১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চিনিকলের শর্ত ভঙ্গ, জমি ফেরত দাবি আদিবাসীদের

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা, ১৯ সেপ্টেম্বর ॥ মহিমাগঞ্জস্থ রংপুর চিনিকলের আওতাধীন সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের জন্য শর্ত সাপেক্ষে প্রদানকৃত জমি ফিরিয়ে পাওয়ার দাবিতে শনিবার শহরের ১নং রেলগেট এলাকায় আদিবাসী ছাত্র পরিষদ ও আদিবাসী যুব পরিষদ জেলা শাখার উদ্যোগে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রামপুর, সাপমারা, মাদারপুর, নারাংগাবাদ ও চকরাহিমপুর মৌজার ১ হাজার ৮শ’ ৪২ দশমিক ৩০ একর জমি মহিমাগঞ্জস্থ রংপুর চিনিকল কর্তৃপক্ষ মিলটির প্রতিষ্ঠা লগ্নে শর্ত সাপেক্ষে আধিবাসীদের কাছ থেকে গ্রহণ করে। শর্ত ছিল ওই জমিতে কখনও আখ চাষ করা না হলে পরবর্তীতে মূল মালিক অথবা তাদের উত্তরাধিকারদের কাছে তা ফেরত দেয়া হবে। কিন্তু অব্যাহত লোকসানের মুখে এক পর্যায়ে চিনিকলটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে মিলটি পুনরায় চালু করা হলেও সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারে আর আখ চাষ করা হয়নি। বরং ওই জমি স্থানীয় প্রভাবশালীদের লিজ দিয়ে ভুট্টা এবং অন্যান্য ফসলের চাষাবাদ করা হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে জমিদাতারা তাদের সঙ্গে শর্ত লঙ্ঘন করার পরিপ্রেক্ষিতে বেশ কিছুদিন থেকে করতে জমি ফেরত দেয়ার দাবি জানিয়ে আসছে। ওই দাবিরই অংশ হিসেবে গাইবান্ধা শহরে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়।

ডাকাতের নির্মম প্রতিশোধ

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ১৯ সেপ্টেম্বর ॥ উপজেলা বাহুবলের লামাতাশী ইউনিয়নের পল্লী বড়কান্দির এক সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্যদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে চরম প্রতিশোধ নিয়েছে একদল সশস্ত্র ডাকাত। এতে গুরুতর আহত হয় গৃহকর্তা বিরেন দেব (৫০),তার স্ত্রী অর্পণা দেব (৪০) ও পুত্র রিংকু দেব (২৮)। পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, একদল সশস্ত্র ডাকাত আগেরদিন শুক্রবার রাতে ওই গ্রামের বাসিন্দা বিরেন দেবের বাড়িতে হানা দিলে তার পুত্র রিংকু সাহসিকতার সাথে দা হাতে তাদেরকে ফিরে যেতে বাধ্য করে। এরই প্রতিশোধ নিতে প্রচ- বজ্রপাত ও বৃষ্টির সুযোগ নিয়ে শনিবার রাত ৩ টার দিকে একদল ডাকাত আবারও একই বাড়িতে হানা দেয়। একপর্র্যায়ে ডাকাতরা বাড়ির ভেতর বিভিন্ন কক্ষে প্রবেশ করে প্রথমে রিংকুকে উপর্যুপরি কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে। এসময় বাবা বিরেন ও মা অর্পণা পুত্র রিংকুকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরকেও বেদম প্রহারের পর একই কায়দায় আহত করে পালিয়ে যায় ডাকাতরা। তবে ডাকাতরা মূল্যবান কোন জিনিসপত্রে হাত দেয়নি। এ ঘটনার খবর পেয়ে সংশ্লিষ্ট থানার এসআই রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই বাড়ি পরিদর্শন করেন। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।