২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিপু-সাদকে অনুর্ধ-১৯ দলে দরকার ॥ টিটু

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মাসখানেক আগে সিলেটে অনুষ্ঠিত ‘সাফ অনুর্ধ-১৬ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ’-এ অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। ওই দলের দুই কিশোর ফুটবলার সাদ উদ্দিন এবং সারোয়ার জামান নিপুর খেলায় মোহিত হয়েছেন বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৯ জাতীয় ফুটবল দলের কোচ সাইফুল বারী টিটু। তার ইচ্ছা- ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আগামী ২-৬ অক্টোবর পর্যন্ত অনুষ্ঠিতব্য ‘এএফসি অনুর্ধ-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইপর্ব’ আসরে বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৯ দলে এই দুই নির্ভরযোগ্য ফুটবলারকে অন্তর্ভুক্ত করা এবং খেলানো। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সাফ অনুর্ধ-১৬ আসরে সাদের খেলা আমার কাছে খুবই ভাল লেগেছে। আর নিপু তো এখন চলমান এএফসি অনুর্ধ-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইপর্বে অসাধারণ খেলেছে। সৌদি আরবের বিপক্ষে তার করা গোলটি ছিল এক কথায় অসাধারণ। এছাড়া পরের ম্যাচে আমিরাতের বিরুদ্ধে তার পাস থেকেই গোলটি হয়। নিপুর অফুরন্ত দম, ফরোয়ার্ড হিসেবে ক্রমাগত দৌড়ানো এগুলো আমাকে মুগ্ধ করেছে। আশা করি অনুর্ধ-১৯ দলে খেললেও সে ভাল করবে।’ এএফসি অনুর্ধ-১৯ বাছাইপর্বের আট গ্রুপ চ্যাম্পিয়নের সঙ্গে সেরা পাঁচ রানার্সআপ দেশ চূড়ান্ত পর্বে খেলবে। এ টুর্নামেন্টের বাছাইয়ে ‘এ’ গ্রুপে শ্রীলঙ্কা, ভুটান এবং উজবেকিস্তান আছে বাংলাদেশের সঙ্গে। পাকিস্তান নাম প্রত্যাহার করে নেয়। ২৮ সেপ্টেম্বর লাল-সবুজদের প্রথম ম্যাচ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। ৪ ও ৬ অক্টোবরের পরের দুই ম্যাচ যথাক্রমে ভুটান ও উজবেকিস্তানের বিপক্ষে। উল্লেখ্য, ‘এ’ গ্রুপের খেলা হওয়ার কথা ছিল শ্রীলঙ্কায়। কিন্তু তারা এএফসিকে জানায় তারা এ টুর্নামেন্টের স্বাগতিক হতে পারবে না। পাকিস্তানেও এ আসর আয়োজন করা সম্ভব নয়, কেননা সেখানে নিরাপত্তার অভাব (পরে পাকিস্তান নামই প্রত্যাহার করে নেয়)। নিয়ম অনুযায়ী ৮ জুলাইয়ের মধ্যে ভুটান, বাংলাদেশ ও উজবেকিস্তানকে আয়োজক হওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে। যদি কোন দেশই তাতে আগ্রহ প্রকাশ না করে, তাহলে টুর্নামেন্টটি কোন নিরপেক্ষ ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে। সেক্ষেত্রে অংশ নেয়া সব দেশ মিলে এর খরচ বহন করতে হবে। ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ফুটবলের ব্যস্ত সূচী এবং মাঠ স্বল্পতার কারণে বাংলাদেশের এ টুর্নামেন্টের স্বাগতিক হওয়া সম্ভব নয় বলে তখন জানিয়েছিল বাফুফে। পরে তারা সিদ্ধান্ত বদলায়। গত ৫ জুলাই বাফুফে এএফসির কাছে এ টুর্নামেন্টের স্বাগতিক হতে আবেদন করে। এএফসি আবেদন মঞ্জুর করে। উল্লেখ্য, শ্রীলঙ্কা সরকারের অনুষ্ঠান থাকায় ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে এক সপ্তাহ কলম্বো স্টেডিয়াম ব্যবহার করা যাবে না। তাই গ্রুপের খেলা দুই সপ্তাহ এগিয়ে দিতে এএফসিকে অনুরোধ জানিয়েছিল স্বাগতিকরা। তবে ওই সময় অনুর্ধ-১৬ টুর্নামেন্ট চলবে বিধায় রাজি হয়নি এএফসি। এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৯ জাতীয় ফুটবল দলগঠন প্রক্রিয়া শুরু হয় গত জুলাইয়ে। তিন দিনব্যাপী এক উন্মুক্ত ট্রায়াল অনুষ্ঠিত হয়। প্রাথমিক বাছাইয়ে ৫৪ ফুটবলার এই পর্বে অংশ নেয়। যেখান থেকে ২৯ জনকে চূড়ান্তভাবে বাছাই করা হয়। তাদের নিয়ে বাফুফে ভবনে অনুশীলন ক্যাম্প চলমান রয়েছে।