্যার এ্যালেক্স ফার্গুসনের যুগে। ২০১৩ সালে ম্যানইউর কোচের দায়িত্ব থেকে অবসর নেন তিনি। এরপর থেকেই যেন বদলে যায় ক্লাবটির ভাগ্য। ২০১৩-১৪ মৌসুমটা একেবারেই বাজেভাবে কেটেছে তাদের। সেই দুর্দশা কাটেনি নতুন মৌসুমেও। মঙ্গলবার আইন্দহোফেনে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে গিয়েছিল তারা। সেখানে পিএসভির বিপক্ষে প্রথমে গোল করে এগিয়ে গিয়েছিল ঠিকই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে লজ্জাজনকভাবেই হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে তারা। আর এই ম্যাচেই ম্যানইউর ডিফেন্ডার লুক শ’য়ের পা ভেঙ্গে যায়। যা লুইস ভ্যান গালের হতাশা আরও বাড়িয়ে দেয়। ব্যর্থতার কারণে গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ খেলতে পারেনি তারা। এবার তাই নতুন উদ্দীপনা নিয়েই ফিরেছিল রেড ডেভিলরা। কিন্তু প্রথম ম্যাচে তুলনামূলকভাবে খর্ব শক্তির দলের কাছে হেরে দুঃস্বপ্নের মতো করেই ফিরল ভ্যান গালের শিষ্যরা। চ্যাম্পিয়ন্স লীগে এবার ‘বি’ গ্রুপে পড়েছে ম্যানইউ। এই গ্রুপের বাকি দলগুলো হলো ওল্ফসবার্গ ও সিএসকেএ মস্কো। তাই প্রথম ম্যাচে হারলেও গ্রুপ পর্বের বাধা পেরুনোটা খুবই সহজ তাদের জন্য। তবে তাদের নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটির জন্য দুর্ভাগ্য। কেননা ইউনাইটেডের মতো তারাও হার দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের যাত্রা শুরু করেছে। তবে পরাজয়টা শক্তিশালী জুভেন্টাসের বিপক্ষে। তাই আক্ষেপটা তাদের কম। কিন্তু এই গ্রুপেই আছে স্পেনের শক্তিশালী দল সেভিয়া। যে কারণে গ্রুপ পর্বের বাধা পেরুনোটাই সিটির জন্য বেশ চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করছেন ফুটবলবোদ্ধারা।

ম্যানচেস্টারের দুই ক্লাবের মতো হার দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে যাত্রা শুরু করেছে আর্সেনালও। গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই ক্রোয়েশিয়ার ক্লাব দিনামো জাগরেবের কাছে ২-১ গোলে হেরেছে গানাররা। এই পরাজয়ের ফলে ‘এফ’ গ্রুপের তিনে অবস্থান করছে আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল। শীর্ষে আছে জার্মান জায়ান্ট বেয়ার্ন মিউনিখ। এই গ্রুপের শক্তিশালী দল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে বেয়ার্ন আর আর্সেনাল। তাই প্রথম ম্যাচে পরাজয় দেখলেও গ্রুপ পর্বের বাধা পেরুনোর সুযোগ আছে তাদের সামনে। তবে পারবে কী সেই বাধা পেরুতে? ভক্ত-অনুরাগীদের সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের চার দলের মধ্যে এবার চেলসিই শুধু ব্যতিক্রম। প্রিমিয়ার লীগের বাকি তিন দল হারলেও তাদের শুরুটা হয়েছে বড় জয়ে। বুধবার নিজেদের প্রথম ম্যাচেই তারা ৪-০ গোলে রীতিমতো উড়িয়েই দিয়েছে ইসরাইলের ক্লাব মাকাবি তেল আবিবকে। লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চেলসি। গত মৌসুমে ম্যানচেস্টার সিটিকে হটিয়ে শিরোপা জয়ের স্বাদ পায় জোশে মরিনহোর দল। কিন্তু এবার লীগে একেবারেই নিষ্প্রভ তারা। লীগে পাঁচ ম্যাচে মাত্র একটিতে জয় পাওয়া চেলসি চ্যাম্পিয়নস লীগের শুরুটা দুর্দান্তভাবেই করল। ‘জি’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইসরাইলের ক্লাব মাকাবি তেল আবিবকে দাঁড়াতেই দেয়নি মরিনহোর শিষ্যরা। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ম্যাচের প্রথমার্ধেই উইলিয়ান ও অস্কারের গোলে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় চেলসি। আর দ্বিতীয়ার্ধে কোস্তা ও ফাব্রেগাসের গোলে ৪-০ ব্যবধানের বড় জয়ে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করে তারা। সেইসঙ্গে গ্রুপের শীর্ষস্থানটিও দখল করে চেলসি।

চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে সফল দল লিভারপুল। পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে তারা। আর দুইবার হয় রানার্সআপ। এরপর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তিনবার চ্যাম্পিয়ন এবং দুইবার রানার্সআপ হয়। এছাড়া একবার করে ইউরোপ সেরার মুকুট পরেছে প্রিমিয়ার লীগের চার দল। সেগুলো হলো চেলসি, আর্সেনাল, এ্যাস্টন ভিলা এবং লিডস ইউনাইটেড। জাতিগতভাবে ইউরোপের শ্রেষ্ঠত্বের তালিকায় তিনে আছে ইংল্যান্ড। সর্বমোট ১২ বার চ্যাম্পিয়ন হয় তারা। শীর্ষে থাকা স্পেন জিতেছে ১৫ বার। ১২ বার শিরোপা জিতে ইতালির অবস্থান দুইয়ে।