১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মহানগর আওয়ামী লীগের দুই কমিটিতে আসছে নতুন মুখ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ প্রায় তিন বছরের মাথায় চূড়ান্ত হয়েছে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের বিভক্ত দুই কমিটি। একীভূত নাকি দুই সিটিতে বিভক্ত কমিটি হবে, এ নিয়ে দীর্ঘদিন টানাপোড়েন শেষে আন্দোলন-সংগ্রামের সূতিকাগার রাজধানী ঢাকার দুই নগর কমিটির অধিকাংশ পদেই নতুন মুখ আসছে। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ মহানগর আওয়ামী লীগের দুই কমিটি গঠনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতারা ইতোমধ্যে দলের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চূড়ান্ত কমিটির নাম জমা দিয়েছেন। ঈদের পরেই মহানগরের দুই কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। কমিটি গঠনের দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দু’ভাবে বিভক্ত ‘ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ’ এবং ‘ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ’র কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে সুনির্দিষ্ট কিছু নাম প্রস্তাব করে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তারা জমা দিয়েছেন। মহানগর দক্ষিণে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে যথাক্রমে এম এ আজিজ ও শাহে আলম মুরাদ এবং মহানগর উত্তরে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একেএম রহমতুল্লাহ এমপি ও সাদেক খানের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। এ চার জনের নাম প্রস্তাব করা হলেও সবকিছু যাচাই-বাছাই এবং দলের স্বার্থের কথা বিবেচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের ভার দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার ওপরই ছেড়ে দিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতারা।

নগরের একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নির্দিষ্ট নির্দেশনার ভিত্তিতে বিভক্ত দুই মহানগর কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতারা দীর্ঘসময় ধরে অত্যন্ত গোপনে যাচাই-বাছাই এবং থানা-ওয়ার্ড নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেই বিভক্ত কমিটির নাম চূড়ান্ত করে জমা দিয়েছেন। এক্ষেত্রে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজ কিংবা সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রমকেও কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে অনেক কিছু জানতে দেননি তারা। কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে কেউ কোন প্রভাব কিংবা নিজস্ব বলয় সৃষ্টি করতে না পারে সে জন্যই সবকিছু করা হয়েছে গোপনে।

আন্তর্জাতিক সৈকত পরিচ্ছন্নতা দিবস উদযাপন করল বাংলালিংক

বাংলালিংক শনিবার বিগত কয়েক বছরের মতো বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক সৈকত পরিচ্ছন্নতা দিবস পৃষ্ঠপোষকতা করার মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করেছে। আন্তর্জাতিক সৈকত পরিচ্ছন্নতা দিবসে বহু মানুষ কক্সবাজারের বিভিন্ন সমুদ্র তীর এবং জলপথ থেকে ময়লা আবর্জনা পরিষ্কারে অংশগ্রহণ করে এবং যে সব কারণে এ সকল পরিবেশ দূষণ ঘটে তার বিরুদ্ধে নিজেদের সচেতন করে।

বাংলালিংক বিগত কয়েক বছর ধরে আয়োজনের সংগঠক ‘কেওক্রাডং বাংলাদেশ’-এর সঙ্গে এই দিনটি পালন করছে। জনসাধারণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে র‌্যালি এবং সমুদ্র সৈকত পরিচ্ছন্নতা আজকের আন্তর্জাতিক সৈকত পরিচ্ছন্নতা দিবসের প্রাপ্তি। বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ দেশের নানাপ্রান্ত থেকে এই আয়োজনে প্রায় সহস্রাধিক মানুষ সমবেত হয়। র‌্যালিটি সকাল নয়টায় হোটেল শৈবাল থেকে শুরু হয়ে লাবনী পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়।

-বিজ্ঞপ্তি