২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অন্যত্র চারজনের মৃত্যু রাজশাহীতে ট্রাকের ধাক্কায় অটো আরোহী স্বামী-স্ত্রী ও শিশুকন্যা নিহত

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ রাজশাহীতে বেপরোয়া ট্রাকের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সার যাত্রী স্বামী-স্ত্রী ও তাদের শিশুকন্যা নিহত হয়েছে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় চারজন নিহত এবং কমপক্ষে ৩৫ জন আহত হয়। এরমধ্যে নাটোর ও ফরিদপুরে দুই ট্রাকচালক এবং বরগুনার আমতলী ও লালমনিরহাটে দুই শিশু নিহত হয়। বরিশালে যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে ৩৫ জন আহত হয়। বৃহস্পতি ও শুক্রবার এসব দুর্ঘটনা ঘটে। খবর স্টাফ রিপোর্টার, নিজস্ব সংবাদদাতা ও সংবাদদাতাদের।

রাজশাহীর মতিহার এলাকার খড়খড়ি বাইপাস সড়কে শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বেপরোয়া ট্রাকের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সার যাত্রী স্বামী-স্ত্রী ও তাদের শিশুকন্যা নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন অটোরিক্সার চালকও। পুলিশ এবং ফায়ার সর্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে মা ও মেয়ের লাশ উদ্ধার করে। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও একজনের মৃত্যু হয়। নিহতরা হলোÑ মতিহার থানার কুখ-ি সোনারপাড়া এলাকার ইব্রাহীম হোসেন (৪০), তার স্ত্রী ববিতা (৪০) এবং মেয়ে রাইমা (৩)।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, নগরীর সাহেববাজার থেকে অটোরিক্সা নিয়ে কুখ-ি ফিরছিলেন ইব্রাহীম ও তার পরিবার। অটোরিকশাটি খড়খড়ি এলাকায় পৌঁছলে বেলপুকুর থেকে ছেড়ে আসা একটি মালবাহী ট্রাক সামনে থেকে ধাক্কায় দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মা ও মেয়ে নিহত হয়। পরে খবর পেয়ে স্থানীয়রা এবং ফায়ার সার্ভিসের দল গিয়ে আহত দু’জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। বিকেল সোয়া ৩টার দিকে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইব্রাহীম হোসেনও মারা যান।

মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবির জানান, ঘটনার পর পুলিশ ট্রাকটি আটক করেছে। তবে চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

নাটোর ॥ বড়াইগ্রামে দুটি ট্রাকের সংঘর্ষে দ্বীন মোহাম্মদ (৩৬) নামে এক ট্রাকচালক নিহত ও হেলপারসহ দু’জন আহত হয়েছে। শুক্রবার ভোরে নাটোর-পাবনা মহাসড়কের কয়েন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। দ্বীন মোহাম্মদ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ওলিনগর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে।

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ওসি ফুয়াদ রুহানী জানান, ভোর চারটার দিকে কয়েন এলাকায় মহাসড়কে দাঁড়িয়ে থাকা একটি বিকল ট্রাককে ঢাকাগামী একটি দ্রুতগামী ট্রাক পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই চলন্ত ট্রাকের চালক নিহত ও হেলপারসহ আরও দু’জন আহত হয়।

ফরিদপুর ॥ ভাঙ্গায় দ্রুতগামী দুটি ট্রাকের সংঘর্ষে এক চালক নিহত হয়েছে। শুক্রবার সকালে ফরিদপুর-বরিশাল মহাসড়কের পুকুরিয়া বাসস্ট্যান্ডের কাছে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ফরিদপুর থেকে বরিশালগামী একটি ট্রাককে একই দিকে যাওয়া অপর একটি ট্রাক পেছন থেকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই ধাক্কা দেয়া ট্রাকের চালক সাতক্ষীরা সদর উপজেলার গেবলা গ্রামের আব্দুল্লাহ (৪০) নিহত হয়। তার পিতার নাম শহীদুল ইসলাম।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হোসেন সরকার জানান, দুর্ঘটনায় এক ট্রাকের চালক নিহত হয়েছে। চালকের লাশ ভাঙ্গা থানায় রয়েছে। ময়নাতদন্তের পর লাশ হস্তান্তর করা হবে।

আমতলী (বরগুনা) ॥ আমতলী-কলাপাড়া সড়কের হাজীবাড়ি এলাকায় শুক্রবার সকালে বাসের চাপায় পিষ্ঠ হয়ে পাঁচ বছরের শিশু বায়েজিদ নিহত হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বরগুনার গগন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ ইউনুস মিয়া শুক্রবার সকালে স্ত্রী সীমা বেগমকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য বাসযোগে বরিশাল যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সড়কের আমতলী পৌর শহরের হাজীবাড়ি এলাকায় বাস থামিয়ে শিশু বায়েজিদকে খালার কাছে রেখে যাওয়ার জন্য রাস্তা অতিক্রম করছিলেন। এ সময় পেছন থেকে ঢাকাগামী সুগন্ধা পরিবহনের একটি বাস তাদের ধাক্কা দেয়। এতে বাবা ইউনুস মাস্টার ও মা সীমা বেগম রাস্তার পাশে ছিটকে পড়ে আহত হন। শিশু বায়েজিদ গাড়ির চাকায় পিষ্ঠ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে স্থানীয় লোকজন পুলিশে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা মর্গে পাঠিয়েছে। পুলিশ ঘাতক বাসটিকে আটক করেছে। এ ঘটনায় আমতলী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

লালমনিরহাট ॥ হাতীবান্ধায় বৃহস্পতিবার পশ্চিমসারডুবি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র নাজমুল হোসেন (৫) সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। স্কুলের সামনের বড়খাতা অন্ধ হাফেজের মাজারের সামনে লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কে সকাল সাড়ে ৯টায় মাইক্রোবাসচাপায় মারা যায় সে। মাইক্রোবাসটিকে শনাক্ত করা যায়নি। নিহত শিশুটির বাবা আজিজুল ইসলাম বাবলু বাদী হয়ে শুক্রবার সকালে থানায় মামলা দায়ের করেন। শিশুটির লাশ বৃহস্পতিবার রাতেই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তাকে রাতেই দাফন করা হয়।

বরিশাল ॥ পটুয়াখালী-বরিশাল মহাসড়কের শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর ঢালে শুক্রবার সকালে যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে কমপক্ষে ৩৫ যাত্রী আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ২৭ জনকে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরমধ্যে পাঁচজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।