২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পছন্দের ল্যাপটপ

  • এবারের ঈদে আইটি বাজার ঘুরে প্রযুক্তি প্রেমীদের জন্য আইটি পণ্যের সর্বশেষ বাজার দর নিয়ে লিখেছেন ;###;রেজা নওফল হায়দার

ষধঢ়ঃড়ঢ় হকাররা ঝুড়িতে করে ‘ল্যাপটপ চাই, ল্যাপটপ!’ বলে ডাকতে শুরু না করলেও বাজারে হরেক রকমের ল্যাপটপই পাবেন। ২০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে দুই লাখ টাকা পর্যন্ত বিভিন্ন দামে কিনতে পারবেন ল্যাপটপ। বর্তমানে প্রযুক্তির বাজারে ল্যাপটপের বিক্রি ভাল। বিক্রেতারা জানান, তরুণ ক্রেতাদের আগ্রহ এখন হালকা-পাতলা ল্যাপটপ বা আলট্রাবুকে।

হালকা-পাতলা ল্যাপটপ কিনবেন বলে ভাবছেন? যাঁরা সাধারণ ল্যাপটপের চেয়ে একটু বেশি সুবিধা চান তাঁদের জন্যই মূলত আলট্রাবুক। আর যাঁরা সাধারণ মুভি দেখা, ইন্টারনেট ব্রাউজের কাজ করেন, তাঁরা নোটবুক বা নেটবুক কিনতে পারেন। তবে দ্রুত কাজ, উন্নত গ্রাফিকস আর হালকা-পাতলা সুদৃশ্য আলট্রাবুক ও নোটবুক এখন অনেকেরই বিশেষ পছন্দের।

দেশের বাজারে এখন চোখে পড়বে নানা ব্র্যান্ডের হালকা-পাতলা ল্যাপটপ। এই ল্যাপটপগুলোকে মূলত আলট্রাবুক বলা হচ্ছে। এইচপি, ডেল, তোশিবা, স্যামসাং, এসার, লেনোভো, আসুস ব্র্যান্ডের আলট্রাবুক পাওয়া যাবে। অ্যাপলের হালকা-পাতলা ল্যাপটপ ম্যাকবুক এয়ারও দেশের বাজারে রয়েছে। হালকা-পাতলা ল্যাপটপ যেমন সুদৃশ্য, তেমনি ব্যবহারবান্ধব। তবে বাজারে আলট্রাবুকের দাম অন্যান্য ল্যাপটপের তুলনায় একটু বেশি। ৬৫ হাজার থেকে এক লাখ ৭০ হাজার টাকার মধ্যে বাজেট থাকলে তবেই কিনতে পারবেন আলট্রাবুক।

ল্যাপটপ কেনার পরামর্শ

উন্নত প্রসেসর, র‌্যাম, গ্রাফিকস ও ডিসপ্লে রেজুলেশন দেখে ল্যাপটপ কিনুন। বেশিক্ষণ চার্জ থাকে এবং শক্তিসাশ্রয় করে এ ধরনের ল্যাপটপ কিনতে পারেন। যে ল্যাপটপে বেশি তথ্য সংরক্ষণ করা যাবে, সেই ল্যাপটপ কিনুন। পরিচিত ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ কিনুন। কেনার পর নষ্ট হলে কী সুবিধা পাবেন, যাচাই করে নিন। অনুমোদিত বিক্রেতার কাছ থেকে কিনুন। কেনার পর ল্যাপটপের সঙ্গে থাকা অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয়গুলো পরীক্ষা করে নিন।

হালকা-পাতলা ল্যাপটপ

খুচরা বিক্রেতা থেকে শুরু করে দেশের বিভিন্ন কম্পিউটার বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানে ও কম্পিউটার বাজারগুলোতে কিনতে পারবেন হালকা-পাতলা আলট্রাবুক।

অ্যাপল

অনেকেই অ্যাপলের পণ্যের খুব ভক্ত। দেশের বাজারেই আপনি অ্যাপলের হালকা-পাতলা ল্যাপটপ হিসেবে ম্যাকবুক এয়ার কিনতে পারবেন। বাজারে ১১ ইঞ্চি ও ১৩ ইঞ্চি মাপের ম্যাকবুক এয়ার পাবেন। দাম পড়বে এক লাখ দুই হাজার থেকে এক লাখ ২৫ হাজারের মধ্যে। কাজের ক্ষেত্রে ম্যাকবুক এয়ার দারুণ উপযোগী।

এসার

বাজারে হালকা-পাতলা ল্যাপটপ হিসেবে পাবেন এসারের এ্যাস্পায়ার সিরিজের আলট্রাবুক। ইনটেলের প্রসেসরনির্ভর ১৩.৩ ইঞ্চি মাপের ডিসপ্লে­যুক্ত ওজন এক কেজির কিছু বেশি। উইন্ডোজ ৭ অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর এ্যাস্পায়ার সিরিজের আলট্রাবুক কিনতে পারবেন ৭৫ হাজার টাকার মধ্যেই।

এইচপি

বাজারে সবচেয়ে বেশি চোখে পড়বে এইচপির আলট্রাবুক। এইচপির আলট্রাবুক রয়েছে ইনটেলের কোর আই ৩, কোর আই ৫ বা কোর আই ৭ প্রসেসরনির্ভর বিভিন্ন মডেলে। এইচপি ব্র্যান্ডের এনভি ৬-১০১১টিএক্স মডেলের আলট্রাবুকটিতে চার্জ থাকে প্রায় ১০ ঘণ্টা। এ ছাড়া রয়েছে উন্নত গ্রাফিকস। উইন্ডোজনির্ভর আলট্রাবুকটির দাম পড়বে ৯৫ হাজার টাকা। এইচপির হালকা-পাতলা ল্যাপটপের আরেকটি মডেল হচ্ছে এলিটবুক। এর দাম ৯৩ হাজার টাকা। এইচপি এলিটবুকের আরেকটি মডেল রয়েছে, যা ব্যবসায়ীদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি। এর দাম এক লাখ ৪৫ হাজার টাকা। এনভি স্পেকটার নামে হালকা-পাতলা আরেকটি মডেল বাজারে রয়েছে, যার দাম এক লাখ ১২ হাজার টাকা। ৯৫ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে এইচপির ১৩-২০০০ মডেলের নতুন আলট্রাবুক। এতে রয়েছে ১৩ ইঞ্চি পর্দা, ইনটেল কোর আই ৫ প্রসেসর, ৪ গিগাবাইট ডিডিআর৩ র‌্যাাম, ১২৮ গিগাবাইট এএসডি ড্রাইভ, ১০ ঘণ্টা ব্যাটারি ব্যাকআপের সুবিধা।

তোশিবা

বিশ্বের সবচেয়ে হালকা ওজনের তোশিবা আলট্রাবুক দেশের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। তোশিবা ব্র্যান্ডের পোর্টিজি জেড৯৩০-২০২৬ মডেলের আলট্রাবুকে কোর আই৭ প্রসেসর, ৬ গিগাবাইট র‌্যাম, ২৫৬ গিগাবাইট এসএসডির সুবিধা রয়েছে। উইন্ডোজনির্ভর ১৩.৩ ইঞ্চি মাপের আলট্রাবুকটিতে রয়েছে ইনটেলের এইচডি গ্রাফিকস কার্ড, ১৩.৩ ইঞ্চি এলইডি ডিসপ্লের ল্যাপটপটির ওজন ১.১২ কেজি। এতে ৮ ঘণ্টা পাওয়ার ব্যাকআপ পাওয়া যায়। এ আলট্রাবুকটির দাম এক লাখ ৭১ হাজার টাকা। তোশিবার স্যাটেলাইট সিরিজেও রয়েছে আলট্রাবুক। স্যাটেলাইট ইউ ৯৪০ সিরিজের আলট্রাবুক কেনা যাবে ৮৪ হাজার টাকায়।

ফুজিত্সু

হালকা ও পাতলা গড়নের ফুজিত্সু আলট্রাবুক বা লাইফবুক দেশের বাজারে পাবেন। ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি ডিসপ্লের আলট্রাবুকে রয়েছে ইনটেলের তৃতীয় প্রজন্মের কোর আই ফাইভ প্রসেসর উন্নত গ্রাফিকস। উইন্ডোজ ৮ নির্ভর ফুজিত্সুর দেড় কেজি ওজনের লাইফবুকটি টানা পাঁচ ঘণ্টা পর্যন্ত ব্যাকআপ দিতে পারে। ম্যাগনেশিয়ামের কাঠামো এ আলট্রাবুকের দাম ৯৩ হাজার ৫০০ টাকা।

স্যামসাং

স্যামসাং ব্র্যান্ডের এনপি৫৩০ইউ৪সি মডেলের নতুন আলট্রাবুকে রয়েছে ইনটেলের ইন্টেল তৃতীয় প্রজন্মের কোর আই ৫ প্রসেসর ও উন্নত গ্রাফিকস। ১৪ ইঞ্চি ডিসপ্লের এ আলট্রাবুকের দাম ৮৬ হাজার টাকা। স্যামসাংয়ের লোটাস সিরিজে রয়েছে এনপি৫৩০ইউ৪সি-এস০২বিডি মডেলের আলট্রাবুক। ইনটেল কোর আই ৫ প্রসেসরনির্ভর আলট্রাবুকটিতে রয়েছে চার গিগাবাইট ডিডিআর৩ র‌্যাম, ৭৫০ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, ২৪ গিগাবাইট এসএসডি, সুপার মাল্টি ডিভিডি রাইটার। উইন্ডোজ ৮ অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর ১৪ ইঞ্চি মাপের আলট্রাবুকটির দাম ৮৫ হাজার টাকা। স্যামসাং নাইন সিরিজের এনপি ৯০০ এক্স ৩সি মডেলের এ আলট্রাবুকটি উইন্ডোজ ৮ নির্ভর। স্যামসাংয়ের এ আলট্রাবুকটির দাম এক লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

ডেল

ডেলের আলট্রাবুকের মধ্যে রয়েছে ডেল এক্সপি ১৪। ইনটেল কোর আই ৫ ও কোর আই ৭ এ দুটি প্রসেসরে পাওয়া যায় ডেলের এ আলট্রাবুকটি। ১৪ ইঞ্চি মাপের উইন্ডোজনির্ভর আলট্রাবুকটির ওজন ১.৩৫ কেজি। দাম ৯০ হাজার টাকা।

অন্যান্য

বাজারে হালকা-পাতলা ল্যাপটপের ক্ষেত্রে চোখে পড়বে লেনোভো, আসুসসহ বেশ কয়েকটি ব্র্যান্ডের আলট্রাবুক। ৮০ হাজার থেকে এক লাখ ৩০ হাজার টাকার মধ্যে কিনতে পারবেন এসব আলট্রাবুক।

নোটবুক ও নেটবুক

বাজারে হালকা-পাতলা ল্যাপটপ ছাড়াও কিনতে পারবেন বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নোটবুক ও নেটবুক। এইচপির কমপ্যাক সিকিউ৪৩-৪০০টিইউ পাবেন ৩২ হাজার টাকায়। ডেলের ইন্সপায়রন এন৩৫২১ পাবেন ৩৯ হাজার টাকায়। আসুসের এ৪৪এইচ ল্যাপটরে দাম পড়বে ৩ ১ হাজার টাকা। এসারের অ্যাস্পায়ার ভি৩-৪৭১ মডেলটির দাস ৪২ হাজার টাকা। স্যামসাংয়ের এনপি৩৫০ভি৪এক্স-এ০৫বিডি কিনতে খরচ হবে প্রায় ৪২ হাজার টাকা। এ ছাড়া রয়েছে ৩২ হাজার ৫০০ টাকায় লেনোভো জি৪৮০, ৩৪ হাজার টাকায় ফুজিত্সুর এলএইচ৫৩১ ও ৩০ হাজারে তোশিবার স্যাটেলাইট সি৬৪০ ল্যাপটপের মডেল।

২৩ হাজার ৬০০ টাকায় কিনতে পারবেন এসারের এ্যাস্পায়ার ওয়ান ডি২৭০ মডেলের নেটবুক। ২১ হাজার ৮০০ টাকায় পাবেন আসুসের এক্স১০১ সিএইচ। স্যামসাং এ্যাটম এন২১০০ পাবেন ২২ হাজার টাকায়।

ল্যাপটপ কেনার আগের হিসাব-নিকাশ

ল্যাপটপ কেনার আগে ওয়ারেন্টি ও বিক্রয়ের পরের সেবা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন। ব্যবহৃত ও পুরনো ল্যাপটপ কেনার ক্ষেত্রে তা আগে যাচাই করে নিন।

ল্যাপটপের যতœআত্তি

ল্যাপটপ কেনার পর প্রয়োজন যতœআত্তির। নিয়মিত যতœ নিলে ভাল থাকে ল্যাপটপ। ল্যাপটপ ভাল রাখার পাঁচ পরমার্শÑ

ব্যাটারিতে সরাসরি বৈদ্যুতিক সংযোগ ছাড়া ল্যাপটপ চালানোর সময় পর্দার ঔজ্জ্বল্য কমিয়ে রাখুন। সরাসরি সূর্যের আলোতে ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। কারণ, এতে আপনার ল্যাপটপ খুব দ্রুত গরম হয়ে যে কোন ধরনের ক্ষতি হতে পারে। প্রসেসরের ওপর চাপ কমাতে অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রামগুলো বন্ধ করে দিন। ছোট ও কম শক্তির ল্যাপটপে ভারি গেম বেশিক্ষণ খেলবেন না।

ল্যাপটপের কাজ শেষে বিদ্যুত সংযোগ থেকে প্লাগ খুলে রাখুন। এয়ার ভেনটিলেটরের পথ খোলা রাখবেন এবং সহজে বাতাস চলাচল করে এমন স্থানে ল্যাপটপ রেখে কাজ করবেন। সম্ভব হলে কুলার ব্যবহার করতে পারেন, এতে বাতাস বের হয় এবং ল্যাপটপ ঠা-া থাকে। সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন ব্যাটারি দিয়ে ল্যাপটপ চালানোর চেষ্টা করুন, তাহলে ব্যাটারি সচল থাকবে। অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ইনস্টল থেকে বিরত থাকুন এবং অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার আনইনস্টল করে দিন।

ঈদ আনন্দের অনুষঙ্গ ট্যাব ও স্মার্টফোন

জমে উঠেছে ঢাকার স্মার্টফোনের বাজারগুলো। বছরের প্রথম দুই মাসে বেশকিছু স্মার্টফোন বাজারে এসেছে। বাজারে বিক্রেতারা জানান, নতুন ফোনে ক্রেতাদের আগ্রহ বেশি। একাধিক বাজার ঘুরে পাওয়া স্মার্টফোন ও ট্যাবলেটের দাম নিচে দেওয়া হলো।

স্মার্টফোনের দরদাম-

অ্যাপল : আইফোন ফাইভ-এস ১৬জিবি ৬৫,৫০০; আইফেন সিক্স ১৬জিবি ৭৩,৮০০ ও আইফেন সিক্স ৬৪জিবি ৮৫,২০০; সিক্স

প্লাস ১৬জিবি ৮৫,২০০; সিক্স প্লাস ৬৪জিবি ৯৬,৫৭৫ ও সিক্স প্লাস ১২৮জিবি ১০৮,০০০ টাকা।

মাইক্রোসফট : লুমিয়া ৭৩০ ২১,৫০০; লুমিয়া ৫৩৫ ১১,৫০০; লুমিয়া ৫৩২ ৯,৫০০; লুমিয়া-৫৩৫ ১১,৫৯৯; লুমিয়া-৫২৫

১২,৫০০; লুমিয়া-৬৩০ ১২,৯০০; লুমিয়া-৬২৫ ১৯,৫০০; লুমিয়া-৯২৫ ৩২,০০০; লুমিয়া-১০২০ ৪২,০০০ টাকা।

স্যামসাং : গ্যালাক্সি নোট থ্রি ৬৩,০০০; নোট ফোর ৮০,০০০; এস ডুয়োস টু ১২,৫০০; ট্রেন্ড ৮,৫০০; গ্র্যান্ড নিও ১৮,৯০০ ও গ্র্যান্ড টু ২৬,৫০০ টাকা। এইস নেক্সট ৮,৯০০, কোর টু ১৪,৫০০ ও কেজুম ৪৭,০০০ টাকা। গ্যালাক্সিএ৩ ২৫,৯০০ ও এ৫ ৩০,৯০০ টাকা। জেড১ ৬,৯০০; জে১ ১১,৯০০ টাকা।

ওয়ালটন: জিএম ৯,২৯০; এনএক্স২ ১৪,৪৯০; জেএফ ৩ ৭,৮৯০; প্রিমো এস থ্রি ১৬,৩৯০; এনএক্স ১৭,৯৯০; এফ-ওয়ান ৮,৯৯০; ই-ওয়ান ৫,২৯০ টাকা; জিএফ ৮,৬৯০; জি৫ ৮,৯০০; জি টু ১২,৫৯০; জি এইচ৩ ১০, ৯৯০ ও জি থ্রি ১০,৯৯০ টাকা।

সনি : এক্সপেরিয়া এস ২৫,০০০; পি ২০,০০০; জেড ৩২,৯০০ ও সোলা-১৫,৫০০ টাকা।

ব্ল্যাকবেরি: বোল্ড ৯৭০০ ৩৫,০০০; বোল্ড টাচ ৯৯০০ ৪৩,০০০ ও জেট১০ ৫৫,০০০ টাকা।

সিম্ফনি: ডব্লিউ-১৬ ৪,৫০০; ডব্লিউ-৭২ ৭,৯০০; ডব্লিউ-২৮ ১০,৯৯০; ডব্লিউ-১৩০ ১০,৯৯০; ডব্লিউ-১৬০ ১২,৯৯০; ডব্লিউ-১২৮ ৮,৯৯০; ডব্লিউ-৬৯কিউ ৫,৮৪০ ও জেডআইভি ২২,৯৯০ টাকা।

হুয়াউই: এ্যাসেন্ড ওয়াই৫১১ ৬,৯৯০; জি৬১০ ১৩,৫০০; জি৬৩০ ১৫,৪৯০; জি৭৩০ ১৬,৫০০; জি৭০০ ১৯,৯৯০; মেট ২২,৯৯০ ও এ্যাসেন্ড পি৬ ২৪,৯৯০ টাকা।

এইচটিসি: ওয়ান ম্যাক্স ৫১,০০০; ওয়ান ৪২,৯০০ ও ওয়ান মিনি ৩১,৯০০ টাকা।

অপ্পো: নিও-৩ ১৪,৮০০; এনওয়ান মিনি ৩৬,০০০; আরওয়ানকে ৩২,০০০; ফাইন্ড-৭ ৪৯,৯০০ ও ফইন্ড-৭এ ৪১,০০০ টাকা।

বাজারে নতুন স্মার্টফোন :

ওয়ালটন: জিএম ৯,২৯০; এনএক্স২ ১৪,৪৯০ ও জেএফ ৩ ৭,৮৯০ টাকা।

স্যামসাং : গ্যালাক্সি এথ্রি ২৫,৯০০; এফাইভ ৩০,৯০০; জেড-১ ৬,৯০০ ও জে-১ ১১,৯০০ টাকা।

সিম্ফনি : জেড-৫ ১৪,৯৯০; এইচ-২০০ ১২,৯৯০ ও ভি-৫৫ ৬,৫৯০ টাকা।

মাইক্রোসফট: লুমিয়া ৭৩০ ২১,৫০০; লুমিয়া ৫৩৫ ১১,৫০০ ও লুমিয়া ৫৩২ ৯,৫০০ টাকা।

এইচটিসি: ডিজায়ার ৮২০ ২৭,০০০ ও এম৮আই ৩৯,০০০ টাকা।

এ্যাপল: আইপ্যাড মিনি ১৬জিবি ৪৬,০০০; ৩২জিবি ৫২,০০০; ৬৪জিবি-৬০,০০০; আইপ্যাড টু ১৬জিবি ৪৭,০০০; ফোর ৮জিবি ৩৯,০০০; ৩২জিবি ৬২,০০০ ও ৬৪জিবি ৬৯,৫০০ টাকা।

স্যামসাং : গ্যালাক্সি ট্যাব ফোর ৭.০ ৮জিবি ২৮,৫০০; ফোর-১০.১ ১৬জিবি ৪০,০০০; এস-৮.৪ ৫৩,০০০ ও এস-১০.১ ৬৩,০০০ টাকা।

আসুস: নেক্সাস সেভেন ওয়াই-ফাই থ্রিজি ৩৬,০০০; টিএফ১০১জি এনভিডিয়া ৪৪,০০০; মেমোপ্যাড ১৫,০০০ ও ফোনোপ্যাড ৮জিবি ২২,০০০ টাকা।

ফুজিৎসু: ট্যাব এম৫৩২ ৬০,৫০০ টাকা।

এইচপি: এলিটপ্যাড ৯০০ ৩২জিবি ৯২,০০০ টাকা।

সনি: এসজিপিটি থ্রি ৩৯,০০০; এসজিপি টু ৪৯,০০০ ও ট্যাবলেট পি-এসজিপিটি টু ৪৫,০০০ টাকা।

লেনোভো: ইয়োগা ৮ ২৭,৫০০ ও ইয়োগা১০ ২৯,৫০০ টাকা।

তোশিবা: এটি-১০০ ৪১,৫০০ টাকা।

এরকোর্স: এরনোভা ৭সি জি৩ ১৩,০০০; এরনোভা ৮০এক্সএস-২৩,০০০; এরনোভা চাইল্ডপ্যাড-১২,৫০০; এরনোভা ৭সি জি৩-১৩,০০০ ও এরনোভা ৯জি২-১৭,০০০ টাকা।

বাজারে নতুন ট্যাবলেট :

আসুস: ফোনোপ্যাড ৭ ইঞ্চি ৮ জিবি ১৩,০০০ টাকা।

লেনোভো : এ৭-৫০ ৭ ইঞ্চি ৮ জিবি ১৭,৫০০ টাকা।

ফ্রিজের খোঁজখবর

সামনেই ঈদ-উল আজহা, মনে হয় এই কিছুদিন আগে পেরিয়ে গেল রমজানের ঈদ। না, এরই মাঝে শেষ হয়েছে একটি মাস। ফলে দরজায় কড়া নাড়ছে কোরবানির ঈদ। ঈদ-উল ফিতরে প্রায় সকলেই নতুন নতুন পোশাকসহ বিভিন্ন দ্রব্যসামগ্রী ক্রয় করে। কিন্তু এ ঈদে তেমনটি লক্ষ্য করা যায় না। তবে সামর্থ্যবান প্রতিটি মসুলমান ব্যক্তিই এ আনন্দের দিনটিতে আল্লাহ্র সন্তুষ্টি অর্জনে পশু কোরবানি দিয়ে থাকেন। অন্যান্য বছরে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আবদুল হামিক কোরবানি দিতে সক্ষম হননি। এ বছর আর্থিক অবস্থা ভাল হওয়ায় দেয়ার জন্য মনস্থির করেছেন। ঈদের একদিন আগে গরু ক্রয় করবেন তিনি। তার আগেই তাকে কোরবানির পশুর মাংস নিজের অংশ সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজ সংগ্রহ করতে হচ্ছে। তা ঘরের ফ্রিজটি আয়তনে বেশ ছোট। তুলনামূলক বড় আকৃতির ফ্রিজ ক্রয় করতে হবে তাকে। কোরবানির মাংস মাসব্যাপী সংরক্ষণ করে অনেকেই। তাই এ সময় অধিকাংশ ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি আকর্ষণীয় অনেক মডেলের ফ্রিজ বাজারে নিয়ে আসে এবং উচ্চ হারে মূল্য ছাড় প্রদান করে। ব্যাপক চাহিদা থাকায় কোম্পানিগুলো বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে থাকে। যার দরুন ফ্রিজ ক্রয়ের জন্য ব্যাপক শোরগোল পড়ে যায় রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকা এলিফ্যান্ট রোডে অবস্থিত স্যামসাংয়ের শো-রুমে নতুন নতুন মডেলের ফ্রিজ। এ বিশাল আয়োজন থেকে খুব সহজেই সংগ্রহ করা যাবে পছন্দের জিনিসটি।

স্যামসাং ফ্রিজ : ব্যাপক জনপ্রিয় ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি হলো স্যামসাং। এবার কোরবানির ঈদের নিয়ে এসেছে বেশকিছু ডিজাইনের ফ্রিজ। এগুলোর মধ্যে জঞ২৯ঈউ এর মূল্য ৫৯,০০০ টাকা, জঞ ৩০ইউ মডেল এর মূল্য ৬৪,০০০ টাকা, জঞ২৬ঋঅঝঅ ফ্রিজটি মিলবে ৫৯,৮০০ টাকাতে। এছাড়া ও জঞ২৮ঋঅঝঅ ক্রয়ে লাগবে ৫৩,৮০০ টাকা এবং জঞ৩৬ঋউঝখ পড়বে ৭২,০০০ টাকা।

ইলেক্ট্রা ফ্রিজ : ইলেক্ট্রা ফ্রিজের বেশকিছু মডেল দর্শনীয়। এ কোম্পানির প্রতিটি ফ্রিজেই রয়েছে দশ বছরের ওয়ারেন্টি সার্ভিস। রিফ্রেজারেটের মধ্যে ঊজ১৪৫ঐ১২ মডেলটি মিলবে ২৮,৫০০ টাকা, ঊজ১৪৫ ঘঊড পড়বে ২৮,৫০০ টাকা, ঊজ১৭৪-১২ এর মূল্য পড়বে ৩১,৮০০০ টাকা। আরও রয়েছে ঊজ২১৫খউ এর দাম ৩৮,৬০০ টাকা, ঊজ১৮ঐঔঘঝ মডেলটি ৩৮,০০০ টাকা এবং ঊজ২১৮ ফ্রিজটি মিলবে ৪০,৮০০ টাকাতে। রিফ্রেজেরোটর ছাড়া ও রয়েছে ইলেক্ট্রা ডিপ ফ্রিজ। যার মধ্যে ঊঋ১০০ঈ মডেলটি মিলবে ১৭,৮০০ টাকাতে, ঊঋ১৫৫ঈ ক্রয়ে লাগবে ২৩,৪০০ টাকা, ঊঋ ২০০ঈ ডিপ ফ্রিজটির দাম ২৬,৮০০ টাকা, ঊঋ ৩০০ঈ পড়বে ৪০,০০০ টাকা। এছাড়াও মিলবে ঊঋ ৩৫০ঈ মডেলটি ৪৭,০০০ টাকাও ঊঋ ৪২০ঈ টি ৫৫,০০০ টাকাতেই।

ওয়ালটন ফ্রিজ : দেশের অন্যতম ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি হলো ওয়ালটন। এবার ঈদ-উল আজহ্া উপলক্ষে ওয়ালটন বেশকিছু আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফ্রিজ নিয়ে এসেছে মডেলগুলো ক্রেতাদের নিকট ব্যাপক সাড়া যাগিয়েছে। ওয়ালটনের ডিপ ফ্রিজগুলোর মধ্যে ঋঈ১উ৫ মডেলের নয়, সিএফটি সাইজের ফ্রিজটির মূল্য ২১,৯০০ টাকা, ঋঈ২ঞঝ চৌদ্দ সিএফটির দাম পড়বে ২৫,১০০ টাকা এবং ঋঈ ৩ঔঙ ফ্রিজটি মিলবে ৩০,৫০০ টাকাতে যা আঠারো সিএফটি। ডিপ ব্যতীত ওয়ালটনের সাধারণ ফ্রিজের মডেলগুলো বেশ দৃষ্টিনন্দিত। উ১ঋঙ মডেলের সাড়ে আট সিএফটি ফ্রিজের মূল্যে ২২,৪০০ টাকা। নয় সিএফটি ড৫০০=১০০ মডেলটি ২১,৭০০ টাকা, ড২উ-অ৯০ দশ সিএফটি ফ্রিজটি পড়বে ২৫,৬০০ টাকা, সাড়ে এগারো সিএফটি ড২উ-১ঐউ মডেলটির দাম ২৯,২০০ টাকা। এছাড়া ডঋঋ-২অ৩ মডেলের এগারো সিএফটি ওয়ালটন ফ্রিজ ক্রয়ে প্রয়োজন হবে ২৮,২০০ টাকা।

ড২উ-২ইঙ বারো সিএফটি পড়বে ২৮,৪০০ টাকা এবং ড২উ-২ঢ১ মডেল সাড়ে বারো সিএফটি মিলবে ৩১,৪০০ টাকা, ওয়ালটনের ফ্রিজ প্রয়োজনে কিস্তির মাধ্যমে ক্রয় করা যাবে।

তোসিবা ফ্রিজ : র‌্যাংগস গ্রুপের ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রীর মধ্যে তোসিবা ফ্রিজ অন্যতম। এ পণ্যটির গুণগতমান বশে পরীক্ষিত। এবার ঈদের কোম্পানি আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফ্রিজ নিয়ে এসেছে। যার মধ্যে এজ-কউ২৬ঝঊ (ঝ) মডেলটি মূল্য ৩৭,৫০০ টাকা যা সাড়ে নয় সিএফটি। সাড়ে এগারো সিএফটি এজ-কউ২০ঝচই মডেলটি পড়বে ৩৯,৯০০ টাকা এজ-কউ ৩৪ঝঊ(ং) মডেলের ফ্রিজটি সাড়ে ১৩ সিএফটি ক্রয় করতে প্রয়োজন হবে ৪৬,৯০০ টাকা। এজ-ক২৪ঝচই মডেলটি ১৫ সিএফটি মূল্য রয়েছে ৪৭,৯০০ টাকা, ১৭ সিএফটির এজ-জ৩৪ঝঊউ (ংু) তোসিবা ফ্রিজ মিলবে ৫৬,৯০০ টাকাতে। এজ-জ৩৯ঝঊউ (ংু) ১৯ সিএফটির দাম ৬১,৯০০ টাকা এবং এজ-কউ৩২ঝঊ মডেল ২৬ সিএফটির মূল্য পড়বে ৮৪,৯০০ টাকা। এছাড়াও তোসিবার রয়েছে বিভিন্ন ডিজাইনের ডিপ ফ্রিজ ব্যাপক জনপ্রিয় এ ডিপগুলো অত্যধিক ব্যবহারের জন্য গ্রেসারি শপ্-এ নিয়ে যায় সাড়ে দশ সিএফটি ঋজএ ১৮৭ মডেলটির মূল্য পড়বে ২৮,০০০ টাকা এবং ঋজএ ১৫৬ ফ্রিজটি মিলবে ২৪,৫০০ টাকাতেই। প্রতিটি কোম্পানিই এ ঈদে কিছু ভাগ ছাড় প্রদান করে মূল্য নির্ধারণ করেছে। সঙ্গে বেশকিছু সুযোগ-সুবিধাও প্রদান করছে। কোরবানিতে ফ্রিজের চাহিদা সম্পর্কে কাকরাইলে অবস্থিত র‌্যাংগস শো-রুমের ইনচার্জ মোঃ ইমরুল বাশার বলেন, ‘গরম ঋতুর পরেই এ সময় ফ্রিজের চাহিদা ব্যাপক বৃদ্ধি পায়। ঈদের অনেকেই পশু কোরবানি দেন। ফলে মাংস সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজের প্রয়োজন হয়। আবার কোরবানি প্রদান না করলেও প্রতিটি বাসাতেই পর্যাপ্ত পরিমাণ মাংস দেখা মেলে। যা বেশকিছু দিন ভালভাবে সংরক্ষণ করতে হয়। তাই ফ্রিজের চাহিদা লক্ষ্য করে বিভিন্ন হারে মূল্য ছাড় প্রদান করে জনসাধারণের মধ্যে ক্রয়ে মনোভাব জাগ্রত করে তোলে। তাতে কোরবানি ঈদে অনেক বেশি পরিমাণ ফ্রিজ বিক্রি হয়। প্রতিটি কোম্পানির ফ্রিজের রয়েছে বিভিন্ন মেয়াদে ওয়ারেন্টি সার্ভিস এতে দ্রব্যটির কোন প্রকার সমস্যা দেখা দিলেই সঙ্গে সঙ্গে শো- রুমে পাঠিয়ে দিতে হবে, ফলে কোন প্রকার চার্জ ছাড়াই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। মসুলমানদের ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে ঈদ-উল ফিতর ও ঈদ-উল আজহ্া অন্যতম। আর এ দুই ঈদকে ঘিরেই ব্যাপক কেনাকাটা সম্পন্ন হয়ে থাকে, যা আনন্দকে আরও বেশি বৃদ্ধি করে। এ সময়কে ঘরবাড়িতে স্থান পায়- নিত্যনতুন পণ্যসামগ্রী। এ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী মানুষের জীবনযাত্রাকে স্বাভাবিক করে তোলে। এ তালিকায় মধ্যে কোরবানির ঈদে অনেকই ফ্রিজ যুক্ত করে। ক্রেতাদের চাহিদার কারণে ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানিগুলো ও বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে নিত্যনতুন আকর্ষণী ডিজাইনের ফ্রিজ বাজারে নিয়ে আসে।

তারিফ