২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাগরিকা গরু বাজারে এবার ভিন্নতা

মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ মাত্র সপ্তাহখানেক বাকি কোরবানি ঈদের। কিন্তু এখনও পশুর হাট জমতে শুরু করেনি চট্টগ্রামে। তবে কুষ্টিয়াসহ উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে গরু ইতোমধ্যে চট্টগ্রামে আসতে শুরু করেছে। উত্তরবঙ্গ থেকে ব্যবসায়ীরা চট্টগ্রামের সর্ববৃহৎ দুটি পশুর হাটকে কেন্দ্র করে পশু যোগান দিয়ে থাকে। এছাড়াও চট্টগ্রামে অস্থায়ীভাবে আরও ১০টি পশুর হাট রয়েছে। চসিকের অনুমোদনহীন হাটও রয়েছে বিভিন্ন এলাকায়।

এদিকে সাগরিকা গরু বাজারে এবার একটু ভিন্নতা দেখা দিয়েছে। কারণ কুষ্টিয়ার ব্যবসায়ী আকবর মামার মাঠটি এবার স্থানীয়দের দখলে চলে গেছে। বাগদাদ কার্পেটের এ মাঠটি এবার স্থানীয়দের দখলে চলে যাওয়ায় কুষ্টিয়ার ব্যবসায়ীরা এ বাজারে ঘেঁষছে না। অত্যধিক চাঁদা দাবি ও খুঁটি বাণিজ্যের কারণে এ ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন উত্তরবঙ্গের এক ব্যবসায়ী। তবে স্থানীয়দের রোষানলে পড়ে কুষ্টিয়ার প্রখ্যাত ব্যবসায়ী আকবর মামা ব্যবসা গুটিয়ে বিবিরহাটের মাদ্রাসা মাঠে অবস্থান নিয়েছেন। এক্ষেত্রে সিটি গেট থেকে শুরু করে বিবিরহাট পর্যন্ত কুষ্টিয়া থেকে আসা গরুর ট্রাকগুলো তার লোকজন সাগরিকা গরু বাজারে ঢুকতে দিচ্ছে না। আকবর মামার পক্ষ থেকে লাল টি-শার্ট নাম সহকারে স্বেচ্ছাসেবকদের দেয়া হয়েছে। তবে এসব স্বেচ্ছাসেবক অন্যায়ভাবে ট্রাক চালক ও পশু ব্যবসায়ীদের বাধ্য করছে বিবিরহাটে গরু নামাতে।

নগরীর বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের পক্ষ থেকে ও গোয়েন্দা বিভাগ জাল টাকার কারবারিদের পাকড়াও করতে সাদা পোশাকে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সূত্রে জানা গেছে, সিটি কর্পোরেশন এলাকায় আটটি ও কর্পোরেশনের বাইরে কর্ণফুলী থানা এলাকায় চারটি অনুমোদিত গরুর বাজার রয়েছে। এর মধ্যে সাগরিকা ও বিবিরহাট হচ্ছে স্থায়ী গরুর বাজার। প্রতিবছর ইজারার মাধ্যমে এ দুটি বাজার নির্ধারিত হয় বৈশাখ-চৈত্র হিসেব অনুযায়ী। বাকি ১২টি বাজার মৌসুমভিত্তিক।

বৃহস্পতিবার সাগরিকা গরু বাজার প্রত্যক্ষ করে দেখা গেছে, বাজারে ভারত কিংবা মিয়ানমার কোন দেশের গরুই নেই। দেশীয় গরুতে ভরপুর এ বাজার। বিশেষ করে দেশের উত্তরাঞ্চল থেকে গরু আসছে এ বাজারে।

বি’বাড়িয়ায় সংস্কারের এক বছর না যেতেই খানাখন্দে ভরা সড়ক

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ এক কিলোমিটার নয়, মাত্র ৮৪০ মিটার সড়ক। সিলকোট কাজ। সংস্কারের এ কাজের শেষ হওয়ার এক বছরও পার হয়নি। এর মধ্যেই সিলকোট উঠে গেছে। পূর্বের অবস্থায় রূপ নিয়েছে। এখন দেখলে বিধ্বস্ত এলাকার মতো মনে হয় সড়কটি। এ নিয়ে পথচারীদের বিস্তর অভিযোগ। তড়িঘড়ি করে রাতের অন্ধকারে কাজটি করা হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শহরের বস্ততম প্রধান সড়ক কুমারশীল মোড় থেকে পৌর কলেজ গেট সংলগ্ন স্থানের কাজটি সম্পন্ন হয় গত বছরের অক্টোবর মাসে। এর মধ্যেই সবকিছু শেষ। ২৩ লাখ টাকার এ কাজটি সড়ক ও জনপথ বিভাগ বাস্তবায়ন করে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্র জানায়, গত বছরের অক্টোবরে শুরু হয়ে ওই মাসে কাজটি শেষ হয়। কাজ শেষে মাস খানেকের মধ্যেই সড়কটি আগের চেহারায় ফিরে আসে। এতে এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী পথচারী মারাত্মক দুর্ভোগে পড়ছে। যানবাহন খানাখন্দকে আটকা পড়ছে। দুর্ঘটনা ঘটছে অহরহ। কাজের তদারকিকারী প্রকৌশলী সুমন কর্মকার বলেন, পানি জমার কারণে এমনটি হয়েছে। অন্য একজন কর্মকর্তা জানান, সড়কের দু’ধারে ড্রেনের প্রয়োজন ছিল।

স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত নাটোরে শিবির নেতার কারাদ-

সংবাদদাতা, নাটোর, ১৭ সেপ্টেম্বর ॥ নাটোরের বাগাতিপাড়ায় স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির দায়ে জুয়েল রানা(২২) নামের এক শিবির নেতাকে এক বছরের কারাদ- দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বাগাতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার ফরহাদ আহম্মদ এই আদেশ দেন। শিবির নেতা জুয়েল বাগাতিপাড়া উপজেলা ছাত্র শিবিরের প্রচার সম্পাদক ও পাকা ইউনিয়নের গাওপাড়ার মৃত আব্দুল কাদেরের ছেলে।