২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেঘ দেখলে ছুটি, রোদ বাড়লেই বিরতি

  • শরীয়তপুরে খোলা আকাশের নিচে পাঠদান

নিজস্ব সংবাদদাতা, শরীয়তপুর, ১৮ সেপ্টেম্বর ॥ আকাশে মেঘ দেখলেই ছুটির ঘণ্টা আর রোদের তাপ বাড়লেই বিরতি। গত ৩ বছর ধরে এভাবেই চলছে শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার ১৫নং সত্যপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই শতাধিক শিশু শিক্ষার্থীর পড়াশোনা। শিক্ষার্থীদের একটাই প্রশ্ন এভাবে আর কতদিন ক্লাস করতে হবে?Ñ এ প্রশ্নের সঠিক উত্তর নেই।

জানা গেছে, ১৯৪২ সালে ভেদরগঞ্জ উপজেলার সত্যপুর গ্রামে ৫৭ শতাংশ জমির উপর ১৫নং সত্যপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২শ’ ৮ এবং শিক্ষক রয়েছেন সাতজন। বিদ্যালয় ভবনের ছাদসহ বিভিন্ন অংশে ফাটল ও পলেস্তারা খসে পড়ায় ২০১২ সালের মাঝামাঝি সময়ে ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ। এরপর থেকেই খোলা আকাশের নিচে চলছে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের পাঠদান। তিন বছর যাবত শিক্ষার্থীরা খোলা আকাশের নিচে ক্লাস করলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোন নজরে আসেনি। ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী তিমির কুমার ম-ল জানান, ১৫নং সত্যপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন পরিত্যক্তের বিষয়টি আমরা উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। খুব শীঘ্রই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শহীদুল্লাহ সরদার জানান, পঞ্চম শ্রেণীর সমাপনী পরীক্ষায় প্রতিবছর এ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ভাল ফলাফল করে আসছে। খোলা আকাশের নিচে ক্লাস করতে শিক্ষার্থীদের খুবই কষ্ট হয়। ফলে অনেক শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে আসতে অনীহা প্রকাশ করে। এদিকে বিদ্যালয়ের ৩০ শতাংশ জমি স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল দখল করে রেখেছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রধান শিক্ষক। তিনি জানান, এ বিষয়টি ডিজিকে জানানো হয়েছে।