২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শরণার্থী ভারাক্রান্ত ক্রোয়েশিয়া

  • সার্বিয়ার সঙ্গে সীমান্ত ক্রসিং বন্ধ করল জাগরেব

উত্তর ইউরোপের দিকে ছুটে চলা শরণার্থী স্রোত ঠেকাতে ক্রোয়েশিয়া সার্বিয়া সংলগ্ন আটটি সীমান্ত ক্রসিংয়ের মধ্যে সাতটিই বন্ধ করে দিয়েছে। রাজধানী জাগরেবে কর্মকর্তারা বলেন, হাঙ্গেরি সার্বিয়া সংলগ্ন এর সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দেয়ার পরদিন ১০ হাজারেরও বেশি লোক ক্রোয়েশিয়ায় প্রবেশের পর ওই পদক্ষেপ না নেয়া ছাড়া আর কোন উপায় ছিল না। এদিকে, সেøাভেনিয়া বলেছে, সে ট্রেনে থাকা একদল শরণার্থীকে ঠেকিয়ে দিয়েছে এবং তাদের ক্রোয়েশিয়ায় ফেরত পাঠাবে। ভূমধ্য সাগর থেকে উত্তর দিকে অজস্র মানুষের পথচলা ইউরোপীয় ইউনিয়নে এক রাজনৈতিক সঙ্কট সৃষ্টি করেছে। সীমান্ত ক্রসিং অভিমুখী সড়কগুলোও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বলে ক্রোয়েশীয় কর্মকর্তারা জানান। খবর বিবিসি, টেলিগ্রাফ ও ইয়াঙ্গু নিউজের।

জাগরেব থেকে বিবিসির সংবাদদাতা গাই ডিলনি বলেন, ওইসব স্থল সীমান্ত ক্রসিং বন্ধ করে দেয়ায় শরণার্থীদের গ্রীস থেকে উত্তর ইউরোপে যাওয়ার প্রধান স্থলপথই বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল। বেলগ্রেড ও জাগরেবের মধ্যে সংযোগ সাধনকারী প্রধান সড়কে অবস্থিত ক্রসিংটিই কেবল খোলা রয়েছে বলে মনে হয়।

ওই সংবাদদাতা জানান, ক্রোয়েশিয়া লোকজনকে আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল, কিন্তু শরণার্থীদের সংখ্যা এতই বেশি ছিল যে, অনেককেই রাস্তাতেই থেকে যেতে হয়েছে। কেউ কেউ বিবিসিকে বলেন যে, তারা হেঁটে প্রতিবেশী সেøাভেনিয়া যাওয়ার পরিকল্পনা করছে। সেøাভেনিয়া ইইউর সীমান্ত মুক্ত শেনজেন এরিয়াতে অবস্থিত। ক্রোয়েশিয়ার পূর্ব সীমান্তের এক রেল স্টেশনে বিশৃঙ্খল ঘটনা চলার মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২৮ জাতির এ ব্লকের মধ্যকার মতানৈক্য দূর করার চেষ্টায় আগামী সপ্তাহে এক জরুরী শীর্ষ সম্মেলন আহ্বান করেছে। ক্রোয়েশিয়া বলেছে, সম্পদশালী ব্লকে আশ্রয়ের খোঁজে পশ্চিম বলকান অঞ্চলে ছুটে চলা হাজার হাজার অভিবাসীকে নিবৃত্ত করতে দেশটিকে সেনাবাহিনী ব্যবহার করতে হতে পারে। দেশটি কিছু কিছু শরণার্থীকে জাগরেবের কাছে অভ্যর্থনা কেন্দ্রগুলোতে নিয়ে গেছে, কিন্তু অনেকেই কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি এড়িয়ে ক্রোয়েশীয় রাজধানী থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার (১৯ মাইল) দূরবর্তী সেøাভেনীয় সীমান্তের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। সেøাভানিয়ার পুলিশ প্রায় ১৫০ জন অভিবাসীবাহী একটি ট্রেনকে কমান্ডের সেøাভেনীয় অংশে আটকে দেয়। তাদের ফেরত পাঠানো হবে বলে পুলিশ জানায়। সীমান্ত পেরিয়ে লাখ লাখ লোকের আগমণ কিভাবে মোকাবেলা করা হবে, তা নিয়ে ইইউ যে গভীরভাবে মতবিভক্ত, ওই থামানো ট্রেনটিই এর সর্বশেষ প্রতীক। তাদের বেশিরভাগই সিরিয়া ইরাক আফগানিস্তান ও পাকিস্তান থেকে যুদ্ধ ও দারিদ্র্যের কবল থেকে মুক্তি পেতে এসেছে। ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোন্যাল্ড টাস্ক ইইউর বাহ্যিক সীমান্ত ব্যবস্থাপনা এবং সিরীয় শরণার্থীদের আশ্রয়দাতা তুরস্ক ও ওই অঞ্চলের অন্যান্য দেশকে সাহায্য করার আরও ভাল উপায় নিয়ে আলোচনা করতে আগামী বুধবার ইইউ নেতাদের এক শীর্ষ সম্মেলন আহ্বান করেন। তুরস্কের ভেতর দিয়েই অনেক অভিবাসী ইউরোপে প্রবেশ করার চেষ্টা করছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীরা সোমবার শরণার্থীদের দেখাশোনার দায় ভাগ করে লক্ষ্যে পরিকল্পিত এক বাধ্যতামূলক কোটা ব্যবস্থা নিয়ে মতৈক্যে পৌঁছতে ব্যর্থ হন। ইউরোপের প্রবেশপথে অভিবাসীদের অজস্র সমস্যা সত্ত্বেও আরও অনেক শরণার্থী লেসবস দ্বীপ থেকে গ্রীসের পিরাউস বন্দরে পৌঁছেছে।

তুরস্ক থেকে বৃত্ত নৌকায় করে খুব কম সময়েই দ্বীপটিতে যাওয়া যায়। অন্যরা বিপজ্জনক যাত্রায় শামিল হওয়ার চেষ্টা করতে ইউরোপের বাইরে অপেক্ষা করছে। এ যাত্রাপথে ইতোপূর্বে হাজার হাজার শরণার্থীর মৃত্যু ঘটে। জর্দানের এক শিবিরে সিরীয় শরণার্থী ইউসুফ হারিরি বলেন, এটি খুবই বিপজ্জনক পথ হবে, কিন্তু আপনি যদি এ পথ পাড়ি দিতে পারেন, তাহলে রয়েছে বড় পুরস্কার। সমগ্র বিশ্বের দরজাই আপনার জন্য খুলে যাবে। পুলিশ জানায়, জার্মানিতে বুধবার আগত শরণার্থীদের সংখ্যা দ্বিগুণেরও বেশি বেড়ে ৭ হাজার ২৬৩-তে দাঁড়ায়। জার্মান অফিস ফর মাইগ্রেশন এ্যান্ড রিফিউজিসের প্রধান ব্যক্তিগত কারণে পদত্যাগ করেছেন।